জয়বাংলা শিল্পীগোষ্ঠীর স্মরণানুষ্ঠান

আনন্দন প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ৩ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:৩৮ পূর্বাহ্ণ
34

জয়বাংলা শিল্পী গোষ্ঠী চট্টগ্রামের উদ্যোগে এক সন্ধ্যায় কদম মোবারক এম.ওয়াই উচ্চ বালক-বালিকা বিদ্যালয়ে বরেণ্য আবৃত্তিশিল্পী রণজিৎ রক্ষিত ও প্রখ্যাত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু’র স্মরণে স্মরণানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে সংগীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট শিল্পী অচিন্ত্য কুমার দাশ, হানিফুল ইসলাম চৌধুরী ও কাকলী দাশগুপ্তা। কবিতা আবৃত্তি করেন অধ্যক্ষ রতন দাশগুপ্ত, মুক্তিযোদ্ধা রাখাল চন্দ্র ঘোষ ও সংগঠক অমর দত্ত। গান, কবিতা, কথামালা দিয়ে সাজানো স্মরণানুষ্ঠানে বিশিষ্ট কবি আশীষ সেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করেন কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব। উদ্বোধক ছিলেন অভিনেতা সজল চৌধুরী। প্রধান আলোচক ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা দীপংকর চৌধুরী কাজল। বিশেষ আলোচক ছিলেন শ্রমিক নেতা মো: কামাল উদ্দিন চৌধুরী, কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা রাখাল চন্দ্র ঘোষ, ডা: আর. কে রুবেল, সংগঠক তপন তালুকদার। এতে আরো বক্তব্য রাখেন সংগঠক সালাউদ্দিন লিটন, সাংবাদিক তরুণ বিশ্বাস অরুণ, সংগঠক দিলীপ সেনগুপ্ত ও কবি আসিফ ইকবাল। উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক দুলাল কান্তি বড়ুয়া, সংবাদকর্মী বিপ্লব দাশগুপ্ত, তবলা শিল্পী কানুরাম দে, কবি আরিফ চৌধুরী, ছড়াকার তালুকদার হালিম, সংগঠক শিমুল দত্ত, সংস্কৃতিকর্মী মো: আকতার ও আমির হামজা প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জয় বাংলা শিল্পী গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সজল দাশ। প্রধান অতিথি হাসান মুরাদ বিপ্লব বলেন, রণজিৎ রক্ষিত একজন বরেণ্য শিক্ষক, সাংস্কৃতিক সংগঠক ও জনপ্রিয় আবৃত্তি শিল্পী ছিলেন। তিনি সদালাপী, সৎ, আদর্শবান ও সত্যিকারের একজন মানুষ ছিলেন। তিনি আবৃত্তির মাধ্যমে দেশে ও বিদেশে সমান জনপ্রিয় ছিলেন। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে ও পরবর্তী সময়ে তাঁর সৃজনশীল কাজগুলো তাঁকে স্মরণীয় ও বরণীয় করে রেখেছে। শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু দেশে ও বিদেশে সংগীত পরিবেশন করে প্রচুর প্রশংসা কুড়িয়েছেন। তাছাড়া তিনি একজন গীটার যাদুকর ছিলেন। তাঁর গাওয়া অসংখ্য গান তরুণ প্রজন্মকে আন্দোলিত করেছে। কীর্তিমানের মৃত্যু নেই। তাঁরা দু’জনই সংগীত ও আবৃত্তি চর্চায় অবদান রেখে গেছেন। তাঁদের মৃত্যুর প্রতিটি অনুষ্ঠানে জনতার ঢল নেমেছে। সভার সভাপতি কবি আশীষ সেন বলেন, জয় বাংলা শিল্পী গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে দু’জন বরেণ্য শিল্পীকে নিয়ে স্মরণানুষ্ঠান ছোট আকারের হলেও এর তাৎপর্য বিশাল। তাঁরা নিজেদের দায়বদ্ধতা থেকে অনুষ্ঠানগুলোর আয়োজন করে থাকে। এতে দেনা-পাওনার কোন হিসাব থাকে না।

x