কাপ্তাইয়ে ৮২ গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা, জব্দ ৬টি

কাপ্তাই প্রতিনিধি

শুক্রবার , ১০ আগস্ট, ২০১৮ at ৭:৩৩ পূর্বাহ্ণ
4

ট্রাফিক সপ্তাহ চলছে। কাপ্তাই উপজেলায়ও ট্রাফিক সপ্তাহ পালিত হচ্ছে। কাপ্তাইয়ে গত ৪ দিনে ৮২টি যান বাহনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এছাড়াও ৬টি গাড়ি আটক করা হয় বলে জানা গেছে। কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ১ম শ্রেণীর ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মাদ রুহুল আমিন অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় তাঁকে সহযোগিতা করেন কাপ্তাই নৌ রোভার স্কাউটের ১৯ জন সদস্য এবং কাপ্তাই থানা পুলিশ বাহিনী। অভিযান পরিচালনার সময় উপস্থিত ছিলেন ট্রাফিক সার্জেন্ট তারক চন্দ্র পাল, এস আই জয়নাল আবেদীন এবং কাপ্তাই নৌ রোভার লিডার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম।

মটরযান অধ্যাদেশ ১৯৮৩ এর বিভিন্ন ধারায় এই মামলা করা হয় বলে জানা গেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মাদ রুহুল আমিন মামলা পরিচালনা করার কথা স্বীকার করে বলেন, গত ৫ আগষ্ট থেকে কাপ্তাই মহাসড়কের বরইছড়ি, শীলছড়ি, প্রশান্তি, কাপ্তাই নতুন বাজার, রেশম বাগান, কেপিএম গেইটসহ বিভিন্ন স্থানে যানবাহন তল্লাশী করা হয়। সিএনজি অটো রিঙা, মোটর সাইকেল, প্রাইভেট কার, বাস, ট্রাকসহ বিভিন্ন যান বাহনে তল্লাশী চালানো হয়। এসময় গাড়ির ফিটনেস লাইসেন্স, ট্রাফিক লাইসেন্স, রেজিস্ট্রেশন লাইসেন্স, রোড পারমিটসহ বিধিমালা পরীক্ষা করা হয়। ৫ আগষ্ট ২২টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা হয়। ৬ আগষ্ট মামলা হয় ১৪টি, ৭ আগষ্ট মামলা হয় ২৮টি গাড়ি এবং গত ৮ আগষ্ট মামলা হয় ১৮টি যান বাহনের বিরুদ্ধে।

যেসব গাড়ির চালক প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে পারেননি এরকম ৮২টি গাড়ির বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা এবং আর্থিক জরিমানা করা হয়। এছাড়াও কোন ধরনের কাগজ পত্র দেখাতে না পারায় ৪টি মোটর সাইকেল ও ২টি সিএনজি অটো রিঙা আটক করে কাপ্তাই থানা হেফাজতে দেওয়া হয়। মামলা খাওয়া এবং আটক গাড়ির মালিক রাঙ্গামাটি ট্রাফিক অফিসে গিয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র হালনাগাদ করে নিয়ম মাফিক থানা থেকে গাড়ি ছাড়িয়ে নিতে পারবেন বলেও উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন জানান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, আগে মামলা খাওয়া অনেক গাড়ি মামলার কাগজ নিয়ে সড়কে চলাচল করছিল। এ ধরনের কোন গাড়িকে রাস্তায় চলাচল করতে দেওয়া হয়নি। তারা বিআরটিএ অফিস থেকে গাড়ির কাগজ হালনাগাদ করার পর পুনরায় সড়কে গাড়ি চালাতে পারবেন। ইউএনও বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা এবং সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য চলমান ট্রাফিক সপ্তাহ শেষ হবার পরও এধরনের অভিযান চলমান থাকবে।

x