চট্টগ্রামে দুই লাখের বেশি ভোট পেলেন ১২ প্রার্থী

সোহেল মারমা

মঙ্গলবার , ১ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:১৮ পূর্বাহ্ণ
664

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুই লাখের বেশি ভোট পেয়েছেন চট্টগ্রামের ১২টি আসনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থীরা। জোটের বাকী ৪টি আসনের প্রার্থীরা দুইয়ের অংকে না পৌঁছালেও কাছাকাছি রয়েছেন। বিগত নির্বাচনগুলোতে এ পরিমাণ ভোট কোন প্রার্থীর পক্ষে পড়েনি।
নবম, দশম ও সর্বশেষ অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের বিভিন্ন প্রার্থীদের অনকূলে পড়া ভোটের পর্যালোচনায় এমন তথ্য মিলেছে। এবার ভোটারের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের সাথে ভোটের ব্যবধান তুলনামূলকভাবে বেশি থাকায় নির্বাচিত প্রার্থীদের ভোট দুই লাখের ঘরে পৌঁছেছে। গত রোববার অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের ১৬টি আসনের সবকটিতেই বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট। একাদশের ফলাফল অনুযায়ী, চট্টগ্রামের ১৬টি নির্বাচনী আসনের মধ্যে ১২টিতে নির্বাচিত প্রার্থীদের পক্ষে দুই থেকে আড়াই লাখের ওপরে ভোট ঢুকেছে।
বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফলে চট্টগ্রাম-১ মীরসরাই আসনে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি ২ লাখ ৬৬ হাজার ৬৫৬টি, চট্টগ্রাম-২ ফটিকছড়ি আসনে সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারী ২ লাখ ৩৮ হাজার ৪৩০, চট্টগ্রাম-৪ সীতাকুণ্ড আসনে দিদারুল আলম ২ লাখ ৬৯ হাজার ৮৮৯, চট্টগ্রাম-৫ হাটহাজারীতে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ২ লাখ ৭৭ হাজার ৯০৯, চট্টগ্রাম-৬ রাউজান আসনে ২ লাখ ৩০ হাজার ৪৭১, চট্টগ্রাম-৭ রাঙ্গুনিয়ায় ড. হাছান মাহমুদ ২ লাখ ১৭ হাজার ১৫৬, চট্টগ্রাম-৮ বোয়ালখালী-চান্দগাঁওয়ে মঈন উদ্দীন খান বাদল ২ লাখ ৭২ হাজার ৮৩৮, চট্টগ্রাম-৯ কোতোয়ালী-বাকলিয়াতে ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ২ লাখ ২৩ হাজার ৬১৪, চট্টগ্রাম-১০ ডবলমুরিং আসনে ডা. আফছারুল আমিন ২ লাখ ৮৭ হাজার ৪৭, চট্টগ্রাম-১১ আসনে এম এ লতিফ ২ লাখ ৮৩ হাজার ১৬৯, চট্টগ্রাম-১৩ পটিয়া-আনোয়ারা আসনে সাইফুজ্জামন চৌধুরী জাবেদ ২ লাখ ৪৩ হাজার ৪১৫ ও চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনে আবু রেজা নদভী ২ লাখ ৫৯ হাজার ৩৭৫টি ভোট পেয়েছেন।
এদের মধ্যে এবারই প্রথম নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা মহিবুল হাসান চৌধুরী বাদে বাকীরা অতীতে কয়েকবার নির্বাচন করেছেন। তাতে দশম সংসদ নির্বাচনে দেড় লাখের নিচে ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন চট্টগ্রাম-২, চট্টগ্রাম-৩, চট্টগ্রাম-১২, চট্টগ্রাম-১৫ ও চট্টগ্রাম-১৬ আসনের প্রার্থীরা।
একই নির্বাচনে দেড় লাখের ওপরে কিন্তু দুই লাখের নিচে ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন চট্টগ্রাম-৪, চট্টগ্রাম-১৩ এর প্রার্থী। এক লাখের নিচে ভোট জমা পড়ে নির্বাচিত হন চট্টগ্রাম-১০ আসনের প্রার্থী। নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এক লাখের নিচে ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন চট্টগ্রাম-৫ আসনের প্রার্থী। বাকি আসনগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম-১০ আসন বাদে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীদের ব্যাংকে দেড় লাখের নিচে ভোট জমা পড়ে। এছাড়া এবার সংসদ নির্বাচনে বাকি ৪টি আসনের বিজয়ী প্রার্থীদের ব্যাংকে ভোট জমা পড়েছে দুই লাখের নিচে। তবে তা দেড় লাখের উপরে। যা তাদের অন্যান্য নির্বাচনের তুলনায় সর্বোচ্চ।

x