খাগড়াছড়িতে নেতাকর্মীদের হয়রানির অভিযোগ

বিএনপি প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

শনিবার , ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ at ৬:২৫ পূর্বাহ্ণ
39

খাগড়াছড়ির বিভিন্ন স্থানে নেতাকর্মীদের উপর অব্যাহত হামলা, মামলা, প্রচার কাজে বাধা ও হুমকির অভিযোগ করেছে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শহীদুল ইসলাম ফরহাদ। এসব ঘটনায় প্রশাসনকে তাৎক্ষণিক জানানো হলেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়া উল্টো বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার ও এলাকা ছাড়া করা হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।
গতকাল সকালে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের কলাবাগান এলাকায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করা হয়। অভিযোগে বলা হয়, বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়ি সদর শালবন হরিনাথ পাড়া গ্যাপ এলাকায় ধানের শীষ প্রতীকের প্রচারণা ও গণসংযোগের সময় বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালিয়ে মারধর করছে আওয়ামী লীগ। হামলায় বিএনপির ৫ নেতাকর্মী গুরুতর আহত হন। এছাড়া পৌর বিএনপির কোষাধ্যক্ষ শাহ জালালের বাড়িতে হামলা এবং মাইক ও গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। পরে আহত নেতাকর্মীদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।
বিএনপি প্রার্থী আরো জানান, এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় খাগড়াছড়ি পৌর এলাকার ২নং ওয়ার্ডে যুবলীগ কর্মীরা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক জাহিদুল ইসলামকে মারধরের পর অপহরণ করে। পরে সবুজবাগ এলাকা থেকে পুলিশ জাহিদুল ইসলামকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। একই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা দিকে ভাইবোনছড়া ইউনিয়ন মৎস্যজীবী দলের সভাপতি আলমাসের উপর স্থানীয় হাই স্কুল সংলগ্ন এলাকায় অতর্কিত হামলা চালায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা।

এর আগে বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় বেতছড়ি বাজার এলাকায় সালাম মেম্বারের দোকান ভাংচুর করে দোকান থেকে মালামাল সহ ২টি কম্পিটার ও ২টি মোবাইল সেট লুট করে নিয়ে যায় প্রতিপক্ষ। একই সাথে দোকানের ফ্রিজ ও বাড়ির বেড়া ভাংচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
প্রার্থী শহীদুল ইসলাম ফরহাদ আরো অভিযোগ করেন, নির্বাচনের পরিবেশ অশান্ত করতে আওয়ামী লীগ পরিকল্পিতভাবে প্রতিদিন অতর্কিত হামলা করে যাচ্ছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোকে তাৎক্ষণিক লিখিত ও মৌখিকভাবে জানানো হলেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি এসব ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ তৈরির আহ্বান জানান।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহ সভাপতি আবু ইউসুফ চৌধুরী, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক শহীদুল ইসলাম ভূঁইয়া ফরহাদ, এড. মালেক মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক এম এন আবছার, জামায়াতের আব্দুল মান্নান, দপ্তর সম্পাদক আবু তালেব, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, জেলা যুবদলের সভাপতি মো. মাহবুব আলম সবুজ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নজরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মো. জাহেদুল আলম প্রমুখ।
তবে এসব ঘটনার সাথে আওয়ামী লীগের সংশ্লিষ্টতা অস্বীকার করে খাগড়াছড়ি জেলা আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব নির্মলেন্দু চৌধুরী বলেন, ‘আমরা একটা সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। কোনো ধরনের সংঘাত চাই না। এ ঘটনার আ.লীগের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জড়িতদের খুঁজে বের করুক। আমরা এই ঘটনার দায় নিব না।’

x