কাল থেকে সিলভার স্ক্রিনে চলবে জয়ার ‘বিসর্জন’

বৃহস্পতিবার , ৩ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:৪৯ পূর্বাহ্ণ
50

‘বিসর্জন’ ছবিটি দিয়ে ভারতের চলচ্চিত্র সমালোচক আর দর্শকের কাছে দারুণ প্রশংসা পান বাংলাদেশের জয়া আহসান। এই ছবির জন্য অর্জন করেন ভারতের জি-সিনে অ্যাওয়ার্ডস আর জিও ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার।
জি-সিনে অ্যাওয়ার্ড ও ফিল্মফেয়ার পুরস্কার ছাড়া জয়া অভিনীত ‘বিসর্জন’ ছবিটি তাঁকে এনে দেয় যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসে অনুষ্ঠিত তৃতীয় ক্যালেডোস্কোপ ইন্ডিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সেরা অভিনেত্রী আর ইন্টারন্যাশনাল বেঙ্গলি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডসে (আইবিএফএ) সমালোচক বিভাগে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার। ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে সেরা বাংলা ছবি হয়েছে ‘বিসর্জন’। সম্পূর্ণ ভিন্নধর্মী এক চিন্তা নিয়ে সিনেমাটি নির্মিত। বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্ত সংলগ্ন একটি বাংলাদেশি এলাকায় চোরাকারবারি একজন ভারতীয় মুসলমান নাগরিক নাসের নদীর পানিতে ভেসে চলে আসেন। পরে তার প্রাণরক্ষা করেন পদ্মা নামের একজন হিন্দু বিধবা মহিলা। সে তাকে তার বাড়িতে আশ্রয় দেয় এবং তাদের মধ্যে সৃষ্টি হয় এক অন্যরকম প্রেমের সম্পর্কের।
আপাত দৃষ্টিতে গনেশ মন্ডলকে খল চরিত্রের মনে হলেও সিনেমাটি শেষে গনেশ মন্ডলই এই সিনেমার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন দর্শকদের মনে। এই লোকটি শুধু ভদ্রলোকই নন একজন প্রকৃত প্রেমিকও বটে! নাসের পদ্মার রোমান্টিসিজম কে ই মনে হচ্ছে এতে মূখ্য করে দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে এবং সেটাই কাহিনীর মূল ভিত্তি। পদ্মার সহায়তায় এবং গনেশের চেষ্টায় নাসের পরে ভারতে চলে যায় ঠিকই কিন্তু পদ্মাকে দিয়ে যায় ভালবাসার এক ভিন্নধর্মী উপহার। এই ছবিতে জয়ার চরিত্রের নাম ‘পদ্মা’। ইছামতীর পাড়ে বাংলাদেশের এক গ্রামের এক হিন্দু বিধবা তিনি। তাঁর জীবনের লড়াই নিয়েই গল্পটা। আর নাসের চরিত্রে আবীর চক্রবর্তী ও গনেশের চরিত্রে পরিচালক স্বয়ং কৌশিক গাঙ্গুলী অভিনয় করেছেন। মুভিটি শুক্রবার থেকে সিলভার স্ক্রিন সিনেপ্লেঙের প্লাটিনাম ও টাইটানিয়াম থিয়েটারে চলবে। মুভিটির অগ্রিম টিকেট সিলভার স্ক্রিনের কাউন্টার থেকে পাওয়া যাবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x