চিটাগাং ক্লাবে চল্লিশ দশকের মফিজন

জাহের মোঃ আলাউদ্দীন খান

বৃহস্পতিবার , ৩ অক্টোবর, ২০১৯ at ১১:৪৫ পূর্বাহ্ণ
23

গত ১৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে চিটাগাং ক্লাবে মঞ্চস্থ হলো ‘মফিজন ’ নাটকটি । ১৯৪৬ সালে প্রকাশিত কথা সাহিত্যিক মাহবুব-উল আলমের কালজয়ী উপন্যাস ‘মফিজন’ উপন্যাসকে নাট্য রূপ দেন প্রখ্যাত নাট্যকার রবিউল আলম । রাত সাড়ে ৮টায় থেকে দর্শক ভর্তি ক্লাব হলে মঞ্চস্থ হয় নাটকটি। মফিজন চিটাগাং ক্লাবেই প্রথম মঞ্চস্থ হয় । মাত্র ৬ সপ্তাহের মহড়ায় নাটকটি পিনপতন নীরবতায় দর্শক পূর্ন চিটাগাং ক্লাব অডিটরিয়মে চল্লিশ দশকের একটি সমাজ চিত্র ফুটিয়ে তুলতে অভিনয় শিল্পীরা নিপুন্যের পরিচয় দিয়েছেন । নাটকটির কাহিনী সংক্ষেপ হলো “ মফিজন আর ছবিরণ দুই বোন। তাদের বাবা ওয়াজ উদ্দীনকে লোকে বলে পুঁথির পন্ডিত। পুরোনা পুঁথি সংগ্রহ নেশা হলেও পেশায় তিনি একজন পাট-ব্যবসায়ী । কৈশোরে খেলার সাথী মাহমুদকে ভালো লেগেছিল মফিজনের। কিন্তু মুরুব্বিদের ইচ্ছায় তার সাথে বিয়ে হলো বড় বোন ছবিরণের। তখন আরশি হাতে মফিজন বসে গেল নিজের গাল থেকে কিশোর মাহমুদের চুম্বনের দাগ মুছে ফেলতে।…ব্যবসাতে মার খেলেন ওয়াজউদ্দীন। বিপর্যস্ত আর্থিক অবস্থায় মফিজনকে পাত্রস্থ করাই দুষ্কর হয়ে দাঁড়ালো। এসময় আকিয়াব প্রবাসী বক্‌শু সরকার পাণিপ্রার্থী হলো মফিজনের। ধনী বক্‌শুর বয়স একটু বেশি। তাই বিয়েতে রাজি হচ্ছিলেন না ওয়াজ। কিন্তু এ ছাড়া আত্মরক্ষার আর উপায়ই বা কী। বক্‌শুর সাথে বিয়ে হলো মফিজনের। আর বিয়ের পরদিনই জরুরি তার পেয়ে সুন্দরী বউ ফেলে আকিয়াব ফিরে গেল বক্‌শু।বৃদ্ধা শাশুড়ির সাথে শুয়ে-বসে পুঁথি পড়ে দিন কাটে মফিজনের। তার নিরানন্দ জীবনে আনন্দের বার্তা বয়ে আনে এক কিশোর।মামীর কাছে বাংলা পড়তেই এসেছিল খোকা। তবে পড়ার ফাঁকে মামীর সৌন্দর্যের পাঠ নিতেও কুন্ঠিত হয় না সে।বছর না ঘুরতেই খবর এল দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেছে বক্‌শু। নিঃসন্তান মফিজন বিধবা হয়ে বাপের বাড়িতে ফিরে এল।.নাসিরপুরের গদিনসিন পীর সৈয়দ বোরহানুদ্দীন বিপন্তিক হয়েছেন। তার নাবালক সন্তানদের দেখভাল করার জন্য একজন ‘লায়েক’ বিবি দরকার। মফিজনকে যোগ্য মনে করে ওয়াজের কাছে পয়গাম পাঠাল তার খাদেমরা। ওয়াজ সম্মত হলেন। এবার পীরের সাথে বিয়ে হলো মফিজনের। পীরবাড়িতে শুরু হলো তার খোলসের জীবন। পীরকে কেন্দ্র করেই চলে এই মেকি জীবন। কালবৈশাখীর তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় খোকার লাগানো মফিজনের চৈতালী লতাবিতান। এগিয়ে চলে তার বিচিত্র জীবনচক্র। চিটাগাং ক্লনাবে প্রযোজিত এই নাটকটি ক্লাবের প্রাক্তন সদস্য ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব প্রয়াত শান্তনু বিশ্বাসের নামে উৎসর্গ করা হয় নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে। অভিনয় শিল্পীরা হলেন এ জে এম রবিউল আলম(মহাজন), মোহাম্মদ ফরহাত আব্বাস(ওয়াজউদ্দিন শেখ), ইশতিয়াক রহমান(ছমির কাজী ও পীর),আজিজুল হাকীম(মীর তাজউদ্দীন),ডাঃ মুহাম্মদ বদিউল আলম (বকশু সরকার), নাসিমুল আলম চৌধুরী(মামুদ), জাহাঙ্গীর কবির(আমিন), আশরাফুন্নেসা মুন্নি(বেগম সাহেবা),তাসনিম আবেদীন(বুড়ি), শায়লা মাহমুদ(ছবিরণ), নাসরিন সরওয়ার মেঘলা (মফিজন), ফারিন মাহমুদ টুশি (বাবুল্যার মা ও দাসী), শাহনাজ পারভীন সুইুট(বিবি সাহেবা), মোঃ জালাল উদ্দিন(সাঙাত ১ ও মুরিদ ১), যুহায়ের সামিন রাহাত(খোকা), ও জাহের মোঃ আলাউদ্দনী খান( সাঙাত ২ ও মুরিদ ২), সীমান্ত বড়ুয়া (পিয়ন), । নাটকটির প্রযোজনা অধিকর্তা ছিলেন আজিজুল হাকীম। এছাড়া প্রযোজনা সহকারি মোঃ সেলিম,প্রযোজনা সহযোগী হেলাল উদ্দিন , মঞ্চ পরিকল্পনায মোস্তফা কামাল যাত্রা, আলোক পরিকল্পনা ও প্রক্ষেপনে আসিফ ইবনে ইউসুফ, রূপ সজ্জায় শাহীনুর সরওয়ার, পোশাক নির্দেশনায় নাসরিন সরওয়ার মেঘলা, সঙ্গীতে মঈনুদ্দিন কোয়েল দায়িত্ব পালন করেন । অভিনয়ে চিটাগাং ক্লাব সদস্য ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে গঠিত চিটাগাং ক্লাব ডা্রমা গ্রুপের সাথে অভিনয়ে যোগ দিয়েছেন ক‘জন অতিথি শিল্পীও । নাটকটি মঞ্চায়নের পর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে চিটাগাং ক্লাব চেয়ারম্যান জসীম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, নাটক হচ্ছে সমাজ বদলের হাতিয়ার । যাতে ভাল – মন্দ দুটারই অভিনয় হয় । আর ভালটি নিজেদের সমাজে পতিষ্ঠিত করতে পারলেই সাহিত্যিক ও নাট্যকারের সফলতা । আর ই সফলতাই মানুষকে মানবতার শিক্ষা দেয় । তিনি ক্লাব পরিচালনা কমিটি,বিনোদন বিভাগের মেম্বার ইনচার্জ এবং বিশেষ করে নাটক নির্দেশক রবিউল আলম ও অভিনয়ে অংশগ্রহণকারী ক্লাব সদস্য ও তাদের পরিবরের সদস্য, অভিনয় শিল্পী ও প্রযেজনায় সহযোগীদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান । অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিনোদন বিভাগের মেম্বার ইনচার্জ মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ (অপু), নাট্যকার রবিউল আলম। অনুষ্ঠানে ক্লাব নির্বাহী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন আহমেদ, সুলতানুল আবেদীন চৌধুরী, আবু আহমেদ হাসনাত, মোঃ রফিকুল ইসলাম মিয়া বাবুল ,ডাঃ অলক নন্দি, মোঃ জাহিদ সুলতান টিপু এবং বিনোদন সাব কমিটির কনভেনার আমান উল্লাহ আল ছগির ছুট্টু প্রমুখ সহ সাবেক চেয়ারম্যান , ভাইস চেয়ারম্যান ও কমিটি মেম্বারবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।
চিটটাগাং ক্লাব ডা্রমা গ্রুপ কর্তৃক প্রযোজিত এই নাটকটি গত ২৪ সেপ্টেম্বর দ্বিতীযবারের মত মঞ্চস্থ হয় চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি মঞ্চে । যাতে প্রচুর দর্শক সমাগম ঘটে ।

x