কালো ব্যাজ ধারণ করে সাংবাদিকদের প্রতিবাদ

সংহতি জানালেন বিদেশিরাও

বৃহস্পতিবার , ১২ জুলাই, ২০১৮ at ৬:২৯ পূর্বাহ্ণ
142

চট্টগ্রামের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে শিশু রাফিদা খান রাইফার মৃত্যুর ঘটনায় জড়িতদের বিচারের দাবিতে কালো ব্যাজ ধারণ করে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন চট্টগ্রামের সাংবাদিকরা। গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের পিএইচপি ভিআইপি লাউঞ্জে কালো ব্যাজ ধারণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল। পরে চট্টগ্রামের সকল গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা কালো ব্যাজ ধারণ করে প্রতিবাদ কর্মসূচিতে একাত্মতা ঘোষণা করেন।

এদিকে, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) ঘোষিত আন্দোলন কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে কালো ব্যাজ ধারণ করেন বিভিন্ন দেশ থেকে আসা বেশ কয়েকজন বিদেশি সাংবাদিকও। চট্টগ্রামের একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক একটি কর্মশালায় অংশ নিতে তারা চট্টগ্রামে এসেছেন। এমন ঘটনায় তারা দুঃখ প্রকাশ করেন। এসময় ব্রিটিশ ডেইলি গার্ডিয়ানের সিনিয়র সাংবাদিক ক্রিস স্ট্যাফেন বেশ কয়েকজন বিদেশী সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

কালো ব্যাজ কর্মসূচির উদ্বোধনে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে অন্যান্যদের মধ্যে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের আপ্যায়ন সম্পাদক রোকসারুল ইসলাম, চট্টগ্রাম হাউজিং সোসাইটির পরিচালক মহসিন কাজী, সিইউজের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আহমেদ কুতুব, প্রিয় চট্টগ্রাম ইউনিট প্রধান বিশু রায় চৌধুরীসহ চট্টগ্রামের গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনের পর প্রত্যেক গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা কালো ব্যাজ ধারণ করেন।

কর্মসূচি প্রসঙ্গে সাংবাদিক নেতারা বলেন, রাইফা হত্যার বিচারের দাবিতে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন অভিযুক্ত চিকিৎসকদের বিচার, অবৈধ অনুমোদনহীন ম্যাঙ হাসপাতাল বন্ধ ও সাংবাদিকদের সঙ্গে অশোভন আচরণকারী ডা. ফয়সল ইকবালের সনদ বাতিল ও জাতির কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ারদাবিতে রাজপথে সোচ্চার রয়েছে। এই তিন দাবি বাস্তবায়ন করেই চট্টগ্রামের সাংবাদিকজনতা ঘরে ফিরে যাবে। রাইফার মৃত্যুকে নিয়ে কোনো ধরনের ষড়যন্ত্র হলে তা কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে। নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা রাইফার মৃত্যুর সাথে জড়িতদের কঠোর শাস্তি কামনা করছি। দাবি আদায় না হলে চট্টগ্রামের সাংবাদিকজনতা কঠোর আন্দোলনে যাবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন নেতৃবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

Advertisement