জিম্বাবুয়েকে শক্ত প্রতিপক্ষ হিসেবে চাইছেন টাইগার কোচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

শুক্রবার , ১৯ অক্টোবর, ২০১৮ at ১১:১২ পূর্বাহ্ণ
36

এয়িশা কাপের ফাইনালের পর বাংলাদেশকে নিয়ে সব দলই নতুন করে ভাবতে শুরু করেছে। ভারতকে কাঁপিয়ে দিয়েও শেষ পর্যন্ত এশিয়া কাপটা জেতা হয়নি বাংলাদেশের। তবে এশিয়া কাপ থেকে যে আত্মবিশ্বাস পেয়েছে বাংলাদেশ সেটা নিয়েই সামনের সিরিজ এবং বিশ্বকাপে যেত চায় টাইগাররা। এশিয়া কাপের পর বাংলাদেশের সামনে প্রথম প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে। প্রতিপক্ষ হিসেবে জিম্বাবুয়ে কেমন সেটা সবারই জানা। প্রতিপক্ষ বিবেচনায় জিম্বাবুয়ে কতটা শক্তিশালী সেটা বোধহয় বলার অপেক্ষা রাখেনা। অন্যসবার মত টাইগার হেড কোচ স্টিভ রোডসও সেটা ভাল করেই জানেন। ওয়ানডে ফরম্যাটে মাশরাফিদের ফর্ম এবং হোম কন্ডিশনে তাদের ধারাবাহিক সাফল্যও তার অজ্ঞাত নয়। তবুও ২১ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া হোম সিরিজে মাঠের লড়াই যেন নিরামিষ না হয় এটাই চাওয়া রোডসের। সফরকারী জিম্বাবুয়েকে ভয়াল ভয়ংকর রুপেই দেখতে চাইছেন তিনি। গত মাসে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়ে জিম্বাবুয়ে দলটির অবস্থা সেই আহত পশুর মতোই। পূর্ণাঙ্গ সিরিজে তারা একটি ম্যাচেও জয়ের মুখ দেখেনি। দগদগে সেই ক্ষতে প্রলেপ দিতে বাংলাদেশকে বেছে নিতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন লাল সবুজের এই প্রধান কোচ।
টাইগারদের প্রধান কোচ বলেন দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে জিম্বাবুয়ে জয়ের দেখা পায়নি। কোন দলেরই এটা ভাল লাগার কথা নয়। আমি আশা করি তারা একটি পশুর মতোই সিরিজটিতে খেলবে। যেহেতু দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়ে তারা বাজেভাবে হেরেছে অতএব এখানে তারা ঘুরে দাঁড়াতে চাইবেই। তাই আমাদের সেরা খেলাটিই খেলতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার শের ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রোডস একথা বলেন। ইনজুরির কারণে সিরিজটিতে খেলতে পারছেন না বাংলাদেশের দুই গুরুত্বপূর্ণ সদস্য সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল। কিন্তু তাতে মোটেও বিচলিত নন প্রধান কোচ। বরং বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবেই দেখছেন তিনি।
টাইগার কোচ বলেন, বিষয়টিকে আমি ইতিবাচকভাবেই দেখছি। এটা অন্যদের জন্য সুযোগ। যদি তারা সুযোগটি লুফে নিতে পারে তাহলে আমাদের দলের পারঙ্গমতা প্রকাশ পাবে। দলের মধ্যে জায়গার প্রতিযোগিতা থাকলে সেটা নিতে সবাই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। এটি একটি স্বাস্থ্যসম্মত প্রতিযোগিতার বিষয়। আগামী ২১ অক্টোবর মিরপুর শের ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও সফরকারী জিম্বাবুয়ে। সিরিজের শেষ দুটি ওয়ানডে গড়াবে ২৪ ও ২৬ অক্টোবর চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। প্রতিটি ওয়ানডে ম্যাচ বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায় শুরু হবে। সাকিব এবং তামিম বিহীন দল নিয়েও বেশ আশাবাদি টাইগার কোচ। তিনি বলেণ আমাদের দলে যারা রয়েছে তারা সবাই দলের জন্য সেরাটা দিতে প্রস্তুত। তিনি বলেন যদিও শুরুটা ভালো করা গুরুত্বপূর্ণ। এশিয়া কাপের ফাইনালের কথা মনের করিয়ে দিয়ে রোডস বলেন সে ফাইনালে দারুণ একটা জুটি হয়েছিল আমাদের। ১২০ রানের মতো। এখানেও আমরা ভালো একটা শুরু পেতে চাইব। কিন্তু সব সময় সেটা করা সম্ভব হবে না। ওদের বোলাররাও ভালো করতে পারে। তবে আমাদের ব্যাটিংয়ে ভরসা করার মতো অনেকেই আছে। তিনি বলেন আমি আশা করি আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভাল করতে সক্ষম। এখন তাদের কেবল সতর্কতার সাথে নিজের খেলাটা খেলতে পারলেই হলো। আর আমাদের বোলাররাও বিশ্বমানের। যেকোন দলকে থামিয়ে দিতে প্রস্তুত মোস্তাফিজ-মিরাজরা। আর মাশরাফিতো রয়েছেনই। তবে এটা ঠিক যে জিম্বাবুয়ে চাইবে আমাদের উপর প্রতিশোধ নিতে। কারণ তারা আমাদের কন্ডিশন, উইকেট সবকিছু সম্পর্কে বেশ ভাল ধারণা রাখে। তাই আমাদের চেষ্টা করতে হবে যেরন জিম্বাবুয়ে কোন সুযোগ না পায়। আমরা আমাদের সেরাটা দিয়ে সিরিজ জিততে চাই।

x