তামিমকে রানে ফেরানোর লড়াই ম্যাকেঞ্জির

স্পোর্টস ডেস্ক

মঙ্গলবার , ১১ জুন, ২০১৯ at ১০:৫৪ পূর্বাহ্ণ
33

বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই বেশ ভাল অবস্থায় রয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ব্যাটসম্যান নিল ম্যাকেঞ্জি। এবারের বিশ্বকাপেও তার শিষ্যদের সিংহভাগই রানে আছেন। ওপেনিংয়ে সৌম্যর ব্যাট হাসছে নিয়মিতই। তিন নম্বরে নামা সুপার সাকিবতো থামছেনই না। একেবারে যে কথা বলছেনা মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ কিংবা মোসাদ্দেকের ব্যাট তাও কিন্তু নয়। কিন্তু ব্যতিক্রম কেবল তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ মিঠুন। এদের মধ্যে আবার সবচাইতে বড় ভাবনা তামিমকে নিয়ে। দেশসেরা ব্যাটসম্যান হয়েও এখনো বিশ্বমঞ্চে স্বরূপে আবির্ভূত হতে পারেননি বাঁহাতি এই টাইগার ক্রিকেটার। তাতে গেল দুই ম্যাচে দলের ক্ষতি যা হবার হয়ে গেছে। বিষয়টি একদিকে যেমন বাংলাদেশ দল ও তামিমের জন্য হতাশার তেমনি ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জির জন্যও পীড়াদায়ক। কেননা দিন শেষে তামিমের নিস্প্রভ পারফরম্যান্সের জবাবদিহিতা তাকেই করতে হবে। প্রশ্নবানে জর্জরিত হবেন, কেন তামিমের ব্যাটে রান খরা ? টেকনিকে সমস্যা দেখছেন কী না কিংবা কী কী পন্থা অবলম্বন করলে তামিমের ব্যাট আবার হাসবে। সে রকম নানা প্রশ্ন তীরের মত ছুটে যাবে তার দিকে।
আর সে কারণেই ব্রিস্টলের গ্লুস্টারশায়ার কাউন্টি ক্লাব মাঠের নেটে তামিমকে বিশেষ কোচিং দলেন প্রোটিয়াস ব্যাটিং কোচ ম্যাকেঞ্জি। আজকের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটিকে সামনে রেখে ছিল টাইগারদের অনুশীলন। কাঁটায় কাঁটায় স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় নেটে হাজির তামিম। তার সঙ্গে যোগ দিলেন ব্যাটিং কোচ ম্যাকেঞ্জি। সাড়ে দশটা পর্যন্ত দুজনই নেটে আলোচনা করে নিলেন। এরপর প্যাডআপ কারে তামিম ব্যাটিংয়ে নামলেন। আর থ্রোয়ারের ভূমিকায় থাকলেন ম্যাকেঞ্জি নিজেই। ম্যাকেঞ্জি বল থ্রো করছেন, তামিম শটস খেলছেন। কোনো শট এদিক ওদিক মনে হলেই থ্রো থামিয়ে শিষ্যকে পরামর্শ দিচ্ছেন ম্যাকেঞ্জি। এভাবে চলল প্রায় ঘণ্টা খানিক। বোঝাই যাচ্ছে দেশসেরা ব্যাটসম্যানকে ছন্দে ফেরাতে টিম ম্যানেজমেন্ট কতটা মরিয়া। আর সে জন্য যেন ভিন্ন এক যুদ্ধে নেমে পড়েছেন ম্যাকেঞ্জি।
তামিমের ব্যাটিং যখন প্রায় শেষ হয়ে এসেছে, ঠিক তখন পাশের নেটে যোগ দিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কারণ ঠিক রিয়াদের মত হাসছেনা তার ব্যাটও। এরপর একে একে এলেন দলের বাকি ব্যাটসম্যানরা। মুশফিক অবশ্য নেটের বাইরেও বাড়তি অনুশীলন করেছেন। মাঠের একপ্রান্তে নেটে নিজে নিজেই সুইপ, স্লগ সুইপ শট গুলো রপ্ত করতে গিয়ে ঘাম ঝরিয়েছেন টাইগার উইকেট রক্ষক। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০৬ রানে ধরাশায়ীর ম্যাচটিতে দৈন্য ব্যাটিং ও বোলিংয়ের পাশাপাশি প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল টাইগারদের ঢিলেঢালা ফিল্ডিংও। সেই বিষয়টি মাথায় রেখেই হয়তো প্রধান কোচ স্টিভ রোডস নিজেই শিষ্যদের ফিল্ডিং অনুশীলন করালেন। লং ক্যাচ, রান আউট করতে দ্রুত বল থ্রো সব রকম আয়োজনই ছিল গতকালের অনুশীলনে। কারণ লংকানদের বিপক্ষে ম্যাচটিতে যে জিততেই হবে টাইগারদের।
আর সে ম্যাচে জিততে হলে সবার আগে হাসতে হবে তামিমের ব্যাট। কারণ ইনিংসের শুরুতে ভাল একটি ভিত তৈরি করে দেওয়ার দায়িত্বটা যে যে তারই। কিন্তু গত তিন ম্যাচে সেটা করতে পারেনি তামিম। তাইতো তামিমকে নিয়ে বাড়তি চ্যালেঞ্জ নিতে হচ্ছে ব্যাটিং কোচকে। গতকাল দলের সবাই অনুশীলন করলেও বেশ ফুরফুরে মেজাজে ছিলেন সাকিব আল হাসান । সকালে মাঠে এসে রানিং শেষে কিছু সময় কোচিং স্টাফের সঙ্গে খোশগল্পে কাটিয়ে নেমে গেছেন অনুশীলনে। ব্যাটিং কিংবা বোলিং কোনটিই করেননি সাকিব। তবে তিনি যে প্রস্তুত সেটা বলার অপেক্ষা রাখেনা। আর বাংলাদেশ দলও যে তার ব্যাটের দিকে আরো একবার তাকিয়ে থাকবে তাও নিশ্চিত। তবে একটি দল হয়ে খেলার যে পরিকল্পনা সেটা বাস্তবায়নই এখন টাইগারদের বড় কাজ। আর সে কাজটি করতে হবে দলের ব্যাটসম্যানদের আগে। লঙ্কা বধের মিশনে মারমার-কাটকাট ব্যাটিং, ফিল্ডিংয়ের পাশাপাশি টাইট বোলিং অনুশীলনে নিজেদের শানিয়ে নিয়েছেন মাশরাফি-রুবেলরা। আজকের ম্যাচে হয়তো পরিবর্তন আসতে পারে ্‌একাদশে। সে ক্ষেত্রে দলে জায়গা পেতে পারেন লিটন দাশ এবং রুবেল হোসেন। তবে সবকিছুকে ছাপিয়ে টাইগার শিবিরের সবচাইতে বড় ভাবনার বিষয় তামিম ইকবাল।

x