কক্সবাজার ও রামুতে উন্নয়নের চমক দেখাতে চাই : এমপি কমল

২ কোটি ৬০ লাখ টাকা বরাদ্দ

রামু প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার , ১৮ জুলাই, ২০১৯ at ৫:০১ পূর্বাহ্ণ
19

কক্সবাজার-৩ আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমলের বিশেষ বরাদ্দ থেকে ২ কোটি ৬০ লক্ষ টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ প্রদান করা হয়েছে। কক্সবাজার সদর ও রামু উপজেলার বিভিন্ন ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংস্কার, ভাস্কর্য প্রতিষ্ঠা, সামাজিক সংগঠন, গ্রামীণ জনপদের উন্নয়নে গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণের আওতায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ের মাধ্যমে এ বরাদ্দ প্রদান করা হয়।
এ উপলক্ষে গত রবিবার রামু উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চেক বিতরণ করেন কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল।
এসময় প্রধান অতিথি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত উন্নত বাংলাদেশ গড়তে সামনের দিনগুলোতে চেলেঞ্জ মোকাবিলা করে আমরা কক্সবাজার সদর ও রামু উপজেলার জনগণকে উন্নয়নের চমক দেখাতে চাই। তিনি বলেন, গ্রামের কাঙ্খিত উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে উন্নত গ্রামীন যোগাযোগ ব্যবস্থার ভূমিকা সবচেয়ে বেশী। সে সাথে এলাকার ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সামাজিক উন্নয়নের গুরুত্ব অপরিসীম। গ্রামীণ অবকাঠামোর উন্নয়নে প্রকল্পগুলো যথাসময়ে বাস্তবায়ন হলে গ্রামীণ জীবনযাত্রায় নতুন গতি সঞ্চার করবে, কারণ প্রকল্পগুলো গ্রামের প্রান্তিক জনগণের স্বার্থের সাথে জড়িত। এমপি কমল প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির নেতৃবৃন্দকে যথাসময়ে সঠিকভাবে উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করার আহবান জানান।
রামু উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) চাই থোইহ্লা চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রকল্পের চেক প্রদান অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রামু উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ ফরহাদ হোসেন। রামু উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আয়োজনে রামু খুনিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ, উপজেলা প্রকৌশল অফিসের সহকারী প্রকৌশলী আলা উদ্দিন, রামু উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া, স্বেচ্ছাসেবক লীগ যুগ্ম সম্পাদক আবু বক্কর ছিদ্দিক প্রমুখ নেতৃবৃন্দ এবং উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সুত্রে জানা যায়, গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টিআর) প্রকল্পের আওতায় কঙবাজার সদর ও রামু উপজেলায় ৫৩ লক্ষ টাকা এবং গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিখা) প্রকল্পের আওতায় ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকা এবং উভয় উপজেলার গ্রামীন জনপদ আলোকিত করতে ১ কোটি ৫ লক্ষ টাকা মূল্যের সোলার স্ট্রিট লাইটসহ উভয় উপজেলায় ২ কোটি ৬০ লক্ষ টাকার অধিক উন্নয়ন প্রকল্প বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

x