চসিক নির্বাচনের প্রস্তুতি ইসির

মার্চে সম্ভাব্য সময় ধরে চলছে মাঠ পর্যায়ের কাজ

শুকলাল দাশ

বৃহস্পতিবার , ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৫:৩৪ পূর্বাহ্ণ
1243

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে ইতিমধ্যে নির্বাচনের প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। মার্চেই চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সম্ভাব্য সময় ধরে এগিয়ে যাচ্ছে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস ও জেলা নির্বাচন অফিস। নির্বাচন কমিশন সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশেন নির্বাচন আগামী ডিসেম্বরের দিকে করার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। এদিকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ঢাকার পরে মার্চে করার চিন্তা ভাবনা করছে নির্বাচন কমিশন।
চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. হাসানুজ্জামান আজাদীকে জানান, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের এখনো দিনক্ষণ ঠিক না হলেও দাপ্তরিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। নির্বাচনের মাঠ পর্যায়ে যে সকল কাজ রয়েছে সেগুলো শুরু করেছি আমরা। যখনই হোক-প্রস্তুতি অনুযায়ী আমরা নির্বাচন করতে পারবো।
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের প্রস্তুতির কথা জানিয়ে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান আজাদীকে জানান, আগামী ১৪ অক্টোবর সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাচন। সাতকানিয়া উপজেলার নির্বাচনের পর আমরা চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট কেন্দ্রগুলো দেখাশোনা শুরু করবো। এমনিতেই আমাদের ভোট কেন্দ্রগুলোর তালিকা তৈরি করা আছে। সেখান থেকে যদি কোনোটা বাদ যায়-আবার যুক্ত হয় সেটা যাচাই-বাছাই করে পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৈরি করবো। প্রথমে (ডিসেম্বরে) ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরশেন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে। এরপর সম্ভবত মার্চের দিকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে।
যদি ডিসেম্বর কিংবা জানুয়ারিতে চট্টগ্রাম চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন হয় তাহলে বর্তমান ভোটার তালিকা অনুযায়ী নির্বাচন হবে। বর্তমানে চট্টগ্রাম মহানগরীর ভোটার সংখ্যা ১৯ লাখ ৩৬৪৫ জন। বর্তমানে নগরীতে চলমান ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হবে আগামী ৩১ জানুয়ারি। আর যদি মার্চে নির্বাচন হয় তাহলে নতুন ভোটার তালিকা অনুযায়ী ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল একই দিনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন অনুযায়ী পাঁচবছর মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার ১৮০ দিন আগে যে কোনো সময় ভোটগ্রহণ করতে হবে। সে হিসেবে নভেম্বরের মাঝামাঝি নির্বাচন উপযোগী হবে ঢাকার দুই সিটিতে।
স্থানীয় সরকার বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রথম বৈঠক হয়েছিল ২০১৫ সালের ১৪ মে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের বৈঠক হয়েছিল ১৭ মে। অপরদিকে, এর প্রায় তিনমাস পর ৬ আগস্ট চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশেনের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সে হিসেবে এ বছর ১৭ নভেম্বর ঢাকা উত্তর ও ২০ নভেম্বর ঢাকা দক্ষিণ এবং আগামী বছর ৯ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের উপযোগী হবে। এদিকে আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে আবারো প্রস্তুতি শুরু করেছেন বর্তমান মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধানর সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন। পাশাপাশি আরো অনেকেই (রাজনৈতিক নেতা এবং ব্যবসায়ী নেতা) নির্বাচনের ব্যাপারে নিজেদের আগ্রহের কথা জানিয়েছেন।

x