ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে ফিরছেন মুশফিক

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার , ১৪ মার্চ, ২০১৯ at ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ
21

নিউজিল্যান্ড সফরে এখনো পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রাপ্তির খাতা শূন্য। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর টেস্ট সিরিজেও প্রথম দুই ম্যাচে বরণ করতে হয়েছে ইনিংস ব্যবধানে হারের লজ্জা। ওয়ানডে সিরিজ এবং টেস্ট সিরিজ সবখানেই বাংলাদেশের দুশ্চিন্তার নাম ছিল ব্যাটিং। হ্যামিল্টন টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসটা বাদ দিলে বাংলাদেশের ব্যাটিং একেবারেই বিবর্ণ। অপরদিকে ওয়ানডে সিরিজে মুশফিকুর রহিমের ব্যাট কিছুটা হাসলেও বাকিরা ছিল বিবর্ণ। আর সেই মুশফিকই কিনা খেলতে পারেনি প্রথম দুই টেস্টে। ইনজুরির কারণে টেস্ট সিরিজে এখনো মাঠে নামা হয়নি দেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীমের। তবে ধারণা করা হচ্ছে আগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাওয়া ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের একাদশে ফিরতে যাচ্ছেন তিনি।
গতকাল বিকেলে তেমন ইঙ্গিতই দিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। তিনি জানিয়েছেন গতকাল নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকেলের পর ক্রাইস্টচার্চ পৌঁছেছে টাইগাররা। তাই এখনই চূড়ান্ত কিছু জানানো সম্ভব নয়। নান্নু বলেন বাংলাদেশ দল গতকাল বাংলাদেশ সময় বেলা ১২টায় আর নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকেল ৫টায় ক্রাইস্টচার্চের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। টিম সেখানে গিয়ে গুছিয়ে নেয়ার পর বিস্তারিত জানা যাবে। তবে এখনো পর্যন্ত যতদূর জানি মুশফিকের খেলার সম্ভাবনা উজ্জ্বল। তবু ক্রাইস্টচার্চে অনুশীলনের পর সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে। বাংলাদেশ দলের সবচাইতে বড় তারকা সাকিব আল হাসান নেই সফরের শুরু থেকেই। আশা করা হয়েছিল অন্তত শেষ টেস্টে খেলবেন তিনি। কিন্তু সে আশাও গুড়েবালি। শেষ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে আর যাওয়া হলো না টাইগার দলপতির। সে সাথে মুশফিক নেই দলে। যা টানছেন দলকে তামিম একাই। দুটি ইনিংসে মাহমুদুল্লাহ কিছুটা লড়াই করার চেষ্টা করেছেন। বাকিরা বলতে গেলে ব্যর্থতার বলয়ে বন্দী।
এখন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে যদি মুশফিক খেলেন তাহলে ওয়েলিংটন টেস্টের একাদশে থাকা একজনকে তো বাদ পড়তেই হবে। কাকে বাদ দেওয়া হতে পারে তেমন প্রশ্নের জবাবে নান্নু বলেন যেহেতু মুশফিক ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলবে তাই তাকে দলে নিতে একজন ব্যাটসম্যানকেই বাদ দিতে হবে। সেক্ষেত্রে মোহাম্মদ মিঠুন বা সৌম্য সরকারকে বাদ পড়তে হবে। ব্যাটসম্যানের তালিকায় তো লিটন দাসও আছেন। আর সে লিটন দাশের ব্যাটও কথা বলছে না। তার নাম এলো না কেন বাদ পড়ার তালিকায়। অপরদিকে সৌম্য সরকারতো একটি সেঞ্চুরিও করেছেন। নান্নুর কথায় বোঝা যায় লিটনের কিপিংটাই তারা আলোচনায় এগিয়ে রেখেছেন। তাই ব্যাট হাতে ব্যর্থ হলেও লিটনের বাদ পড়ার সম্ভাবনা কম। ফলে প্রথম ম্যাচে সেঞ্চুরি করেও সৌম্যর নাম চলে এসেছে আলোচনায়।
আবার সৌম্যের চেয়ে মিঠুনের বাদ পড়ার সম্ভাবনাই বেশি। প্রধান নির্বাচকের কথায় টের পাওয়া গিয়েছে ডানহাতি মিঠুনের ব্যাটিং অ্যাপ্রোচও মনঃপুত হয়নি তাদের। ফলে শেষ টেস্টে হয়তো মোহাম্মদ মিঠুনের জায়গাতেই দেখা যাবে দেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীমকে। নিউজিল্যান্ড সফরে বেশ কঠিন পরীক্ষা দিতে হচ্ছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের। হোক না সেটা ব্যাটসম্যান কিংবা বোলার। ব্যাটসম্যানরা যেমন কাবু হচ্ছেন স্বাগতিক দলের বোলারদের সামনে তেমনি বোলাররা পারছেন না নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের রান বন্যা থামাতে। একের পর এক সেঞ্চুরি আর ডাবল সেঞ্চুরি করে যাচ্ছেন নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। অথচ সেখানে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের লড়াই করতে হচ্ছে প্রতিপক্ষ বোলারদের সামলাতে।
বিশেষ করে স্বাগতিক দলের বোলারদের শর্ট বলের সামনে রীতিমত কাবু হয়েছে টাইগার ব্যাটসম্যানরা। এখন দলের সবচাইতে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকের অন্তর্ভুক্তিতে দলের ব্যাটিংয়ে যদি কিছুটা নির্ভরতা আসে সেদিকেই তাকিয়ে টাইগার শিবির। অন্তত মিডল অর্ডারে মুশফিক কিছুটা হলেও হাল ধরতে পারবেন তেমনটাই আশা টিম ম্যানেজম্যান্টের।

x