ডেঙ্গু মোকাবেলার উপায়ও জানতে হবে

সিএসসিআর ও এইউডব্লিউর সেমিনারে অভিমত

আজাদী প্রতিবেদন

সোমবার , ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৬:১৮ পূর্বাহ্ণ
26

‘যথাসময়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করলে ডেঙ্গুর প্রকোপ, প্রাদুর্ভাব এবং রোগ ভোগের কষ্ট ও জীবনহানি কমানো যায়। আর ডেঙ্গু যেহেতু এখনো নির্মূল করা সম্ভব হয়নি, সেহেতু ডেঙ্গু নিয়ে থাকার উপায়ও আমাদের জানতে হবে।’ ডেঙ্গু সচেতনতামূলক এক সেমিনারে এসব কথা বলেছেন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ডা. ইমরান বিন ইউনুস।
সেন্টার ফর স্পেশালাইজড্‌ কেয়ার এন্ড রিসার্স (সিএসসিআর) এবং এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন (এইউডব্লিউ)’র স্টুডেন্ট গভর্নমেন্ট ও ম্যাথ এন্ড সায়েন্স সেন্টারের যৌথ আয়োজনে গতকাল সকালে এইউডব্লিউ’র রুফটপ কনফারেন্স হলে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। ‘লার্ণ টু লিভ উইথ ডেঙ্গু’ শীর্ষক এ সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডা. ইমরান বিন ইউনুস। তিনি ডেঙ্গু চিকিৎসায় সরকারি ভাবে প্রণীত প্রথম জাতীয় গাইড লাইনের অন্যতম প্রণেতা। ১৯৯৬ সালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সর্বপ্রথম বৈজ্ঞানিক সমীক্ষায় বাংলাদেশের ডেঙ্গুর ভাইরাস শনাক্ত করা হয়।
এইউডব্লিউ’র স্টুডেন্টস্‌ গভর্নমেন্ট-এর প্রেসিডেন্ট উম্মে হুমায়রা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এইউডব্লিউ’র হেড অব ম্যাথ এন্ড সায়েন্স প্রোগ্রাম প্রফেসর একেএম মনিরুজ্ঝামান মোল্লা এবং ফাইনাল ইয়ার শিক্ষার্থী জারিজা হান্নান চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন এইউডব্লিউ’র রেজিস্টার ড. ডেভ ডোল্যান্ড। স্টুডেন্ট গভর্নমেন্ট এর পক্ষে সেমিনারের সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করেন হিমা আবদুল্লাহ, মালিহা চৌধুরী, ফারহানাজ ওয়ালীজাদা, সুমনা হায়দার চৌধুরী, দেছেন সোমো, মারসি কিকন।
সিএসসিআর পরিবারের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক ডা. এম এ কাসেম, সিও ডা. সালাহউদ্দিন মাহমুদ এবং পরিচালক ডা. একরামুল হক, ডা. জামাল আহমদ, অধ্যাপক ডা. আবদুল কাদের, অধ্যাপক ডা. রাশেদা সামাদ, ডা. খুরশীদ জামিল চৌধুরী ও ডা. মোরসেদুল করিম চৌধুরী।
অধ্যাপক ইমরান তাঁর প্রবন্ধ উপস্থাপনায় এডিস মশার উৎপত্তি, ডেঙ্গু রোগের সংক্রমণ ও বিস্তার সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন। একই সাথে প্রতিরোধ ও প্রতিকারের উপায় বর্ণনা করেন। বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে ডেঙ্গু রোগের ফলে মানব সম্পদহানির চিত্রও তুলে ধরেন তিনি। ডেঙ্গু হেমোরেজিক ডিজিজ এবং ডেঙ্গু শক সিন্ড্রোমের কারণ ও ভয়াবহতার কথা তুলে ধরে ডা. ইমরান বিন ইউনুস বলেন, মূলত এই দুই কারণেই ডেঙ্গু আক্রান্তের সর্বাধিক মৃত্যু হয়ে থাকে। কিন্তু যথাসময়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করলে ডেঙ্গুর প্রকোপ, প্রাদুর্ভাব এবং রোগ ভোগের কষ্ট ও জীবনহানি কমানো যায়। তবে তত্ত্ব ও তথ্য প্রমাণে দেখা যায়, ডেঙ্গু এখনো নির্মূল করা সম্ভব হয়নি। অর্থাৎ ভবিষ্যতে ডেঙ্গুকে সাথে নিয়েই আমাদের থাকতে হবে। তাই ডেঙ্গু নিয়ে থাকার উপায়ও আমাদের জানতে হবে।
তিনি বলেন, সচেতনতার মাধ্যমেই ডেঙ্গু আক্রান্ত হবার ঝুঁকি থেকে আমরা নিজেদের রক্ষা করতে পারি। আর সচেতনতা সৃষ্টিতে প্রয়োজনে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। কারণ, নিজের ঘর-বাড়ি বা আঙিনার আশ-পাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে সবার আগে নিজেদেরই সচেতন হতে হবে। এইউডব্লিউ’র শিক্ষার্থীদের ডেঙ্গু নিয়ে গবেষণা করারও আহবান জানান তিনি।
প্রবন্ধ উপস্থাপন শেষে উপস্থিত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন অধ্যাপক ইমরান বিন ইউনুস। শেষে ধন্যবাদ বক্তব্য রাখেন এইউডব্লিউ’র ডিন এফ স্টুডেন্টস রানিয়া কাসেম। এর আগে সিএসসিআর’র প্রতিনিধিদল এইউডব্লিউ’র উপাচার্য প্রফেসর ড. নির্মলা রাও এর সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেন।

x