কাহিনিচিত্র ভূমিকম্পের পরে মুক্তি পাচ্ছে ২৬ জুলাই

মঙ্গলবার , ২৪ জুলাই, ২০১৮ at ৫:৫১ পূর্বাহ্ণ
59

তুচ্ছ একটি বিষয় অনেক সময় সুন্দর একটা সম্পর্কের ভাঙনের সৃষ্টি করতে পারে। এর ফলে সৃষ্ট অহেতুক সন্দেহ স্বাভাবিক জীবনে এমন কিছু টানাপোড়েন তৈরি করে যার ফলে মনের কোণে জমে থাকা অনেক ক্ষোভ, হতাশা আকস্মিকভাবে প্রকাশ হয়ে পড়ে। যা জীবনকে জটিল করে তোলে। এই বিষয়বস্তুকে অবলম্বন করে চমৎকার একটি ছোটগল্প রচিত হয়েছিল ১৯৯০ এর দশকে। গল্পটি লিখেছিলেন কলকাতার প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক মৃদুলকান্তি দে। গল্পটি প্রকাশিত হয় আনন্দবাজার পত্রিকায় ১৯৯৫ সালে এবং সে বছরের শ্রেষ্ঠ ছোটগল্প হিসেবে এই গল্প আনন্দবাজার সাহিত্য পুরস্কার অর্জন করে।

সাড়া জাগানো এই ছোটগল্প অবলম্বনে চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করেছেন শৈবাল চৌধূরী। ছবির কাহিনী বিন্যাস, চিত্রনাট্য রচনা ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন তিনি। একটি ভূমিকম্পকে কেন্দ্র করে একদিন সন্ধ্যা থেকে পরদিন সকাল পর্যন্ত ছবিটি চিত্রিত হয়েছে। শৈবাল চৌধূরী জাতীয় পর্যায়ে স্বনামখ্যাত চলচ্চিত্রকর্মী। চলচ্চিত্র সংসদ চর্চায় অবদানের জন্য বাংলাদেশের চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের সূবর্ণ জয়ন্তী স্মারক সম্মাননা ২০১৪ ও শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা ২০১৬ পেয়েছেন। এই পর্যন্ত তিনি নির্মাণ করেছেন ৫টি প্রামাণ্য চলচ্চিত্র। ‘ভূমিকম্পের পরে’ তার প্রথম কাহিনিচিত্র।

ভূমিকম্পের পরে’ চলচ্চিত্রের প্রধান তিনটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন আফরোজা নীরু, বিশ্বজিৎ সেনগুপ্ত ও কংকন দাশ। অন্যান্য চরিত্রে রয়েছেন দেবাশীষ রায়, শহীদুল ইসলাম অলি, নিশিগন্ধা দাশগুপ্তা, আহমেদ ওয়াহিদ সালমান। ছবির চিত্রগ্রহণ করেছেন মোরশেদ হিমাদ্রী হিমু এবং সম্পাদনা করেছেন এম এম আর সজীব। ছবিটি প্রযোজনা করেছেন সুর্বণরেখা পিকচার্স এবং পরিবেশনায় রয়েছে চট্টগ্রাম চলচ্চিত্র কেন্দ্র। আগামী ২৬ জুলাই চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে ‘ভূমিকম্পের পরে’র উদ্বোধনী প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে। এরপর ছবিটি ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শহরে প্রদর্শিত হবে। বিধান বড়ুয়ার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গল্পকার মৃদুল কান্তি দেসহ উপস্থিত থাকবেন বেগম মুশতারী শফী, আবুল মোমেন, আনোয়ার হোসেন পিন্টু ও ওমর কায়সার।বিনোদন ডেস্ক

x