ডা. সাজিয়া আফরিন (ভালোতে-মন্দতে, আনন্দে- দুঃখে)

শুক্রবার , ১১ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:২৭ পূর্বাহ্ণ
69

: পৃথিবীতে কোন কিছুই আসলে নিঃস্বার্থ নয়। আমার কাছে সবসময় মনে হয় সবচেয়ে স্বার্থপরতা আমরা দেখাই ভালবাসার সম্পর্কে। কেউ যখন একজনকে পৃথিবী ভুলিয়ে ভালবাসে, তখনই ভয়ানকভাবে স্বার্থপর হয়ে উঠে। মনে মনে প্রতিটা মুহূর্ত সে চায় ভালবাসার মানুষটা হয় শারীরিকভাবে নয়তো অন্তত মানসিকভাবে হলেও তার সাথে থাকুক! প্রতিটা চায় ভালবাসার মানুষটা যেন অনেক ভাল থাকে, এর পেছনেও কিন্তু স্বার্থপরতাই আছে।সেটা হল – ভালবাসার মানুষটার খারাপ থাকা সে নিতে পারেনা,তার হয়তো ভীষণ ভীষণ কষ্ট হয়। ঐ কষ্টটা যেন পেতে না হয়; তাই সাবধানতার খাতিরেই সবসময় তার প্রার্থনা থাকে প্রিয় মানুষটা ভাল থাকুক, চোখের সামনে থাকুক। সহজ হিসেব – অন্য একজনের আনন্দে, অন্য কারো খুশিতে যখন নিজের প্রশান্তি আসে,তখন সেই মানুষটার আনন্দের জন্য প্রার্থনা করতেই হয় আর এটাও তো স্বার্থপরতা। নিজের সন্তানকে মা নিঃস্বার্থ ভাবে ভালবাসে শুনেছি।আমিও একজন মা; আমি কিন্তু স্বার্থপরের মতোই ভালবাসি আমার সন্তানদের। ওরা আমাকে ঘিরে থাকে,আমাকে আদর করে,আমাকে চোখে হারায় এগুলো আমার ভীষণ ভাল লাগে। আমি পাশে থাকাকালীন ওরা যখন আর কাউকে চেনে না, জানে না, কারো কাছে যেতে চায় না তখন আমার ভীষণ ভাল লাগে, খুশি হই মনে মনে। ওদের চোখে আমি পৃথিবী দেখি, এজন্যই তো ওদের সারাক্ষণ চোখের সামনে রাখতে চাই। ওদের কষ্টে কষ্ট হয় প্রচন্ড, এ যেনো নিজের উপর আসা মারাত্মক আঘাতের চেয়েও অনেক বেশি। তাই তো স্বার্থপরের মতোই ভাবি ওরা ভালো থাকুক,আনন্দে থাকুক নয়তো আমি যে অচল হয়ে পড়বো! এসব স্বার্থপরতা গুলো কিন্তু ভাল, সুন্দর।। আমি যদি ভাল লাগা,ভালবাসার মানুষের জন্য স্বার্থপরই না হলাম, তাহলে ভালবেসে আর কাজ কি! নিজে কষ্টের বিনিময়ে হলেও যদি তাকে ভাল দেখি, তাতে কোন ভুল নেই। আর আমি ব্যক্তিগতভাবে স্বার্থপরের মতোই ভালবাসতে চাই। সবসময়ই চাই আমার প্রিয় মানুষগুলো যেন সবসময় ভাল থাকে।ওদের যেন কখনো কোন কষ্ট না হয়। রাস্তায় চলতে চলতে যেন আমাকে ফেলে সামনে এগিয়ে না যায় আমার সবচেয়ে কাছের মানুষটা। আমি তার সাথে সাথেই চলতে চাই সবসময় – ভালোতে, মন্দতে, আনন্দে কিংবা দুঃখে।

- Advertistment -