ক্যাম্পাস হোক মুক্তচিন্তার জায়গা

আবরার হত্যা : প্রতিবাদে উত্তাল চট্টগ্রাম

আজাদী প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ১০ অক্টোবর, ২০১৯ at ৫:১৯ পূর্বাহ্ণ
87

নারকীয় কায়দায় বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, চট্টগ্রাম জেলা সংসদ, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল ও চুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দের ব্যানারে নগরীতে বিভিন্ন প্রতিবাদী কর্মসূচি পালিত হয়েছে। কালো পতাকা মিছিল, প্রতিবাদী সভা সমাবেশ ও মানববন্ধনে প্রতিবাদমুখর দিন ছিল গতকাল বুধবার। নগরীর নিউমার্কেট মোড়, দোস্ত বিল্ডিং এলাকা, বহদ্দারহাট, ষোলশহর ও চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরসহ আরো কয়েকটি স্থানে কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামেন উল্লিখিত সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা।
বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের উদ্যোগে প্রতিবাদী সভা নগরের নিউমার্কেট মোড়ে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের চট্টগ্রাম জেলা সভাপতি এ্যানি সেনের সভাপতিত্বে এবং সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান চৌধুরীর সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা সহ সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার রাফি, স্কুল ছাত্র সম্পাদক নিশান রায়, কোতোয়ালী থানার কোষাধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম, বিজিসি ট্রাস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সাইফুর রহমান খান প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, আবরার সামপ্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ভারত পানি বিষয়ক চুক্তি এবং গ্যাস রপ্তানির চুক্তি নিয়ে সমালোচনা করেছিল। এজন্য তাঁকে মেরে ফেলা হলো! এই ঘটনায় হত্যাকারীরা ছাত্ররাজনীতির নামে কর্তৃত্ববাদী আচরণের ভূমিকা নিয়ে মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে যার সর্বশেষ পরিণতি ছিল আবরারকে হত্যা করা। এর আগেও ভিন্ন মতের জন্য ছাত্রলীগ নামধারী সন্ত্রাসীদের হাতে প্রাণ দিতে হয়েছে আরো অনেক শিক্ষার্থীকে। ক্যাম্পাসগুলো আজ মিনি ক্যান্টনমেন্টে পরিণত হয়েছে। মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে রুদ্ধ করা হয়েছে। এভাবে দমন-নিপীড়ন করে কোন প্রতিক্রিয়াশীল ও গণবিরোধী গোষ্ঠী টিকে থাকতে পারে না। বক্তারা আরো বলেন, মতপ্রকাশে আবরার ফাহাদের মত শিক্ষার্থীদের যেন নৃশংসভাবে হত্যার শিকার হতে না হয়। অতিসত্ত্বর আবরার হত্যার সাথে জড়িতদের সর্বোচ্চ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে এবং শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাসমুক্ত ছাত্ররাজনীতির পরিবেশ তৈরি করতে হবে। সমাবেশ শেষে একটি মিছিল নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সংগঠন কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।
এদিকে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির সাথে মিল রেখে আবরার হত্যার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও দেশ বিরোধী চুক্তি বাতিলসহ ৮ দফা দাবি আদায়ে বিকেলে কালো পতাকা মিছিল নিয়ে মাঠে নামেন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীরা। চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব থেকে কালো পতাকা মিছিলটি শুরু হয়ে আন্দরকিল্লাহ ঘুরে আবার প্রেসক্লাব চত্বরে এসে শেষ হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নেতা মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, মোহাম্মদ এরশাদুল ইসলাম, মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, মোহাম্মদ আরিফুল হক, মোহাম্মদ আমির, মুনতাসির ও মোহাম্মদ নাছিরসহ অন্যরা।
বক্তারা আবরার হত্যার ঘটনায় দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান করার দাবি জানিয়ে বলেছেন, দেশ বিরোধী চুক্তি বাতিল করতে হবে। ৩০ লাখ শহীদের রক্তে ভেজা বাংলার এ প্রান্তরে এ ধরনের চুক্তি কেউ মানবে না।
তারা আরো বলেন, যেসব প্রতিষ্ঠানে ছাত্রলীগ টর্চার সেল প্রতিষ্ঠা করেছে সেগুলো চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রয়োজনে রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে। স্বৈরতান্ত্রিক মানসিকতার অবসান ঘটিয়ে ক্যাম্পাসকে মুক্তচিন্তার আধার হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান তারা।
এদিকে চুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দের ব্যানারেও চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে মৌন মিছিল ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় বিকেলে। এসময় বুয়েটের শিক্ষার্থীদের দাবি-দাওয়ার প্রতি একাত্মতা পোষণ করে সকল প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংগঠনের নামে র‌্যাগিং বন্ধ করার দাবি জানান উপস্থিত নেতাকর্মীরা। সকল প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বত্র সিসি ক্যামেরা স্থাপনের দাবিও জানান তারা।
এদিকে আবরার হত্যার প্রতিবাদে ছাত্রদলের ব্যানারে নগরে একাধিক বিক্ষোভ হয়েছে। এর মধ্যে মহানগর ছাত্রদল নেতা জসিম উদ্দিন হিমেলের সভাপতিত্বে ও মহানগর ছাত্রদল নেতা শফিউল আলম শফির পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন রেজাউল করিম রেজা, মোস্তফা কামাল, জুনায়েদ রাসেল, শেহতাব আহমেদ, নুরুল ইসলাম নুরু, সোহেল, সাজ্জাদ, এনামুল হক এনাম, আবির, আকিব প্রমুখ।
এদিকে গতকাল বিকেল ৩ টায় চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল নেতা সামিয়াত আমিন চৌধুরী জিসানের নেতৃত্বে নগরীর প্রবর্তক এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল।
দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের উদ্যোগে বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শহিদুল আলম শহীদের নেতৃত্বে বৃহত্তর চট্টগ্রামের প্রবেশদ্বার নতুন ব্রিজ এলাকায় প্রবল বৃষ্টি উপেক্ষা করে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় সভাপতির বক্তব্যে মোহাম্মদ শহিদুল আলম শহীদ বলেন, আবরার হত্যার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিন ও সকল শিক্ষা ক্যাম্পাসে সহাবস্থান নিশ্চিত করুন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, নুরুল কবির রানা, আফসারুল্লাহ, সাদ্দাম হোসেন, এম নুরুল আক্কাস, জালাল উদ্দিন প্রমুখ।
ছাত্রলীগের বর্বরোচিত নির্যাতনে নিহত বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদের হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে মহানগর ছাত্রদলের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বিকালে নগরীর কাজীর দেউড়ি মোড় থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে ওয়াসা মোড়ে এসে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয়। নগর ছাত্রদল নেতা মহসিন কবির আপেলের সভাপতিত্বে ও আরিফুর রহমান মিঠুর পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রদল নেতা রাসেদুল ইসলাম, ইফাদ আহমেদ রাসেল, মোঃ আরিফ, শাহজী চিশতি, রাসেল সরকার, মোঃ জাবেদ সাফায়েত, আলি আকবর, সাহাদাত হোসেন সাজ্জাদ, মোঃ শরীফ, সাইদুল ইসলাম তৈয়ব, মোঃ করীম, আবদুল্লাহ আল মুনির রাফি প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, ৩০ ডিসেম্বর মধ্যরাতে ভোট ডাকাতির পর সরকারের আশকারায় যুবলীগ ছাত্রলীগ দেশব্যাপী লাগামহীন খুন, ধর্ষণ ও লুটপাটে মেতে উঠেছে। ছাত্রলীগের দ্বারা বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে হত্যা করার ঘটনা প্রমাণ করলো সরকার দেশের মানুষের প্রতিবাদী কণ্ঠকে নির্মূল করে হিটলারি শাসন বজায় রাখতে চায়।
আবরার ফাহাদ হত্যার বিচারের দাবিতে মিছিল করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদল। এদিকে সকালে চবি ষোলশহর স্টেশনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আবদুল কাইয়ুমের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিক্ষোভ মিছিলটি সমাবেশে রূপ নেয়।
সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে আবরারের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ সকল দেশবিরোধী চুক্তি বাতিল এবং খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানান।

x