টেকনাফে মানবপাচার প্রতিরোধে সচেতনতা কার্যক্রম শুরু

৬ দালালের ২ মাসের সাজা

টেকনাফ প্রতিনিধি

শুক্রবার , ৯ নভেম্বর, ২০১৮ at ৯:৪৭ পূর্বাহ্ণ
9

মালয়েশিয়া পাচারে জড়িত ৬ দালালকে ২ মাস করে সাজা দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) বিকেল ৩ টায় টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রনয় চাকমা এ সাজার আদেশ দেন।
গত বুধবার বিকেলে সেন্টমার্টিন উপকূল হতে কোস্ট গার্ড সদস্যরা ৬ দালাল ও ৩৩ জন ভিকটিককে আটক করে। এ সময় জব্দ করা হয় একটি ট্রলার। দন্ডপ্রাপ্ত মানব পাচারকারীরা হচ্ছে কঙবাজার জেলার মহেষখালী উপজেলার কুতুবজোম ইউনিয়নের দুই সহোদর মৃত মোজাহের মিয়ার ছেলে আব্দুর শুক্কুর ও আব্দুর গফুর, মৃত মো. হোসেনের ছেলে মো. রফিকুল আলম, মো. শরীফের ছেলে মো. সৈকত, আব্দুল হাকিম ওরফে সোনা মিয়ার ছেলে মো. নাসির উদ্দিন ও মৃত মো. দবিরুলের ছেলে জুয়েল। সাজাপ্রাপ্তদেরকে পরে কঙবাজার জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রনয় চাকমা। তিনি বলেন, সম্প্রতি একটি চক্র প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে সাগরপথে মালয়েশিয়া পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এসব প্রতারকদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।
এদিকে মালয়েশিয়া পাচারের শিকার হওয়াদের মধ্যে ৪ জন বাংলাদেশী ও ২৯ জন রোহিঙ্গা নারী পুরুষ ছিলেন। পরে এসব ভিকটিমদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কোস্টগার্ড টেকনাফ স্টেশন কমান্ডার লে. ফয়েজুল ইসলাম। তিনি বলেন, নতুন করে মানবপাচার চক্র সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এসব চক্র ধমন করতে সমন্বিত উদ্যোগ দরকার। মানব পাচারকারী চক্রের তৎপরতা যাতে বৃদ্ধি না পায় এবং আগের মত যাতে জিরো ট্রলারেন্স রাখা যায় সেই তৎপরতা শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। সেই লক্ষ্যে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হাসানের নেতৃত্বে একটি মোবাইল টিম বৃহস্পতিবার দুপুরে টেকনাফের উপকূলীয় বোট ঘাটা তুলাতলি, মহেশখালীয়া পাড়া ও খালকাটা এলাকায় মানব পাচার বিরোধী অভিযান ও সচেতনামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন।

x