টি-টোয়েন্টি সিরিজও জিতে নিল ভারত

সোমবার , ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ at ১০:৫৮ পূর্বাহ্ণ
52

তৃতীয় ও শেষ টি২০তে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৭ রানে পরাজিত করে সফল একটি সিরিজ শেষ করেছে ভারত। নিউল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ম্যাচে এই জয়ের মাধ্যমে ভারত তিন ম্যাচের টি২০ সিরিজ ২১ ব্যবধানে নিশ্চিত করলো। এর আগে ছয় ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেও ৫১ ব্যবধানে স্বাগতিকদের পরাজিত করেছিল টিম ইন্ডিয়া।

এ ম্যাচে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। পিঠের ইনজুরির কারণে তিনি খেলতে পারেননি। তার স্থানে দলের নেতৃত্ব দেয়া রোহিত শর্মা বলেছেন, প্রথম দুই টেস্টে পরাজয়ের পরেও ভারত জয়ের মানসিকতা থেকে সরে আসেনি। তারই ধারাবাহিকতায় তৃতীয় টেস্টে জয়ের পরে সীমিত ওভারের সিরিজে ভারত আধিপত্য দেখিয়েছে। আমরা নিজেদের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছি। ওয়ানডে ও টি২০তে আমরা দারুণ আগ্রাসী ছিলাম, যার ফল পেয়েছি। যেকোন পরিস্থিতিতে আমরা পিছনে ফিরে তাকাই না, এখানে এটাই প্রমাণিত হয়েছে।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে ভারতকে আমন্ত্রণ জানায় দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক জেপি ডুমিনি। ৭ উইকেটে ভারতের করা ১৭২ রানের জবাবে দক্ষিণ আফ্রিকার শুরুটা ধীর গতির হলেও শেষ পর্যন্ত প্রায় জয়ের সীমানায় পৌঁছে গিয়েছিল। ম্যাচ শেষে অবশ্য ডুমিনি ম্যাচে হারের পিছনে প্রথম ৬টি পাওয়ার প্লে ওভারকেই গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেছেন। ঔ ওভারগুলোই মূলত দুই দলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দিয়েছিল। ৬ ওভারে ভারত যেখানে ১ উইকেটে ৫৭ রান সংগ্রহ করেছিল সেখানে দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর ছিল ১ উইকেটে মাত্র ২৫। ডুমিনি বলেছেন, ‘পাওয়ার প্লেতে তারা দারুণ বোলিং করেছে। আমরা কোনমতেই বাউন্ডারি আদায় করতে পারিনি। এমনকি সিঙ্গেলস নিতেও কষ্ট হয়েছে। এই জয়ের পুরো কৃতিত্বই ভারতের, সাদা বলে তারা অসাধারণ খেলেছে।’ ৪১ বলে ডুমিনির ব্যাট থেকে এসেছে সর্বোচ্চ ৫৫ রান। অভিষিক্ত ক্রিস্টিয়ান জোনকার ২৪ বলে ঝড়ো গতিতে ৫টি বাউন্ডারি ও ২টি ওভার বাউন্ডারির সহায়তায় করেছেন ৪৯ রান। শেষ বলে জোনকার ভুবনেশ্বর কুমারের বলে আউট হয়েছেন, কিন্তু শেষ পর্যন্ত দলকে জয় উপহার দিতে পারেননি। ভারতীয় ওপেনিং বোলার ভুবনেশ্বর সিরিজ সেরা মনোনীত হয়েছেন। প্রথম ছয় ওভারে তিনি ছিলেন অসাধারণ, প্রথম তিন ওভারে তিনি ১৩ রানে নিয়েছেন ১ উইকেট। শেষ ওভারে আবারো তার হাতে বল তুলে দেয়া হয়। তখন জয়ের জন্য প্রোটিয়াসদের প্রয়োজন ছিল ১৯ রানের। কভারে শর্মার হাতে জোনকারের উইকেট পাবার আগে ভুবনেশ্বর দিয়েছেন ১১ রান। শেষ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস শেষ হয় ৬ উইকেটে ১৬৫ রানে। দক্ষিণ আফ্রিকান ফাস্ট বোলার জুনিয়ার ডালা ৩৫ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। এছাড়া মিডউইকেট বাউন্ডারি থেকে সরাসরি থ্রোতে সর্বোচ্চ স্কোরার শিখর ধাওয়ানকে ৪৭ রানে রান আউট করে ভারতীয় রানের চাকা থামিয়ে দিয়েছিলেন। দ্বিতীয় উইকেটে সুরেশ রাইনা ধাওয়ানকে নিয়ে ৬৫ রানে জুটি গড়ে তুলেন। বাঁহাতি স্পিনার তাবরাইজ শামসির বলে লং অনে ক্যাচ তুলে দেবার আগে রাইনা ২৭ বলে করেছেন ৪৩ রান। শেষের দিকে হার্দিক পান্ডিয়ার ২১ রানে ভারতের রান কিছুটা সমৃদ্ধ হয়েছে।

x