চকরিয়া সাফারি পার্কে ‘সাপের কামড়ে’ জেব্রার মৃত্যু

ঘটনা তদন্তে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ টিম

চকরিয়া প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার , ৮ নভেম্বর, ২০১৮ at ৫:২৯ পূর্বাহ্ণ
301

কক্সবাজারের চকরিয়ার ডুলাহাজারাস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের ৬ জেব্রার মধ্যে একটি জেব্রা মারা গেছে। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে জেব্রাটি নির্দিষ্ট বেস্টনীতে মারা যায়। গতকাল বুধবার সকালে পার্কের জেব্রার বেস্টনীতে কর্মীরা গেলে একটি জেব্রাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান।
পার্ক কর্তৃপক্ষের ধারণা, জেব্রাটি হয়তো ‘সাপের কামড়ে’ মারা পড়েছে। তা না হলে হঠাৎ করে একটি জেব্রা মারা যাওয়ার কোন কারণ দেখছেন না
তারা। এর পরও জেব্রাটি সঠিক কি কারণে মারা গেছে তা নির্ণয় করতে চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ টিম মৃত জেব্রাটির শরীরের নানা নমুনা সংগ্রহ করেছে। সংগৃহীত এসব নমুনা ভেটেরিনারি হাসপাতালের ল্যাবে পরীক্ষা করা হবে। পরে ময়নাতদন্ত প্রক্রিয়া শেষে মৃত জেব্রাটিকে মাটি চাপা দেওয়া হয়।
বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের বন্যপ্রাণী হাসপাতালের সহকারী ভেটেরিনারি সার্জন জেব্রা মারা যাওয়ার বিষয়টি জানেন না বলে দাবি করেন। তবে পার্কের তত্ত্বাবধায়ক (রেঞ্জার) কে এম মোর্শেদুল আলম দৈনিক আজাদীকে জানান, পার্কের নতুন অতিথি ৬টি জেব্রার মধ্যে পুরুষ প্রজাতির একটি জেব্রা মঙ্গলবার দিবাগত রাতে মারা যায়। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে গতকাল বুধবার সকালে চট্টগ্রাম বন্যপ্রাণী হাসপাতালের একটি বিশেষজ্ঞ দল এসে সরজমিন জেব্রার আবাসস্থল পরিদর্শন করে। এসময় তারা মৃত জেব্রার শরীরের নানা অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের নমুনা সংগ্রহ করেন।
তত্ত্বাবধায়ক বলেন, ‘পার্কের জেব্রা বেস্টনীটি বিভিন্ন ঝোপ-জঙ্গলে ভরপুর। সেখানে কয়েক ফুট উচ্চতায় দাঁড়িয়ে রয়েছে প্রচুর ঘাস। আর এসব ঘাসই হচ্ছে জেব্রার প্রধানতম খাবার। সেই ঘাস খাওয়ার পাশাপাশি নিয়মিত ভুষিও দেওয়া হয় এসব জেব্রাকে। কিন্তু মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ করে পুরুষ প্রজাতির একটি জেব্রা মারা যাওয়ার ঘটনায় আমরাও বিচলিত। ধারণা করছি, বিষাক্ত সাপের কামড়েই জেব্রাটি মারা পড়েছে।’
তিনি আরো বলেন, ‘এর পরও জেব্রাটির মৃত্যুর সঠিক কারণ নির্ণয় হবে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর। সেই সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে আমাদের। তাই মৃত জেব্রার শরীর থেকে সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষার জন্য চট্টগ্রাম বন্যপ্রাণী হাসপাতালের ল্যাবে প্রেরণ করা হয়েছে। বিষয়টি পার্কের প্রকল্প কর্মকর্তা ও চট্টগ্রাম বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অঞ্চলের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) ইয়াছিন নেওয়াজ জানার পর আজ (গতকাল) সকালে পার্কে ছুটে আসেন।’
প্রসঙ্গত, বিদেশ থেকে পাচার করে নিয়ে আসার পর যশোরের শার্শা উপজেলায় জব্দ করা হয় ৮টি জেব্রা। এ ঘটনায় চলতি বছরের ৯ মে শার্শা থানায় মামলা করা হয়। পরবর্তীতে এসব জেব্রা প্রেরণ করা হয় গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে। সেখান থেকে প্রধান বন সংরক্ষকের নির্দেশে চকরিয়ার বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে বিপরীত লিঙ্গের তিন জোড়া জেব্রা হস্তান্তর করে গাজীপুর সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষ। চকরিয়ার পার্কে আনার পর এসব জেব্রা তাদের আদর্শিক আবাসস্থল খুঁজে পায়।

x