চট্টগ্রামের ৩ হাজার ৮২০টি পূজা মণ্ডপে নিরাপত্তা দেবে পুলিশ

আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় ডিআইজি

আজাদী প্রতিবেদন

শুক্রবার , ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৪:৫৯ পূর্বাহ্ণ
456

পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক বলেছেন, হিন্দু ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়া হবে। এবার চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলায় ৩ হাজার ৮২০টি পূজা মণ্ডপে এ উৎসব পালিত হবে। এ উপলক্ষে পুলিশের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নগরের খুলশীতে রেঞ্জ পুলিশের সম্মেলন কক্ষে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় তিনি এসব কথা বলেন। খন্দকার গোলাম ফারুক আরো বলেন, পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দিতে পূজা মণ্ডপগুলোকে অধিক গুরুত্বপূর্ণ, গুরুত্বপূর্ণ ও সাধারণ ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। এছাড়া প্রতি বছরের মতো এবারও প্রতিটি মণ্ডপে পূজার শুরু থেকে বিজয়া দশমী পর্যন্ত পুলিশের পাশাপাশি আনসার সদস্য ও কমিটির স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীকে সার্বক্ষণিক দায়িত্বে রাখা হবে।
একই দিন মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় পুলিশের বিভিন্ন কাজে নির্বাচিত হওয়া সেরাদের মধ্যে বিশেষ সম্মাননা স্মারক ও সার্টিফিকেট অফ এপ্রিসিয়েশন প্রদান করেন ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক। গত আগস্টে অপরাধ নিয়ন্ত্রণে দক্ষতা, আলোচিত মামলার রহস্য উদঘাটন, অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার, নিয়মিত মামলার আসামি গ্রেপ্তার, পরোয়ানা তামিল ও কোর্টে প্রসিকিউশন পক্ষের মামলা পরিচালনাসহ সার্বিক বিবেচনায় ভালো কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে রেঞ্জের ২২ পুলিশ সদস্যকে এ সম্মাননা দেওয়া হয়। এর মধ্যে সেরা সার্কেল অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন মীরসরাই সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. সামছুদ্দিন ছালেহ আহমদ চৌধুরী। সেরা কোর্ট পরিদর্শকদের মধ্যে চট্টগ্রাম সদর কোর্টের পরিদর্শক সুব্রত ব্যানার্জী। থানাতে নোয়াখালী জেলার সুধারাম মডেল থানা ও ট্রাফিকে কুমিল্লা জেলা পুলিশের ট্রাফিক ইউনিট। সেরা ডিবি ইউনিটে কঙবাজার জেলা গোয়েন্দা শাখা ও নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা শাখা।
সেরা ডিবি কর্মকর্তা হয়েছেন কুমিল্লা সদর থানার উপপরিদর্শক পরিমল চন্দ্র দাস। সেরা তদন্ত কর্মকর্তা হয়েছেন মীরসরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র দেবনাথ, লোহাগাড়া থানার এসআই মোহাম্মদ বেলাল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার এসআই হারুনুর রশিদ ও নোয়াখালী জেলা ডিবি’র এসআই জাহাঙ্গীর আলম। সেরা কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার হয়েছেন লোহাগাড়া থানার এসআই অজয় দেব শীল ও লামা থানার এসআই আয়াত উল্লাহ। সেরা এসআই টেকনাফ মডেল থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান, লোহাগাড়া থানার এসআই বিকাশ রুদ্র ও নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থানার এসআই আবদুল জাহের। সেরা মাদক ও অবৈধ অস্ত্র-গুলি উদ্ধারকারী অফিসারের মধ্যে রয়েছেন টেকনাফ মডেল থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান, সেরা ওয়ারেন্ট তামিলকারী অফিসার কঙবাজার সদর মডেল থানার এএসআই মো. মফিজুল ইসলাম। সেরা কমিউনিটি পুলিশিং মনোনীত সদস্য হয়েছেন লোহাগাড়া কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সদস্য মো. আকতার হোছাইন। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন দেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (অপারেশন এন্ড ক্রাইম) মোহাম্মদ আবুল ফয়েজ, জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, চাঁদপুর পুলিশ সুপার মাহাবুবর রহমান, কঙবাজার পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, বান্দরবান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার, খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান, রাঙামাটি পুলিশ সুপার আলমগীর কবীর প্রমুখ।

x