জৈষ্ঠতার ভিত্তিতে শূন্যপদে স্থায়ী করা হবে: মেয়র

চসিক সিবিএর সংবর্ধনা ।। সিটি মেয়রের প্রতি আস্থা রাখুন, বিমুখ হবেন না : মাহতাব

সোমবার , ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৫:২৫ পূর্বাহ্ণ
285

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে কর্মরত অস্থায়ী সেবক, শ্রমিক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষকদের বেতন বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন দাবি পূরণ করায় সিটি কর্পোরেশন শ্রমিক কর্মচারী লীগ (সিবিএ) এর পক্ষ থেকে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনার জবাবে সিটি মেয়র পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন,নির্মল সকাল ও পরিবেশ বান্ধব নগর উপহার দিতে চসিকে কর্মরত-কর্মচারীদের শতভাগ দায়িত্ব নগরবাসীর প্রতি উৎসর্গ করার আহবান জানিয়েছেন। আমি আপনাদের দায়িত্ব নিলাম,আপনারা নগরবাসীর দায়িত্ব নিন। আপনাদের কাজই আমার হৃদয়ের গভীরে স্থান হবে বলে মেয়র সকলকে আশ্বস্ত করলেন। তিনি ঘোষণা করেন- নিয়োগ বিধি অনুমোদন হয়েছে। জেষ্ঠ্যতার ভিত্তিতে শূন্যপদ পূরণে স্থায়ী করা হবে। এব্যাপারে কোন তদবির গ্রহণ করা হবে না বলে সকলকে সতর্ক করলেন মেয়র। গতকাল রোববার সকালে নগরীর আউটার স্টেডিয়াম সবুজমেলা মঞ্চে সংবর্ধনা সভায় সংবের্ধয় ব্যক্তি সিটি মেয়র এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন। চসিকের ইতিহাসে এ প্রথম সিবিএ কর্তৃক সংবর্ধিত হলেন মেয়র। মুক্তিযোদ্ধা মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, আওয়ামী লীগ এদেশের খেটে খাওয়া মানুষের দল । এই দল জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। পরিচ্ছন্ন ও পরিবেশ বান্ধব নগর গড়তে সিটি মেয়রকে সহযোগিতা করার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন- আপনাদের শ্রম কখনো ব্যর্থ হবে না, মেয়র মুখে যা বলেন, অন্তরে তা ধারণ করেন।তিনি আরো বলেন- সিটি মেয়রের প্রতি আস্থা রাখুন, বিমুখ হবেন না।
সিটি মেয়র নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করে বলেন- নগরবাসীর সহযোগিতায় পরিচ্ছন্ন কাজে নিয়োজিত কর্মীরা নগরকে আরো সুন্দর করতে সক্ষম হবে। তিনি বলেন,যখনই সুযোগ পাচ্ছি,তখনই আমার শ্রমিক কর্মচারীদের জন্য কিছু না কিছু করার চেষ্টা করেছি। আমার কাছে দাবি দেয়ার দরকার নেই । পর্যায়ক্রমে সকল দাবি পূরণ করা হবে। মেয়র বলেন- আমার জানা নেই, বাংলাদেশের কোথাও কোনো অস্থায়ী কর্মচারী বৈশাখী ভাতা,ঈদ বোনাস পায় কিনা ? তবে আমার হাতে সুযোগ ছিল বলে কর্পোরেশনের অস্থায়ী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এই ভাতা দিয়েছি। মেয়র নগরীকে নিরাপদ ও বাসযোগ্য গড়ার পেছনে সেবকদের অবদানের কথা কৃতজ্ঞ চিত্তে স্মরণ করেন । তাদের সেবায় নগরীকে পরিস্কার পরিচ্ছন্‌্ন রাখা সম্ভব হয়েছে। প্রসঙ্গেক্রমে তিনি ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানি পশুর বর্জ্য অপসারণের কথাও তুলে ধরেন। নগরীর পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে সিটি মেয়র বলেন- ইতোপূর্বে এ নগরীর প্রধান প্রধান সড়কে ১৩৫০টি ডাস্টবিন ছিল । সেই জায়গা থেকে ৭৫০টি ডাস্টবিন অপসারণ করে ৬০০ টিতে নামিয়ে আনা হয়েছে। বাকীগুলো পর্যায়ক্রমে অপসারণ করা হবে। বলা যায়- বর্তমানে এটি একটি পরিচ্ছন্ন ও পরিবেশ বান্ধব শহর। নেই কোথাও ময়লার ভাগাড়। এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, নগরকে পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে ডোর-টু-ডোর প্রকল্প গ্রহণ করি। ডোর টু ডোর কার্যক্রমে ২ হাজার সেবক নিয়োগ করা হয়। এর মধ্যে হরিজনদের মধ্যে থেকে ৭ শত সেবক নিয়োগ দেয়া হয়। ভবিষ্যতে লোক নিয়োগের সময় হরিজনদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি আরো বলেন সেবকদের জীবনমান উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক ইচ্ছায় ৩টি সেবক কলোনীতে ১৪ তলা বিশিষ্ট আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত ৬টি বহুতল ভবন নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে। যেখানে ১৩১৪টি ফ্ল্যাট থাকবে। বরাদ্দ দেয়া হবে শুধুমাত্র হরিজনদের। মেয়র বলেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৩ কোটি ৭০ লক্ষ হতদরিদ্র মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, উপবৃত্তি, নারী শিক্ষার প্রসারসহ বিভিন্নভাবে ১ কোটি মানুষকে সহযোগিতা করছে সরকার। তিনি শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। অনুষ্ঠানে সিবিএ’র পক্ষ থেকে মেয়রকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সামসুদ্দোহা, জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক সফর আলী, চসিক কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন,হাসান মুরাদ বিপ্লব, মো. গিয়াস উদ্দিন, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন। চসিক সিবিএ সভাপতি ফরিদ আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিবিএ সাধারণ সম্পাদক মো. মোরশেদুল আলম চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন সিবিএ সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহিদুল আলম চৌধুরী, মো. ইয়াছিন, রুপন কান্তি দাশ,আবুল মাসুদ,মো. ফরিদ,ওয়ালিমুল আজিম সোহেল ও হরিজন সম্প্রদায়ের পক্ষে দিলীপ দাশ। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের, সলিমুল্লাহ বাচ্চু, হাজী নুরুল হক, আবুল হাসেম, এস এম এরশাদুল্লাহ, মো. জাবেদ, ছালেহ আহম্মদ চৌধুরী, আব্দুল কাদের, গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী, মো. ইসমাঈল বালী, কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা বেগম, মনোয়ারা বেগম মণি, সচিব আবু সাহেদ চৌধুরী, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মুফিদুল আলম, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া, মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাসেম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শফিকুল মান্নান সিদ্দিকী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মুজিবুর রহমান ও বিপ্লব চৌধুরী। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

x