চট্টগ্রাম কলেজের তিন হোস্টেল চালুর মতামত চেয়ে চিঠি

বন্ধই থাকছে পুরনো তিন ছাত্রাবাস

রতন বড়ুয়া

মঙ্গলবার , ২৫ জুন, ২০১৯ at ১০:২৯ পূর্বাহ্ণ
195

দুটি ছাত্রীনিবাস এবং অমুসলিম ছাত্রদের একটি ছাত্রাবাসসহ চট্টগ্রাম কলেজের তিনটি হোস্টেল চালুর বিষয়ে জেলাপ্রশাসনের মতামত চেয়েছে চিঠি দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গতকাল মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সরকারি কলেজ শাখার সিনিয়র সহকারী সচিব রনি চাকমার স্বাক্ষরে চিঠিটি ইস্যু করা হয়েছে বলে জানা গেছে। হোস্টেল তিনটি হল- নবনির্মিত জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রীনিবাস এবং পুরনো খাদিজাতুল কোবরা (রা) ছাত্রীনিবাস। হল দুটিতে একশটি করে আসন রয়েছে। এছাড়া নবনির্মিত অমুসলিম ছাত্রদের হোস্টেলটি হল- ‘ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ছাত্রাবাস’ (হিন্দু হোস্টেল নামে পরিচিত)। এটিতে ৬০ থেকে ৭০ জন শিক্ষার্থী আবাসিক সুবিধা পাবে বলে জানা যায়।
এদিকে কলেজটির আরো তিনটি পুরনো ছাত্রাবাস (শেরেবাংলা, সোহরাওয়ার্দী ও আব্দুস সবুর) খোলার বিষয়ে চিঠিতে ইতিবাচক কোনো তথ্য নেই বলে জানা গেছে। মেরামতের আগে এই তিনটি ছাত্রাবাস চালু করা সম্ভব নয় বলে দাবি কলেজ প্রশাসনের। মন্ত্রণালয়ের চিঠিতেও বিষয়টি উল্লেখ করা আছে। সে হিসেবে ছাত্রদের জন্য মূল হোস্টেল হিসেবে পরিচিত এই তিন ছাত্রাবাস বন্ধই থাকছে। চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসক বরাবর দেয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘চট্টগ্রাম কলেজটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় প্রাচীনতম কলেজ। এই কলেজে বর্তমানে ছাত্রদের জন্য ৪টি এবং ছাত্রীদের জন্য ২টি হোস্টেল রয়েছে। কিন্তু ২০১৫ সালে কলেজটির ছাত্ররাজনীতি পরিবর্তনের পর থেকে হোস্টেলগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়। অনেকদিন ধরে হোস্টেলগুলো বন্ধ থাকার কারণে এর অনেক কিছু নষ্ট হয়ে গেছে। সেগুলো মেরামত করার আগে সব হোস্টেল খোলা সম্ভব না। তবে দুটি ছাত্রী হোস্টেল (সামান্য মেরামত সাপেক্ষে পুরনো ‘খাদিজাতুল কোবরা ছাত্রী নিবাস’ এবং নবনির্মিত ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রী নিবাস’ ও নবনির্মিত একটি ছাত্র হোস্টেল (বর্তমানে হিন্দু হোস্টেল নামে পরিচিত) খোলার বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষ আবেদন করেছেন।’ ফলে চট্টগ্রাম কলেজের এই তিনটি ছাত্রাবাস খোলার বিষয়ে মতামতসহ প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য চট্টগ্রাম জেলাপ্রশাসককে অনুরোধ করা হয়েছে চিঠিতে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রণালয়ের চিঠি এখনো হাতে পাননি বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের জেলাপ্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন। তবে এ সংক্রান্ত চিঠি পেলে হোস্টেলগুলো সরেজমিন পরিদর্শন শেষে মতামত বা প্রতিবেদন দেয়া হবে বলে জানান তিনি। প্রসঙ্গত, ছাত্রীদের জন্য নবনির্মিত ৫তলা বিশিষ্ট ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রীনিবাসটি’ গত ২৪ মে উদ্বোধন করা হয়। শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এর উদ্বোধন করেন। কিন্তু আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাস পার হলেও চালু হয়নি হোস্টেলটি। এ নিয়ে গত ২০ জুন ‘চট্টগ্রাম কলেজের নতুন ছাত্রীনিবাস উদ্বোধন হয়েছে, চালু হয়নি’ শিরোনামে দৈনিক আজাদীর শেষ পাতায় একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই সময় একাদশ শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রম শেষে এই তিনটি হোস্টেল (দুটি ছাত্রীনিবাস ও ১টি ছাত্রাবাস) খোলার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছিলেন অধ্যক্ষ প্রফেসর আবুল হাসান।

x