কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট এর ২৫ বর্ষপূর্তির আয়োজন শিশু উৎসব ও মিলনমেলা

জোবেদা রত্না

বৃহস্পতিবার , ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ at ৬:৫২ পূর্বাহ্ণ
12

শিশু অপার সম্ভাবনার আঁধার। সে নিজের মধ্যে লালন করে এক জিজ্ঞাসাকাতর মন। মনের ভেতর সৃষ্টি করে নেয়’ সব পেয়েছির দেশ’ পরম আপনার জগত। যে জগত একান্ত ভালোালাগার, ভালোবাসার। সে জগতে প্রবেশাধিকার পায়না বস্তুবিশ্বের যুক্তির যান্ত্রিকতা। হৃদয়ের যুক্তিই সেখানে সব; মুক্তির চাবিকাঠি। সৃজনশীল কর্মকান্ডের মাধ্যমে মানুষের ভেতরের সব কলুষতা, হিংসা, অমানবিকতা সহজেই দূরীভুত হয়। কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট এর ২৫ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে জেলা শিল্পকলা একাডেমি অঙ্গণে ২ও ৩ নভেম্বর বেলা ৩টা হতে উদযাপিত হলো ‘শিশু উৎসব ও মিলন মেলা’। সংগীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু, শহীদুল ইসলাম ও অবৃত্তি শিল্পী রনজিৎ রক্ষিত স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন শেষে উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধান অতিথি দৈনিক আজাদীর সমপাদক এম. এ মালেক ও উৎসব সম্মাননাপ্রাপ্ত বিশেষ ব্যাক্তিত্ব বিশিষ্ট অভিনেতা আফজাল হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নিতাই কুমার ভট্টাচার্য, মহাব্যবস্থাপক, বাংলাদেশ টেলিভিশন, চট্টগ্রাম; মো: শহীদুল ইসলাম উপপরিচালক, সমাজ সেবা অধিদফতর, চট্টগ্রাম; প্রফেসর হাসিনা জাকারিয়া বেলা, শিশুবান্ধব শিক্ষাবিদ ও সংগীতজ্ঞ; রাশেদ রউফ, কবি ও শিশুসাহিত্যিক, সৈয়দ মোহাম্মদ সাদিক, সিনিয়র ডিভিশনাল ম্যানেজার, ইষ্পাহানী টি লি: চট্টগ্রাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট এর ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর ড. সৌরভ শাখাওয়াত। সভাপতিত্ব করেন কবি বিদ্যুৎ কুমার দাশ। উৎসবের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিলো – এসো সবাই হাসতে শিখি/ দেশকে ভালোবাসতে শিখি।
কার্তিকের পড়ন্ত বিকেল। পশ্চিম আকাশে সূর্যের রক্তিম আভা। যার পরশ লেগেছে শিশু মনেও। কচিকাঁচা শিশুদের আনন্দ-উচ্ছ্বাস, হই-হুল্লোড়। শিশুময় শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণ। কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট এর ২৫ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত উৎসবে বিকেল ৩টায় শুরু হয় শিশুসমাবেশ আর ইচ্ছেমতো ছবিআঁকা , আবৃত্তি, অভিনয়, লোকনৃত্য, দেশের গান, ম্যাজিক, যেমন খুশি তেমন সাজো , মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ’ বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা আর শিশুসাহিত্যিক সম্মিলণ। লেখাপাঠে অংশগ্রহণ করেন শিশুসাহিত্যিক বিপুল বড়ুয়া, এমরান চৌধুরী, ফারুক হাসান, সৈয়দ খালেদুল আনোয়ার, উৎপল কান্তি বড়ুয়া, আবুল কালাম বেলাল, জিন্নাহ চৌধুরী, আরিফ চৌধুরী, ওবায়দুল সমীর, সুপ্রতীম বড়ুয়া, বাসুদেব খাস্তগীর, সাইমন নজরুল, আখতারুল ইসলাম, সনজিৎ দে, নাসিমা আক্তার মুক্তা, রাসু বড়ুয়া, সাইফুল্লাহ কায়সার, প্রদ্যোত কুমার বড়ুয়া, ছালাম সৌরভ, অভিক ওসমান প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন কবি আরিফ চৌধুরী শিশুর কল্পনার দীপ্তি থেকে শিশুসাহিত্য সৃষ্টি হয়; শৈশব-কৈশোরের স্বপ্ন-স্বাদ ও আকাংখার জগতকে সংস্কৃতি কল্পনার রঙে চিত্রায়িত করে থাকেন। শিশুদের মনকে উদ্দীপ্ত করা ও তাদের স্বপ্নের ডানা মেলে কল্পনায় উড়তে শেখানো শিশুসাহিত্যিক ও সংস্কৃতিকর্মীদের কাজ। শিশুরা স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে আর শিশুসাহিত্যিক ও সংস্কৃতিকর্মীরাই পারেন তাদের স্বপ্ন দেখাতে। ১৯৯৯সন হতে প্রতিবছর কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট শিশুসাহিত্যে অবদানের জন্য গুণীজনদের ’কিডস শিশুসাহিত্য পদক’ প্রদান করে। এ বছর ’কিড্‌স শিশুসাহিত্য পদক’ অর্জন করেছেন শিশুসাহিত্যিক আনজীর লিটন ও চিত্রশিল্পী মোমিন উদ্দিন খালেদ।
সন্ধ্যে নামতেই হাজারো শিশুর জটলা। কিছুক্ষণ পর ঝলকে ওঠে আলো। হিমেল বাতাসের আলতো আদরে গোটা আকাশটা রঙিন হয়ে উঠেছিলো ফানুসে। ফানুসের আলোয় আলোকিত কোমলমতি শিশুরা। চাঁদের হাট বসে নবীন প্রবীন প্রাক্তন প্রশিক্ষক আর শিক্ষার্থীদের। প্রাক্তন শিক্ষক ও শিক্ষার্থী মিলনমেলা পর্বে উৎসব সম্মাননাপ্রাপ্ত বিশেষ ব্যাক্তিত্ব বিশিষ্ট অভিনেতা্ব আফজাল হোসেনকে উৎসব সম্মাননা স্মারক তুলে দেন উৎসবের প্রধান অতিথি দৈনিক আজাদীর সম্পাদক এম এ মালেক। অনুভূতি প্রকাশকালে আফজাল হোসেন বলেন ‘কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট বিশাল জীবন সমুদ্রে ছোট্ট ঝলমলে একটা জাহাজের মতো।জীবন নামের অকূল সমুদ্দুরে হাবুডুবু খাওয়া ছেলেমেয়েরা সেই জাহাজে চড়ে পরম মমতায় পৌঁছে যেতে পারে সবুজ তীরে। যেখানে প্রজাপতি আর পাখিদের সঙ্গে কন্ঠমিলিয়ে শিশুরা গান গায় খেলা করে দেবদূতের মতো। সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করে প্রতিভাবিকাশের মাধ্যমে শিশুর বুদ্ধিবৃত্তিক বিকাশে কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট অনন্য ভূমিকা পালন করেছে। প্রাক্তন কৃতি শিক্ষার্থী ডা. অর্পিতা বড়ুয়া, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক আদনান মান্নান, অভিনেত্রী ও উপস্থাপক আঁখি মজুমদার, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক মিসকাতুল মমতাজ মুমু, অভিনেতা মুবিদুর রহমান সুজাত, অভিনেত্রী প্রিয়ম জুয়াইরিয়া, মিডিয়া কর্মী রাফা নানজীবা তোরসা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মার্কস অল রাউন্ডার রবিউল হোসেন রবিন, সাকলাইন, অমৃক দাশ গুপ্ত এর সাফল্য প্রমাণ করেছে সংস্কৃতি শিক্ষাকে ঋদ্ধ ও শাণিত করে।’
মিলনমেলা পর্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উৎসব সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করেন ইঞ্জিনিয়ার দেলওয়ার হোসেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য, খেলাঘর, কেন্দ্রীয় কমিটি, জনাব মো: আব্দুল মান্নান ,এসিসটেন্ট কমিশনার অব কাস্টমস, উম্মে হাবিবা আঁখি, মূখপাত্র বাংলার মূখ। প্রাক্তন প্রশিক্ষক হিসেবে উৎসব সম্মাননা স্মারক গ্রহন করেন অভিনয় প্রশিক্ষক তাপস শেখর, অসীম দাস, বাপ্পা চৌধুরী, মঈন উদ্দিন কোহেল, হাসান জাহাঙ্গীর, প্রাক্তন নৃত্যশিল্পী সোমাবোস, অনন্য বড়ুয়া, স্বপন বড়ুয়া, তরুন চক্রবর্তী , ফজল আমিন শাওন ও তন্ময় বড়ুয়া, প্রাক্তন সংগীতশিল্পী হিসেবে সম্মাননা গ্রহন করেন জাহাঙ্গীর আজিজ ও ঝুলন দত্ত , প্রাক্তন সংগঠক হিসেবে সম্মাননা গ্রহন করেন হাসিনা মান্নান, সালমা জাহান মিলি ও শারমিন আক্তার।

আন্ত: শিশুবান্ধব স্কুল সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা পর্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাহাঙ্গীর কবির, সহ-সভাপতি, জেলা শিল্পকলা একাডেমী, চট্টগ্রাম. প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ আমানুর রহমান খাঁন, উপ -আঞ্চলিক পরিচালক, বাংলাদেশ বেতার,বিশেষ আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড.মো: কামাল উদ্দিন , অধ্যক্ষ, চট্টগ্রাম রেসিডেন্সিয়াল স্কুল ,জারেকা বেগম, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক, অপর্ণাচরণ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও রাফিয়া খাতুন, বন্দর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। আন্ত: শিশুবান্ধব স্কুল সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় ফ্রোবেল একাডেমি, ফ্রোবেল স্কুল, উইলিয়াম কেরী একাডেমী, রেডিয়েন্ট স্কুল এন্ড কলেজ, সাইডার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, বাংলাদেশ মহিলা সমিতি বালিকা বিদ্যালয়, সেন্টস্কলাসটিকাস গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ, সিলভার বেলস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, অপর্ণচরণ বালিকা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, বন্দর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ ও বাংলাদেশ পাবলিক স্কুল।
কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট এর অন্যান্য পরিবেশনার মধ্যে ছিলো পরিবেশনায় জাদুশিল্পী আমিনুল ইসলাম পরিচালিত ম্যাজিক, ফ্যাশন কোরিওগ্রাফার লিটন দাশ লিটু পরিচালিত ফ্যাশন শো, নাটক-কাকতাড়ুয়া রচনা সৌরভ শাখাওয়াত, নির্দেশনা জিএম হিরো, সহনির্দেশনা আঁখি মজুমদার ও কিড্‌স কালচারাল ইন্সটিটিউট প্রযোজিত চলচ্চিত্র প্রদর্শনী : উড়াল পাখি রচনা : সৌরভ শাখাওয়াত ও পরিচালনা : দেবাংশু হোর।
প্রাক্তন প্রশিক্ষকমণ্ডলীর পরিচালনায় সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় ছিলো- নাট্যনির্দেশক বাপ্পা চেীধুরী পরিচালিত বিটা পাপেটদল পরিবেশিত পাপেট শো -ম্যমনা, সংগীত শিল্পী ঝুলন দত্ত পরিচালিত ও কাপ্তাই সাংস্কৃতিক একাডেমি পরিবেশিত জারীগান ও যন্ত্র সংগীত পরিবেশনা, নৃত্য প্রশিক্ষক সোমা বোস পরিচালিত শিশু একাডেমীর নৃত্য পরিবেশনা, নৃত্য প্রশিক্ষক অনন্য বড়ুয়া পরিচালিত প্রাপন একাডেমির নৃত্য পরিবেশনা, নৃত্য প্রশিক্ষক স্বপন বড়ুয়া পরিচালিত সঞ্চারী নৃত্যকলা একাডেমি, নৃত্য প্রশিক্ষক তরুন চক্‌্রবর্তী পরিচালিত দি ক্লাসিক্যাল এন্ড ফোক ডান্স পরিবেশিত নৃত্য পরিবেশনা, নৃত্য প্রশিক্ষক ফজল আমিন শাওন পরিচালিত চারুতা সংগীত একাডেমি, নৃত্য প্রশিক্ষক তন্ময় বড়ুয়ার পরিচালনায় নৃত্যরং পরিবেশিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রবীর পাল পরিচালিত মমতা কালচারাল ইন্সটিটিউট পরিবেশনা, সুস্মিতা কর পরিচালিত দ্বীপশিখা খেলাঘর পরিবেশনা, ওটু স্ট্রিট ডান্স ক্‌্রু পরিবিশিত আধুনিক নৃত্য।
আকাশে জ্বল জ্বল করছে সন্ধ্যাতারা। আনন্দ বার্তা নিয়ে ফানুস উড়ে যাচ্ছে শিশুস্বর্গে যেখানে কোন শাসন নেই, বারণ নেই আছে পাখির মতো ওড়া আর ফুল হয়ে ফোটর অনিন্দ্য সুন্দর হাতছানী। ৩রা নভেম্বর জেল হত্যা দিবসে শহীদ স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করে সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। এ পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আ জ ম নাসির উদ্দিন মেয়র, সিটি কর্পোরেশন, চট্টগাম; গিয়াস উদ্দিন, কাউন্সিলর, সিটি কর্পোরেশন চট্টগ্রাম, সাইফুল আলম বাবু, সাধারণ সম্পাদক, জেলা শিল্পকলা একাডেমি, চট্টগ্রাম, রোটারিয়ান রিজোয়ান সাঈদী, জোনাল কোঅর্ডিনেটর কর্ণফুলি জোন, রোটারি ডিস্ট্রিক্ট ৩২৮২, বাংলাদেশ, রোটারিয়ান মোহাম্মদ ওমর আলী ফয়সাল, ডেপুটি গভর্নর, রোটারি ডিস্ট্রিক্ট৩২৮২, বাংলাদেশ, রোটারিয়ান মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম নান্টু, এসিটেন্ট গভর্নর, রোটারি ডিস্ট্রিক্ট৩২৮২ বাংলাদেশ, সভাপতিত্ব করেন কাউন্সিলর রোটারিয়ান আন্‌জুমান আরা বেগম, সভাপতি, রোটারি ক্লাব অব রিভাররাইন হালদা। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন আমিনুল ইসলাম, মহাসচিব, শিশু উৎসব ও মিলন মেলা।
শেষে ছোটদের সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, যেমন খুশি তেমন সাজো, মক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ বিষয়ক কুইজ ও আন্ত; শিশুবান্ধব স্কুল সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
আন্ত;শিশুবান্ধব স্কুল সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় প্রথম ফ্রোবেল স্কুল, দ্বিতীয় অপর্ণাচরণ উচ্চ বালিক বিদ্যালয় ও তৃতীয় সাইডার ইন্টা: স্কুল কিড্‌স ট্যালেন্ট অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করে।
উৎসবের পৃষ্টপোষকতায় ছিলো ভারতীয় সহকারী হা্‌ই কমিশন,ইষ্পাহানী মীর্জাপুর চা লি:, কনফিডেন্স সিমেন্ট লি: ও রোটারি ক্লাব রিভারাইন হালদা। পোশাক সহযোগিতায় ছিলো রওশন বুটিক, সাজ সজ্জায় ছিলো নির্ভানা বিউটি পার্লার। সমগ্র অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন বাচিক শিল্পী দিলরুবা খানম , আঁখি মজুমদার ও শুভাশীষ শুভ।

x