গুচ্ছকবিতা

কামরুল হাসান বাদল

শুক্রবার , ৪ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:১০ পূর্বাহ্ণ
46

বুনো

আমাদের টিনের চালে তখন বৃষ্টি
আমাদের ঘন নিঃশ্বাসের শব্দ
তাতে চাপা পড়ে গিয়েছিল।
তোমার হাতে বুদ্ধদেবের ‘রাত ভরে বৃষ্টি’
ভিজিয়ে দিয়েছিল বিছানার চাদরে
ছাপা বুনোফুলগুলো।

তুমি ফুলগুলো দেখিয়ে বললে,
বুনো হতে পারো এই একা
আর অনির্জন রাতে?
আমি জানতাম বৃষ্টি থেমে যাবে
তারপর আলোকিত ঘরে
উপন্যাসের চরিত্রগুলো ঢুকে যাবে।

জ্বরের ঘোরে

একটি কবিতা লিখো
তাতে কিছু ফুল-পাতা গুঁজে দাও
একটি মেয়ের মুখ এঁকে দাও
মেয়েটি কুয়াশা ধরেছিল
কুয়াশাও এঁকে দাও
আর শোনো, মেয়েটিকে বলো-
আজ রাতে জলপট্টি নিয়ে
আসতে। আমার এখন ভীষণ জ্বর
তুমি কবিতায় জ্বরের ছবি আঁকতে পার?

দিশা

হাওয়ায় হাওয়ায় উড়ছে তোমার চুল
বাতাসে ছড়িয়ে পড়ে মেথির সুতীব্র ঝাঁজ
বারান্দার টবে বনসাই বৃক্ষ। কিছু ভুল
অনুতাপে পড়ে থাকে বিকেলের কারকাজ।

তোমার চুলের আড়ালে নরম রোদ
মানে সন্ধ্যা, আপাতত বিকেল তাড়াচ্ছে
বেপরোয়া হায় উঠছে সকল বোধ
এ নির্জনতায়। দিশা কেবলই হারাচ্ছে।

অভিধা নয়

রক্তজবা তো বলিনি
বলেছি, লালগোলাপ
রংও থাকল
গন্ধও থাকল
মেঘ তো বলিনি
বলেছি, দুরন্ত খোলা চুল
গন্ধ ও মদিরা
বলেছি, বিকেল
চুমু ও চুমুক
বলেছি, চায়ের কাপে
বলেছি, রঙিন ঠোঁটে

জীবনের জন্য

প্রতিটি সুদীর্ঘ চুম্বনের পর
আমি যে বিষাদের চিহ্ন এঁকে দিতাম
তুমিতো তাকে নিয়তি ধরে নিয়েছিলে
তোমাকে উপহার দিয়েছিলাম
কিছু বিনিদ্র রজনী, উদাস দুপুর
আর আত্মহত্যাপ্রবণ বিকেল।
তার বিনিময়ে আঙুলের স্পর্শে
খুলে দিয়েছিলাম অনন্তের দুয়ার
ভাবলেশহীন সাহচর্য
আর আমাদের যৌথ জীবনের
খেড়োপাতা।
মৃত্যু নয়, জীবনের জন্য
মিলিত হতে চেয়েছিলাম
বিষাদের চিহ্ন এঁকে দিয়েছিলাম
একটি রাতকে গভীর করে তুলেছিলাম।

স্বপ্নহীন
শেষ রাতে কুকুরগুলো আমাকে বাড়ির দরজা
পর্যন্ত পৌঁছে দিলে আমার কিছুই করার থাকে না।
আমি তখন নিরুপায় শিশুর মতো আমার চারপাশে
তাকাই। দেখি সবকিছু কেমন নিরিবিলি এবং শান্ত।
আমার মনে হতে থাকে শহরে নিশ্চয়ই সান্ধ্য আইন
জারি আছে এবং আমারও শিষ্ট নাগরিকের মতো
আচরণ করা সঙ্গত। আমি ভাবি-আমার বাতি নিভিয়ে
ঘুমিয়ে পড়া সমীচীন। আমি বাতি নিভিয়ে দিই এবং
আমার বিছানার পাশে যাই। প্রিয় ও চিরচেনা
বিছানাটি আমাকে দেখে জানালা গলিয়ে বাইরে বেরিয়ে
যায়। আমি সেটি ধরার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করি
আর আমার হাতটি জানালা দিয়ে বাড়িয়ে দিই। কিন্তু
হায়! আমার বাড়িয়ে দেওয়া হাতে বিছানা নয়, একটি
স্বপ্ন ধরা দেয়। অগত্যা আমি স্বপ্নটি নিয়ে মেঝেতেই
শুয়ে পড়ি। যদিও আমি জানি সকাল হলেই দরজা
খোলা রেখে স্বপ্নটি চলে যাবে আর আমি স্বপ্নহীন
আরও একটি দিন কাটাব অন্ধকার ঘরে।

x