চম্পা চক্রবর্তী (দুটি বাক্যে হলেও অন্তত সান্ত্বনা দিন)

বৃহস্পতিবার , ৯ আগস্ট, ২০১৮ at ৪:৫৬ পূর্বাহ্ণ
51

 : ঝামেলায় আছি এ কথা কেউ বিশ্বাস করতে চায় না। আমার ঘরে ঝামেলা, সন্তানের ঝামেলা। সবচেয়ে বড় দায়িত্ব পালনগত ঝামেলা।এ সব কথা আপনি বলতে গেলেই বলবে মেয়েদের আবার কি এ সব কোন ঝামেলাই না। সেই ভোর বেলা থেকে শুরু সংসার সামাল দিয়ে কর্মস্থলে যোগদান। সেখানেও যেন কোন দায়িত্বে কমতি হতে পারবে না। কষ্ট লাগলেও কাউকে বলতে গেলেন যদি তিনি পুরুষ হন তো হয়েছেতোমার এসব আবার ঝামেলা নাকি এত তো কিঞ্চিত। ঝামেলা বলতে হয় আমাদের কাজ কে শুনিয়ে দেবে বিশাল ইতিহাস। আবার হয়ত বলে বসবে তোমাদের চাকরীতেও তো ফাঁকিবাজি। কাকে বলব ঈশ্বরও তো পুরুষ, উনিও পারলে আমায় বলবে এ সব কিছুই না। মেয়েদের পাঠালাম তো পৃথিবীতে সেবা প্রদানের জন্য। বিনিময়ে কিছু আশা করো না। এখন পুরুষের পাশাপাশি নারীরা সব জায়গাতে কর্মরত। তারপরও বলবে না এ জায়গায় পুরুষ থাকলে কাজ টা আরো ভালো হতো। মেয়েদের সুনামটা কেউ মেনে নিতে চায় না। অথচ আমি বলতে পারি একজন মহিলা কতটা গুরুত্ব দেয় নিজের কাজকে। আগে টিভি তে একটা “”মিনা“”কার্টুন দেখাতো ওখানে মিনার প্রতিদিনের কাজটা কারো চোখে পড়ত না। বিনিময়ে রাজুকে বেশি আদর আর ভালো খাবার দেওয়া হত। শুধু রাজু ছেলে বলে। যখন মিনার কাজ রাজু করল আর রাজুর কাজ মিনা করল। তখন সবাই বুঝল মিনা কতটুকু পরিশ্রম করে। এ পৃথিবীতেও যদি একদিনের জন্য মেয়েদের কাজ ছেলেরা আর ছেলেদের কাজ মেয়েরা করে, তাহলে হয়ত মেয়েদের কষ্টটা একটু হলেও গুরুত্ব পেত। পরিশেষে বলব নিজের কাজের সাথে সাথে অন্যের কাজকেও গুরুত্ব দিন। মনোযোগ দিয়ে শুনুন সে কি বলতে চায় । কিছু করতে না পারেন দুটি বাক্যে হলেও অন্তত সান্ত্বনা দিন।

x