কোথায় রাস্তা? কোথায় ফুটপাত?

বৃহস্পতিবার , ১০ অক্টোবর, ২০১৯ at ৫:২২ পূর্বাহ্ণ
19

ফুটপাত আর রাস্তার মধ্যে যে একটা সম্পর্ক আছে সেটা আমাদের সকলেরই জানা আছে। যেখানে রাস্তা আছে সেখানে ফুটপাত থাকবেই। এটাই নিয়ম। কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে রাস্তায় ফুটপাত খুঁজেই পাইনা। ফুটপাত এখন চোখেই পড়ে না সাধারণ মানুষের। আর পড়বেই বা কেন? এখনতো ফুটপাত মানেই মার্কেট। ছোট খাট মার্কেট এখন ফুটপাতেই তৈরি হয়ে যায়। আর ক্রেতারা সেখানে ভিড় করে দখল করে ফেলে ফুটপাত। যার কারণে হাঁটার কোনো অবস্থা থাকে না। কিন্তু আফসোস করতে হয় যখন রাস্তায়ও পথচারীরা হাঁটতে পারে না। রাস্তার পাশগুলোতে এখন গাড়ি পার্কিং আর হকার বাণিজ্য চলে। মোটকথা হাঁটার পথ সংকীর্ণ। আর এতেই পথচারীর মৃত্যু হয়। শুধু তাই নয়, মানুষ রাস্তায় নেমে আসার কারণে সৃষ্টি হয় যানজট। একদিকে ফুটপাত দখল অন্যদিকে রাস্তায় গাড়ি পার্কিং। পথচারীরা যাবে কোথায়? ফুটপাতের দোকানগুলো এমনভাবে বসানো হয়েছে যেন এগুলো দোকান বসানোর জায়গা। চট্টগ্রাম শহরে এখন ফুটপাত হারিয়ে যাচ্ছে। কিছু কিছু স্থানে পথচারীদের জন্য সুন্দর এবং হাঁটার উপযোগী করলেও এসব স্থানে পথচারীর সংখ্যা তেমন নয়। যেখানে পথচারী বেশি সেখানে হকার আর গাড়ি পার্কিংও বেশি। আমি যদি আমার এলাকার কথা বলি, সিটিগেট থেকে পাকা রাস্তার মাথা পর্যন্ত কোনো ফুটপাত নেই। এতেও সমস্যা হতো না, যদি রাস্তার একাংশে ট্রাক লরি না থাকতো। পুরো রাস্তার এক তৃতীয়াংশ ট্রাক আর বড় বড় কাভার্ডভ্যানের মাধ্যমে দখল থাকে। বাধ্য হয়ে পথচারীরা রাস্তার মাঝখানে চলাচল করে। বড় ঝুঁকির বিষয় হচ্ছে এ পথে চলাচল করে ঢাকা, কুমিল্লাসহ উত্তরবঙ্গের সকল গাড়ি। যা অনেক গতিতে চলাচল করে। গাড়িগুলো সিটিগেট থেকে এমন গতিতে চলাচল করে যা খুব ভয়ংকর। এসব গাড়ি পথচারীদের সাথে হালকা স্পর্শ হলেই নিশ্চিত মৃত্যু বরণ করে নিতে হবে। এ পর্যন্ত সিটিগেটের আশেপাশে এসব উচ্চগতির গাড়ি অনেক জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। একদিকে বেপরোয়া গাড়ি অন্যদিকে ফুটপাত দখল। কি অসহনীয় অবস্থা! পথচারীদের জন্য এটা একটি সীমাহীন দুর্ভোগ। কিন্তু আর কতকাল এ দুর্ভোগে থাকবে পথচারীরা? এর কোনো সঠিক উত্তর আজও পাচ্ছি না।
-আজহার মাহমুদ, খুলশী-১, চট্টগ্রাম

x