জাপানে এনিমেশন স্টুডিওতে লাগিয়ে দেয়া আগুনে নিহত ৩৩

আজাদী অনলাইন

বৃহস্পতিবার , ১৮ জুলাই, ২০১৯ at ১০:৩৯ অপরাহ্ণ
50

জাপানে কিয়োটোর একটি এনিমেশন স্টুডিওতে আগুন লেগে  কমপক্ষে ৩৩ জন নিহত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকালের এ ঘটনায় আরও ৩৬ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে জাপানের রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংবাদমাধ্যম জাপান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন (এনএইচকে)।

জাপানে দুই দশকের মধ্যে এটিই সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যুর এমন ভয়াবহ ঘটনা।

জানা যায়, স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টার সময় তিনতলা ওই স্টুডিও ভবনে আগুন লেগে ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয় গণমাধ্যমে পুলিশ বলেছে, এক লোক কিয়োটো এনিমেশন কোম্পানির স্টুডিও ভেঙে প্রবেশ করে চারদিকে অজ্ঞাত তরল ছিটিয়ে দেয়। ওই সন্দেহভাজনকে আটক করা হলেও তার নাম প্রকাশ করা হয়নি। ৪১ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে আটকের পর শরীরে জখম থাকার কারণে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

কিয়োটো বিভাগীয় পুলিশের এক মুখপাত্র বলেছেন, এক ব্যক্তি তরল ছুড়ে মেরে সেখানে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, ঘটনাস্থলে পুলিশ ছুরিও পেয়েছে।

ওই ভবনে আগুন লাগানোর পর সন্দেহভাজনকে ‘অকালমৃত্যু’ শব্দটি বলতে শোনা গেছে বলে জানিয়েছে এনএইচকে। তবে কিয়োটো এনিমেশন কোম্পানির সাথে ওই ব্যাক্তির কোনো সম্পর্ক ছিল কি না তা স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।

দমকল বিভাগের এক মুখপাত্র বলেছেন, আমরা তিনতলা ওই ভবনটিতে আটকা পড়া বেশ কয়েকজনকে বের করে আনার চেষ্টা করেছি।

আটকা পড়াদের কাউকে স্টুডিওতে পাওয়া গেছে, কাউকে পাওয়া গেছে তিন তলায় আবার কাউকে ছাদে যাওয়ার সিঁড়িতে।

ঘটনাস্থলের কাছে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, তারা টানা কয়েকটি বিস্ফোরণের শব্দ শুনেছেন, তারপর কম্বলে পেঁচিয়ে লোকজনকে বের করে আনতে দেখেছেন।

আগুন লাগার সময় ভবনটিতে ৭০ জন ছিল বলে জানিয়েছেন দমকল কর্মকর্তারা। আহতদের মধ্যে ৩৬ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা গুরুতর।

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, স্টুডিওটি ‘সাউন্ড! ইফোনিয়াম’ সিরিজ তৈরি করে আসছিল এবং তাদের ‘ফ্রি! রোড টু দ্য ওয়ার্ল্ড- দ্য ড্রিম’ নামের সিনেমাটি চলতি মাসে রিলিজ হওয়ার কথা ছিল।

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এমন ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সমবেদনা জানিয়ে বলেছেন, তিনি বাকরুদ্ধ।

সাম্প্রতিক কয়েকটি খবরে বলা হয়েছে, সন্দেহভাজন ব্যক্তিটি ওই কোম্পানির সাবেক কোনো কর্মী নন এবং স্টুডিওটির সঙ্গে তার কোনো যোগসূত্রও নেই।

জাপানের পত্রপত্রিকার খবরে বলা হয়, আগুন জ্বলতে শুরু করার পর ব্যক্তিটি ভবন থেকে পালিয়ে কাছাকাছি একটি স্টেশনের দিকে গিয়েছিলেন। কিয়োটো এনিমেশনের কর্মচারীরা তাকে ধাওয়া করেছিল।

এনএইচকে জানিয়েছে, সন্দেহভাজন ব্যক্তিটি আহত হয়েছে এবং তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ফলে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে তাকে কোনো জিজ্ঞাসাবাদ করেনি।

x