চট্টগ্রামে পাওয়া যাবে হায়দ্রাবাদের যশোদা হাসপাতালের তথ্য

শনিবার , ৩০ জুন, ২০১৮ at ৭:৩৪ পূর্বাহ্ণ
491

বাংলাদেশের রোগীরা ভারতের তেলাঙ্গানা প্রদেশের রাজধানী হায়দ্রাবাদের যশোদা হাসপাতালে সর্বাধুনিক চিকিৎসা সেবা পাবে। তাছাড়া সেখানে চিকিৎসা খরচের পাশাপাশি অন্যান্য আনুষঙ্গিক খরচও ভারতের অন্যান্য অনেক শহরের তুলনায় কম। হাসপাতালটির চট্টগ্রাম ইনফরমেশর সেন্টার উদ্বোধন উপলক্ষে ২৯ জুন শুক্রবার সন্ধ্যায় নগরীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন হাসপাতালটির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ডা. আর চন্দ্রশেখর।

তিনি বলেন, ‘যশোদা গ্রুপ অভ হসপিটালস রোগীদের বিভিন্ন ক্ষেত্রের চাহিদা পূরণে তিন দশক ধরে মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছে। আমাদের গ্রাহকরা আমাদের উপর আস্থা রাখেন কারণ আমরা ভালো সেবার মাধ্যমে গত বছরগুলোতে তাদের সাথে দৃঢ় সম্পর্ক তৈরি করেছি।’ বিচক্ষণ নেতৃত্ব এবং সুদৃঢ় ব্যবস্থাপনায় যশোদা গ্রুপ অভ হসপিটালস সমাজের সকল স্তরের মানুষকে সর্বোচ্চ মানের চিকিৎসাসেবা প্রদান করে চিকিৎসাজগতে একটি উৎকৃষ্ট কেন্দ্র হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে উল্লেখ করে রোগীদের চাহিদা অনুযায়ী নিপুণভাবে সমন্বিত বৈপ্লবিক প্রযুক্তি, সেরা মেডিক্যাল দক্ষতা এবং সর্বাধুনিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা দেয়া হয় বলে জানান তিনি।

ডা. আর চন্দ্রশেখর জানান, যশোদা হাসপাতালে মেডিসিন ও সার্জারির সকল শাখাউপশাখায় পরিশীলিত রোগনির্ণয় ও রোগনিরাময়বিদ্যার সেবা দেয়া হয়ে থাকে। তাদের তিনটি হাসপাতালে গত ৫ বছরে মোট ২৫ লাখেরও বেশি রোগী ভর্তি হয়েছে এবং প্রতি বছরে বড় ধরনের সার্জারি করানো হয়েছে ১ লাখের উপর, সার্জিক্যাল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে ২ লাখেরও বেশি। হাসপাতাল গ্রুপটিতে যেসব প্রতিষ্ঠান আছে সেগুলো হলো ৩টি স্বতন্ত্র হাসপাতাল, ৩টি হার্ট ইন্সটিটিউট, ৩টি ক্যান্সার ইন্সটিটিউট, ,৭১০টি বেড, ৬২টি চিকিৎসা বিষয়ক বিশেষ শাখা, ৭০০ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।

স্বাস্থ্যসেবায় সেরা অনুশীলনের ব্যাপারে ধারাবাহিক চেষ্টা এবং দ্রশুত ও নিরাপদ চিকিৎসায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার হাসপাতালটিকে নেতৃস্থানীয় হিসেবে আবির্ভূত হতে ভূমিকা রেখেছে বলেও জানান ডা. চন্দ্রশেখর। তিনি জানান, যশোদা হাসপাতাল দি টাইমস হেলথকেয়ার এচিভার্স ২০১৭এ বহুবিশেষায়িত হাসপাতাল হিসেবে ১ম স্থান পেয়েছে। তাছাড়া ১ম স্থান পেয়েছে দি উইক নিয়েলসেন বেস্ট হসপিটাল সার্ভে ২০১৫তেও।

সকল বিশেষায়িত ক্ষেত্রে চমৎকার অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা সম্পন্ন মেডিক্যাল টিম যশোদা হাসপাতালে রয়েছে উল্লেখ করে ডা. চন্দ্রশেখর আরো বলেন, ‘এই টিম অগ্রসর পদ্ধতিতে ক্লিনিক্যাল ও সার্জিক্যাল দক্ষতায় শ্রেয়তর যা রোগীদের সবচেয়ে কম ব্যাথা ও অস্বাচ্ছন্দ্য, হাসপাতালে কম সময় অবস্থান, দ্রুত আরোগ্যলাভের সময় এবং দ্রুততর সময়ে দৈনন্দিন কাজে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে সুবিধা দিয়ে থাকে।’

হাসপাতালটির চিকিৎসাবিষয়ক কিছু অর্জনের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো তেলাঙ্গানা ও অন্ধ্রপ্রদেশে প্রথম সমন্বিত হৃদযন্ত্রফুসফুস প্রতিস্থাপন, এই অঞ্চলে প্রথম আন্তপ্রাদেশিক হৃদযন্ত্র প্রতিস্থাপন, র‌্যাপিডআর্ক প্রযুক্তি দ্বারা বিশ্বের সবচেয়ে বেশি (১০,০০০*) ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসা (* উৎস: ভেরিয়ান মেডিক্যাল সিস্টেমস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র), তেলাঙ্গানা ও অন্ধ্রপ্রদেশে প্রথম অর্ধমানানসই অস্থিমজ্জা প্রতিস্থাপন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডিউক ইউনিভার্সিটির সার্জনদের সহযোগিতায় পালমোনারি এম্বলিজমে পালমোনারি থ্রম্বোএন্ডারটেরেকটমি (পিটিই) পদ্ধতি, আর্টেরিওভেনাস ম্যালফাংশন চিকিৎসায় বিশ্বে প্রথম র‌্যাপিডআর্ক ভিত্তিক স্টেরিওট্যাকটিক রেডিওসার্জারির ব্যবহার, চলমান টিউমারের চিকিৎসায় ভারতে প্রথম ফোরডি গেটেড র‌্যাপিডআর্কএর প্রয়োগ, সারাদেশে অনকোলজিস্ট ও পদার্থবিদ্যাবিদদের জন্য আইএমআরটি/আইজিআরটি ও র‌্যাপিডআর্ক প্রযুক্তির জন্য এক ও একমাত্র অনুমোদিত অগ্রসর প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, রক্তচলাচল সংক্রান্ত অস্থিরতা যুক্ত বহু অঙ্গ অকার্যকারিতা, সেপটিসেমিয়া, রিফ্র্যাক্টরি সিসিএফ ইত্যাদিতে ভারতে প্রথমবারের মতো কনটিনিউয়াস রেনাল রিপেহ্মসমেন্ট থেরাপি (সিআরআরটি)-এর ব্যবহার। মানুষের কাছে সর্বাধুনিক চিকিৎসা নিয়ে আসায় যশোদা হাসপাতাল পথিকৃৎ হিসেবে পরিচিত উল্লেখ করে হাসপাতালটির এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ডা. আর চন্দ্রশেখর আরো বলেন, ‘উচ্চতর শুদ্ধতা, অধিকতর নির্ভুলতা ও সমৃদ্ধ ফলাফল সহ চিকিৎসা দিতে আমরা বৈপ্লবিক প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে চলায় বিশ্বাস করি। চিকিৎসা জগতে গর্বিত চমৎকারিত্ব নিয়ে আমরা আধুনিক চিকিৎসা প্রযুক্তির পুরোভাগে থাকতে পেরে গর্বিত যার প্রমাণ রয়েছে এশিয়া, ভারত এবং তেলাঙ্গানা ও অন্ধ্র প্রদেশে আমাদের অসংখ্য ‘প্রথম’ এবং চিকিৎসা জগতের সাফল্য অর্জন যাদের কয়েকটি হলো দক্ষিণ ভারতে প্রথম থ্রিটি ইন্ট্রাঅপারেটিভ এমআরআই, দক্ষিণ ভারতে সামান্য কয়েকটি হাইপারথার্মিক ইন্ট্রাপেরিটোনিয়াল কেমোথেরাপি (এইচআইপিইসি)-এর মধ্যে একটি, তেলাঙ্গানা ও অন্ধ্র প্রদেশে প্রথম যুগান্তকারী হার্ট ও লাং সেন্টার, ক্যান্সার রোগীদের জন্য এশিয়াতে প্রথম র‌্যাপিডআর্ক রেডিওথেরাপি চিকিৎসা, দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম ১৬চ্যানেল ১.৫টি এইচডিএক্স এমআরআই সিস্টেম, করোনারি এঞ্জিও এবং ননকার্ডিয়াক এপ্লিকেশনের জন্য ভারতে প্রথম হার্ট পিবিভি সহ ডুয়াল সোর্স সিটি, ইনটেনসিটি মড্যুলেটেড রেডিয়েশন থেরাপি (আইএমআরটি) সহ দক্ষিণ ভারতে প্রথম লাইনিয়ার এক্সিলারেটর, দক্ষিণ ভারতে প্রথম হাই ডেফিনিশন পিইটি, এইচইপিএ (এয়ার) ফিল্টার সহ তেলাঙ্গানা ও অন্ধ্র প্রদেশে প্রথম মড্যুলার অপারেশন থিয়েটার এবং তেলাঙ্গানা ও অন্ধ্র প্রদেশে প্রথম ডিজিটাল ফ্ল্যাট প্যানেল কার্ডিয়াক ক্যাথেটারাইজেশন ল্যাব। এ সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালটির নিউরোসার্জারি (ব্রেইন এন্ড স্পাইন) সিনিয়র কনসালট্যান্ট ডা. রবি সুমন রেড্ডি, সার্জিক্যাল অনকোলজি কনসালট্যান্ট ডা. শচীন সুভাষ মার্দা, চট্টগ্রাম ইনফরমেশন সেন্টারের হেড মৃণাল কান্তি দত্ত, সিনিয়র ম্যানেজার (ইন্টারন্যাশনাল সার্ভিসেস) অর্ণব ব্যানার্জি এবং চট্টগ্রাম ইনফরমেশন সেন্টারের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ জয় বড়ুয়া ও সুজন দাশ।

x