তরুণদের দক্ষ ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে

শুক্রবার , ৪ অক্টোবর, ২০১৯ at ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ
38

তরুণদের দক্ষতা উন্নয়নে ভূমিকার স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘চ্যাম্পিয়ন অব স্কিল ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ুথ’ সম্মাননায় ভূষিত করেছে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক তহবিল ইউনিসেফ। সম্প্রতি নিউ ইয়র্কের ইউনিসেফ ভবনে ‘অ্যান ইভনিং টু অনার হার এঙিলেন্সি প্রাইম মিনিস্টার শেখ হাসিনা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে তাঁর হাতে এ সম্মাননা তুলে দেন ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক হেনরিয়েটা ফোর। ইউনিসেফকে ধন্যবাদ জানিয়ে শেখ হাসিনা এই সম্মাননা বাংলাদেশের মানুষ, বিশেষ করে দেশের ও বিশ্বের সব শিশুকে উৎসর্গ করেন। তিনি বলেন, লক্ষ লক্ষ তরুণ তাদের দক্ষতা নিয়ে আমাদের জীবন ও জীবিকা নির্বিঘ্ন করে চলেছে। একটি দায়িত্বশীল ও জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠন করতে আমাদের অবিচল পদক্ষেপেরও প্রকাশ করে এই স্বীকৃতি। ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক তরুণদের সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর অবদানের কথা অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রতি পাঁচজনের একজনের বয়স ১৫ থেকে ২৪ বছরের মধ্যে এবং এক চতুর্থাংশের বয়স ১৪ বছরের নিচে। এই তরুণরা ভবিষ্যতের জন্য তৈরি হচ্ছে, যাতে পরিবার ও সমাজের জন্য কিছু করতে পারে। তাদের জন্য শিক্ষা, কর্মসংস্থান প্রয়োজন।
আসলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সময়টাকে কাজে লাগিয়েছেন। কেননা তিনি জানেন, দৈনন্দিন জীবনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সময় ব্যবস্থাপনা। সময় ব্যবস্থাপনা আমাদের জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। যদি আমরা সঠিকভাবে তা প্রয়োগ করতে পারি। সময়কে ঠিকমতো গুছিয়ে নিতে পারলে আমাদের দ্বারা সবই সম্ভব। সময় ব্যবস্থাপনা হলো সময়ের সদ্ব্যবহার নিশ্চিত করে পরিকল্পনা অনুযায়ী অভীষ্ঠ লক্ষ্যে পৌঁছানো। এর ধরন ব্যক্তি ও পরিবেশ ভেদে ভিন্ন। পেশাগত ভিন্নতার কারণেও এর ধরন ভিন্ন হতে বাধ্য। সময়কে যথাযথভাবে কাজে লাগাতে পারলে সফলতা আসবেই। একজন সুনাগরিক, আদর্শ ব্যক্তিত্ব ও আদর্শ জীবন গঠনের জন্য সময় ব্যবস্থাপনা জানা প্রয়োজন।
যদিও সময়ের কাজ সময়ে করার অভ্যাস গড়ে তোলা একটি কষ্টসাধ্য ও অনেক সাধনার বিষয়। অনেকে বলে থাকেন সময়ের ওপর আমাদের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। কিন্তু আমরা মনে করি, আমরা আমাদের কাজকে যেমন নিয়ন্ত্রণ করতে পারি, তেমনি কাজে ব্যবহৃত সময়ের ব্যবস্থাপনাও করতে পারি। ফলে সময়ের কাজ সময়ে করার জন্য আমাদের লক্ষ রাখতে হবে আমাদের কাজের জন্য নেওয়া সিদ্ধান্তগুলোর সঠিকতা ও উপলক্ষ্যের উপরে, আমাদের কাজের ব্যবহৃত সহায়-সম্পদের ব্যবস্থাপনার ধরন ও উপযোগিতার বিষয়ে। আর এই বিষয়গুলোর ব্যবস্থাপনা নির্ভর করবে সংশ্লিষ্ট কাজের উদ্দেশ্য ও পরিকল্পনার ওপর। এই জন্য সাধারণভাবে বলা হয়ে থাকে যে, একটি কাজের যথাযথ পরিকল্পনা ঐ কাজ সম্পাদনের পূর্বশর্ত। সুতরাং কোনো কাজ করার পূর্বে ঐ কাজের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য নির্ধারণ আর কর্ম-পরিকল্পনায় সময় দিতে হবে।
প্রতি বছর ২০ লাখ যুবক বাংলাদেশের শ্রমবাজারে প্রবেশ করে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা দক্ষতা বিকাশের দিকে গুরুত্বের সঙ্গে মনোনিবেশ করেছি এবং যুবকদের যথাযথ জ্ঞান ও দক্ষতাসম্পন্ন করার জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। স্থানীয় ও বিশ্ব বাজারের চাহিদা অনুযায়ী কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, সরকার নির্বাচিত ১০০টি উপজেলায় একশটি কারিগরি স্কুল ও কলেজ স্থাপন করছে। ধীরে ধীরে দেশের অন্যান্য উপজেলাতেও এ জাতীয় স্কুল ও কলেজ হবে। প্রধানমন্ত্রী জানান, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় বেকার ও অপ্রশিক্ষিত যুবকদের মানবসম্পদে রূপান্তর করার একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। কেউ যেন পেছনে পড়ে না থাকে, তা নিশ্চিত করার লক্ষ্য ধরে সরকারের উন্নয়ন পরিকল্পনা সাজানোর কথাও শেখ হাসিনা বলেন। বাংলাদেশের উন্নয়নে, বিশেষ করে শিক্ষার পাশাপাশি শিশু ও নারীদের উন্নয়নে সহায়তার জন্য ইউনিসেফকে ধন্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী।
নতুন প্রজন্মকে যথাযথ জ্ঞান ও দক্ষতাসম্পন্ন করার জন্য সরকার যে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন, তা প্রশংসাযোগ্য। তবে এক্ষেত্রে শিক্ষক অভিভাবকদেরও ভূমিকা পালন করতে হবে। তরুণরা দক্ষ ও যোগ্য নাগরিক হয়ে উঠতে পারলে দেশই লাভবান হবে।

x