তীব্র খরতাপে আফগান বধের প্রস্তুতি টাইগারদের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মঙ্গলবার , ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ১১:১৭ পূর্বাহ্ণ
44

ভাদ্রের তালপাকা গরমে যেন পুড়ছে চারদিক। কিন্তু মাঠে ঘাম ঝরাচ্ছেন টাইগার ক্রিকেটাররা। কারণ একটাই টেস্ট ক্রিকেটে নতুন প্রতিপক্ষ আফগানিস্তানকে হারানো। যুদ্ধবিধ্বস্ত এই দলটি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বেশ ভয়ংকর। ওয়ানডেতেও একেবারে মন্দ না। তাবে টেস্ট পরিবারে এখনো নবীন। সবে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচ খেরতে নামবে দলটি। তাই তাদের নিয়ে ভয়টা বেশি। যদিও ভয়ের চাইতে সতর্কতা বেশি দেখছে টাইগার শিবির। কারণ কোনভাবেই যেন পঁচা শামুকে পা না কাটে। আর সে কারনেই কিনা গতকাল সাগরিকাস্থ জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে তিন ঘন্টার কঠোর অনুশীলন করলেন সাকিব-মুশফিক-তাসকিনরা। আগের সন্ধ্যায় চট্টগ্রামে এসে পৌঁছা টাইগাররা গতকাল সকাল দশটায় অনুশীলন শুরু করে। যা চলে টানা বেলা একটা পর্যন্ত।
নতুন কোচ, নতুন প্রতিপক্ষ। আর টেস্ট ক্রিকেটে যেন বাংলাদেশের জন্য এই সিরিজটা নতুন করে শুরুও। কারন লম্বা সময় পর টেস্ট ক্রিকেটে খেলতে নামছে টাইগাররা। আর সে মিশনে প্রতিপক্ষ যখন আফগানিস্তান তখন একটু বাড়তি সতর্কতাতো নিতেই হয়। আফগানিস্তানকে হারাতে হলে কেমন উইকেট হতে হবে সেটা জানাতে চায়না বিসিবি। তবে স্পিনে ভাল বলে হয়তো পেস বান্ধব উইকেট দিয়ে কাবু করার চেষ্টা করা হবে আফগানদের। যদিও উইকেট নিয়ে খুব বেশি মাথা না ঘামিয়ে নতুন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো চাইছেন তার শীষ্যদের শতভাগ প্রস্তুত করে তুলতে। আর সে কারনেই কিনা চট্টগ্রামে গতকাল প্রথম দিন একেবারে ঘাম ঝরানো অনুশীলন করলেন টাইগাররা। আফগানদের বিপক্ষে টেস্টে নেই দলের সেরা তারকা এবং চট্টগ্রামের ছেলে তামিম ইকবাল। তাই দলের উদ্বোধনী জুটি নিয়ে চিন্তা থাকলেও সাদমান, সৌম্য, মোমিনুল, লিটনদের নিয়ে বেশ সময় কাটালেন কোচ ডোমিঙ্গো। তামিম না থাকায় ব্যাটিং এর চাপটা গিয়ে পড়বে সাকিব-মুশফিকের উপর তা বলার অপেক্ষা রাখেনা। তাইতো সাকিব-মুশফিকেরও বাড়তি তাড়না ব্যাটিংটা শুদ্ধ করে নেওয়ার। কেননা আফগানদের স্পিন মোকাবেলা করাটা যে কঠিন হবে সেটা তারা বেশ ভালই বুঝেন।
দলের নতুন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো তার পরিকল্পনা মত সেরে নিলেন প্রথম দিনের অনুশীলনটা। বলতে গেলে ক্যাম্প শুরু হওয়ার পর থেকে গতকালই পুরো দস্তুর অনুশীলন করল বাংলাদেশ দলে। ব্যাঠিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জী ব্যাটসম্যানদের নিয়ে কাটালেন দারুন সেশন। দলের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানদের খুটিনাটিও পরখ করলেন এই প্রোটিয়াস। বিশেষ করে সাকিব-মুশফিক-সৌম্য-সাদমান-মোমিনুল-লিটনদের নিয়ে বেশি কাজ করতে দেখা গেল। কারন এরাইতো বাংলাদেশের ব্যাটিং ভরসা। প্রস্তুতি ম্যাচে রান পাওয়া মাহমুদুল্লাহ-মোসাদ্দেকরাও কম যাননি নিজেদের ঝালাই করে নিতে। পেস বোলিং কোচ ল্যাঙ্গাভেল্ট ছিলেন বেশি তৎপর। কারন তরুন এক পেস বোলিং ইউনিট নিয়ে তাকে মুখোমুখি হতে হচ্ছে আফগানদের। যেখানে রাহি-তাসকিন-এবাদতের উপরই তার ভরসা। তাই আফগান ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে কোথায় বল ফেলতে হবে আর কোথায় বল ফেলা যাবেনা সেটা যেন হাতে কলমে বুঝিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেন এই প্রোটিয়াস সাবেক পেস বোলার। যদিও দলে ফেরার পর থেকে তাসকিনকে নিয়ে বেশ আশাবাদি নতুন পেস বোলিং কোচ। আর প্রস্তুতি ম্যাচেও বেশ ভাল করেছেন তাসকিন। রাহি এবং এবাদতের কাছ থেকেও সেরাটা বের করে আনতে চান এই প্রোটিয়াস বোলিং কোচ।
নিজেদের মাটিতে বরাবরই টাইগারদের সেরা অস্ত্র স্পিন বোলিং। অনেক বড় বড় দলকে সাকিব-তাইজুল-নাইম-মিরাজদের ঘুর্নি দিয়ে কাবু করেছে বাংলাদেশ। তবে দলটি যখন আফগানিস্তান তখন তাদেরকে স্পিন দিয়ে কাবু করার ক্ষেত্রে একটু ভাবতে হবে। কারন তাদের রয়েছে সেরা সব স্পিনার। তারপরও সাকিবের নেতৃত্বে তাইজুল, নাইম এবং মেহেধী হাসান মিরাজরা আফগানদের সুবিধা করতে দেবেনা তেমন প্রত্যাশা টাইগার শিবিরে। তাইতো নিজেদের শেষবারের মত ঝালাই করে নেওয়ার প্রানান্তকর প্রচেষ্টা এই স্পিনারদের। ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন দলের ফিল্ডিং কোচও। শীষ্যদের হাত ফসকে যেন কোন ক্যাচ পড়ে না যায় সেদিকেই যেন তার লক্ষ্য। পুরো তিন ঘন্টার অনুশীলন সেশনে কোন ক্ষেত্রই বাদ যায়নি। কারন লম্বা সময় পর টেস্ট খেলতে যাওয়া বাংলাদেশকে যে পড়তে হবে আফগানদের সামনে। আর এই বাধা উৎরে পরবর্তীতে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য নিজেদের তৈরি করে নিতে চায় বাংলাদেশ দল।

x