খানাখন্দে ভরা দেওয়ানহাট বরমা সড়কে ভোগান্তি

আজাদী প্রতিবেদন

শনিবার , ১৩ এপ্রিল, ২০১৯ at ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ
44

চন্দনাইশ উপজেলার অভ্যন্তরীণ সড়কগুলোর মধ্যে অন্যতম ব্যস্ত একটি সড়ক দেওয়ানহাট-সাতবাড়িয়া-বৈলতলী-বরমা সড়ক। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন উপজেলার সাতবাড়িয়া, বরমা, বৈলতলী ও পার্শ্ববর্তী সাতকানিয়া উপজেলার খাগরিয়া ইউনিয়নের প্রায় লক্ষাধিক মানুষ চলাচল করে।
কিন্তু ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কের অসংখ্য স্থানে এখন ছোট-বড় অসংখ্য খানাখন্দের সৃষ্টি হওয়ায় চলাচলে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। বিশেষ করে সড়কের দেওয়ানহাট বাজার ও সাতবাড়িয়া নাজিরহাট অংশের অবস্থা একেবারে নাজুক। এছাড়া এ সড়কে প্রায়শ দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে বিভিন্ন যানবাহন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার মু. বিল্লাল হোসেন বলেন, সড়কটি সংস্কারের জন্য ১৯ কোটি টাকার প্রজেক্ট প্রোপাইল তৈরি করে ইতোমধ্যে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এপিপিও অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আগামী মাসেই টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ সড়কের যে সব অংশে স্থানীয়রা নালা ভরাট করে ফেলেছেন সেসব অংশ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তিনি স্থানীয়দের এ বিষয়ে আরো সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।
সরেজমিনে দেখা যায়, প্রায় ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটির অবস্থা খুব নাজুক। গাড়ি চলাচলের কোনো পরিবেশ নেই। প্রায় পুরো সড়কে উঠে গেছে কার্পেটিং। আবার অনেক স্থানে পুকুর সমান গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় পানি জমে আছে।
বৈলতলী এলাকার সিএনজি অটোরিকশা চালক মোহাম্মদ হাশেম বলেন, ৩ বছর আগে সড়কটিতে কার্পেটিং করা হয়েছিল। তিনি অভিযোগ করেন, নিম্নমানের কাজের ফলে বছর না ঘুরতেই সড়কের বিভিন্ন স্থানে কার্পেটি উঠে গেছে। দীর্ঘদিন ধরে সড়কটি নষ্ট হলেও আর সংস্কারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে না। এ অবস্থায় সড়কে সিএনজি অটোরিকশা চালাতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বলে জানান তিনি। বিশেষ করে রোগী পরিবহনের সময় সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়তে হয় বলে অভিযোগ তার।
এ সড়ক দিয়ে নিয়মিত যাতায়াতকারী স্থানীয় আমিনুল ইসলাম বলেন, এ সড়ক দিয়ে সাতবাড়িয়া, বরমা, বৈলতলী ও সাতকানিয়ার খাগরিয়াসহ ৫ ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ যাতায়াত করে। এর মধ্যে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার হাজার হাজার ছাত্র/ছাত্রীও রয়েছে। এছাড়া এ অঞ্চলের কৃষকের উৎপাদিত কৃষিপণ্য এ সড়ক দিয়েই দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। ফলে সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ইতোমধ্যে স্থানীয়রা ইটের খোয়া দিয়ে সড়কের বিভিন্ন স্থানে মেরামত করে চলাচলের উপযোগী করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি দ্রুত মেরামতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান।

x