তফসিল ঘিরে চট্টগ্রামে র‌্যাব পুলিশের সতর্ক অবস্থান

হাসান আকবর

শুক্রবার , ৯ নভেম্বর, ২০১৮ at ৬:১৩ পূর্বাহ্ণ
409

আগামী ২৩ ডিসেম্বর নির্বাচনের দিন নির্ধারণ করে গতরাতে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করা হয়। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার সাথে সাথে দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হবে এমন আশংকার আভাস ছিল। চট্টগ্রাম নগরীর পাশাপাশি জেলার বিভিন্ন অঞ্চলে মিছিল বের করে তাণ্ডব চালানো হবে এমন গুঞ্জনও ছিল গত কয়েকদিন ধরে। এ অবস্থায় প্রশাসন সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থা গ্রহণ করে। বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পুলিশ ও র‌্যাবের টহল জোরদার করা হয়। রাস্তায় রাস্তায় চেক পোস্ট স্থাপন করে বিভিন্ন যানবাহন, মোটর সাইকেল ও সিএনজি টেক্সিতে ব্যাপক তল্লাশি চালানো হয়। এতে করে আশংকা থাকলেও শেষ পর্যন্ত নগরী বা জেলার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার সাথে সাথে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনসমূহ পৃথক আনন্দ মিছিল বের করে। কিন্তু বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর চোখে পড়ার মতো কোন তৎপরতা দেখা যায়নি।এতে প্রশাসন স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে। গতকাল চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) আমেনা বেগম বলেন, ২০১৩-১৪ সালের দিনগুলো আবারও ফিরে আসুক, সেটা আমরা কেউই চাই না। কোন বাবার সামনে সন্তান পেট্রোল বোমার আগুনে পুড়ে কয়লা হোক, সেটা কারো কাম্য হতে পারে না। এব্যাপারে আমাদের জিরো টলারেন্স। এধরনের পরিস্থিতি কেউ তৈরি করলে তাদের ঠেকানোর সর্বাত্মক প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। সিএমপি ২০টি স্পর্শকাতর পয়েন্ট চিহ্নিত করেছে, যেখানে সার্বক্ষণিক পুলিশ মোতায়েন থাকবে।
জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা গতরাতে দৈনিক আজাদীকে জানান, যদি কোন ধরনের নাশকতা কেউ করতে চায় তা ঠেকানোর জন্য জেলা পুলিশ প্রস্তুত। জেলা পুলিশের আড়াই হাজার সদস্য মাঠে রয়েছে উল্লেখ করে পুলিশ সুপার বলেন, যে কোন ধরনের নাশকতার উচিত জবাব দেয়ার সক্ষমতা আমাদের রয়েছে। তিনি বলেন, একইসাথে আমাদের সহযোগী প্রতিষ্ঠান আরআরএফ, এপিবিএন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যে কোন প্রয়োজনে তারা মাঠে নামবে। এছাড়া জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিজিবি পাওয়ারও সুযোগ রয়েছে। গতরাত দশটায় এ রিপোর্ট
লেখা পর্যন্ত কোথাও কোন ধরনের অঘটনের খবর পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে পুলিশ সুপার বলেন, তবে পুলিশ সজাগ রয়েছে।
গতকাল বন্দর ভবন, জ্বালানি তেলের প্রধান ডিপোসমূহ, ইপিজেড মোড়, অলংকার মোড়, জিইসি মোড়, আগ্রাবাদ, বহদ্দারহাট, কাজীর দেউরীসহ বিভিন্ন এলাকায় র‌্যাব সদস্যদের টহল দিতে দেখা গেছে।
র‌্যাবের একজন কর্মকর্তা বলেন, আমরা রাস্তায় রয়েছি। টহল জোরদার করা হয়েছে। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলোতে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। তবে কোথাও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তিনি বলেন, এখন থেকে নির্বাচন পর্যন্ত বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা হবে।

x