টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে নিহত আরও ২

এ নিয়ে ১০ দিনে ৭ জনের মৃতদেহ উদ্ধার

টেকনাফ প্রতিনিধি

শুক্রবার , ১১ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:২৫ পূর্বাহ্ণ
107

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আরো ২ ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ৫টি দেশীয় অস্ত্র এবং ২২ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। নিহতরা হল আব্দুর রশিদ প্রকাশ ডাইল্যা (৪৭) এবং আবুল কালাম (৩৫)। নিহত আব্দুর রশিদ টেকনাফের সাবরাং কচুবুনিয়া এলাকার মৃত এনাম শরীফ এবং আবুল কালাম কাটা বনিয়ার আব্দুর রহমানের ছেলে। পুলিশের দাবি, এঘটনায় পুলিশের টেকনাফ থানার এসআই বোরহান উদ্দিন, এএসআই ফরহাদ ও কনস্টেবল হৃদয় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে সাবরাং খুরেরমুখ এলাকায় এঘটনা ঘটে। টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, নিহতরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী। এদের মধ্যে আবুল কালামের বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মাদক, মানব পাচারসহ ১০টি এবং আব্দুর রশিদের বিরুদ্ধে ৬টি মামলা রয়েছে। এ নিয়ে গত ১০ দিনে টেকনাফে ৭ জনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আইন শৃংখলা বাহিনীর দাবি ওরা সকলে মাদক কারবারি। এদের মধ্যে র‌্যাব ও পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মারা যায় ৪ জন । এ চার জনের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় ৬২ হাজার ইয়াবা ও ৭টি অস্ত্র।
এর আগে গত বছরের মে মাস থেকে সারাদেশে মাদক বিরোধী সাঁড়াশি অভিযান শুরু করে আইন শৃংখলা বাহিনী। এসময় শুধু মাত্র টেকনাফে আইন শৃংখলা বাহিনী ও ইয়াবা ব্যবসায়ী প্রতিপক্ষ গ্রুপের সাথে বন্দুকযুদ্ধে প্রাণ হারায় অন্তত ২৫ জন ইয়াবা কারবারি। আইন শৃংখলা বাহিনী কঠোর অবস্থানে গেলেও মিয়ানমার সীমান্ত দিয়ে ইয়াবা অনুপ্রবেশ বন্ধ করা যাচ্ছে না। কোস্ট গার্ড ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ টেকনাফ সার্কেল পৃথক অভিযান চালিয়ে ৬১ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে। পুলিশ সুত্রে জানা যায়, আটক ২ মাদক ব্যবসায়ীকে নিয়ে তাদের আস্তানায় অভিযানে যায় পুলিশের একটি টিম। পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সংঘবদ্ধ মাদক কারবারিরা পুলিশের অভিযান টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে । পুলিশ সরকারি মাল ও আত্মরক্ষায় পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি শান্ত হলে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ ২ যুবককে টেকনাফ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষনা করেন।
গত ১০ দিনে নিহতরা হচ্ছে- আব্দুর রশিদ প্রকাশ ডাইল্যা (৪৭), আবুল কালাম (৩৫), ৪ জানুয়ারি নোয়াখালী সমুদ্র সৈকতে গুলিবিদ্ধ সাতকানিয়া আমিরাবাদের কামাল উদ্দিনের পুত্র সাজ্জাদ হোসেন ইমরান (২৫ )। ৫ জানুয়ারি গুলিবিদ্ধ ২ রোহিঙ্গা যুবক হোয়াইক্যং পুটিবিলা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ডি ব্লকের খাইরুল আমিন (৩৫) ও আব্দুল্লাহ ( ৪০), ৭ জানুয়ারি দমদমিয়ায় র‌্যাবের বন্দুকযুদ্ধে বাগেরহাটের চিতলমারির বরবাড়িয়া গ্রামের মো. ইব্রাহীম শেখের ছেলে সাব্বির হোসেন (২৫) ও সাভার উপজেলার নগরকুন্ডা গ্রামের মো. আব্দুল মতিনের ছেলে হাফিজুর রহমান (৩৫)। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ জানায়-ওরা মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত।

- Advertistment -