ওয়ার্ড কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে চসিক পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তাকে মারধরের অভিযোগ

আজাদী প্রতিবেদন

বৃহস্পতিবার , ১৪ মার্চ, ২০১৯ at ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ
25

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মো. মোরশেদুল আলমকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ৩৪ নম্বর পাথরঘাটা ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইসমাইল হোসেন বালির বিরুদ্ধে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে মারধরের শিকার হয়েছেন বলে দাবি করেছেন ওই পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা। এ বিষয়ে তিনি মেয়রের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অবশ্য মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন কাউন্সিলর ইসমাইল হোসেন বালি।
এদিকে মারধরের প্রতিবাদে আজ সকাল ১০টায় নগর ভবনে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন শ্রমিক কর্মচারী লীগ (সিবিএ)। মারধরের শিকার পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক।
এদিকে মেয়রের কাছে দেয়া লিখিত অভিযোগে পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মো. মোরশেদুল আলম দাবি করেছেন, সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে তিনি প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তার কক্ষে বসে কথা বলছিলেন। এসময় ইসমাইল হোসেন বালি সেখানে ঢুকে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। প্রতিবাদ না করে স্থান ত্যাগ করার সময় কাউন্সিলর তার পেছনে এসে তার গায়ে হাত তোলেন এবং লাথি মারেন বলেও লিখিত অভিযোগে দাবি করা হয়। একপর্যায়ে কাউন্সিলর তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেন বলেও দাবি করেন পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসমাইল হোসেন বালি দৈনিক আজাদীকে বলেন, ‘সেখানে তো সিসি ক্যামেরা আছে। তা দেখলেই তো হয়। আমি মারতে যাব কেন? তার সঙ্গে তো আমার কোন সমস্যা নাই। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ।’
পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম দৈনিক আজাদীকে বলেন, ‘জলাবদ্ধতা নিরসনে নালা-নর্দমা পরিষ্কারে আমাদের ক্রাশ প্রোগ্রাম চলছে। মেয়রের নির্দেশে সেখানে আমরা অস্থায়ী শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করাচ্ছি। কারণ, স্থায়ী শ্রমিকরা বন্ধের দিনে কাজ করবেন না। কিন্তু আমাদের প্রোগ্রাম প্রতিদিন চলবে। বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে আমরা অস্থায়ী শ্রমিক নিয়ে কাজ করছি। সব ওয়ার্ড থেকে অস্থায়ী শ্রমিক পাওয়া গেলেও কাউন্সিলর ইসমাইল হোসেন বালি সাহেব পাঠিয়েছেন স্থায়ী শ্রমিক। আমি টেলিফোন করে মেয়র মহোদয়ের নির্দেশনার কথা জানিয়ে ঊনাকে অস্থায়ী শ্রমিক দেওয়ার কথা বললে ঊনি রেগে যান।’ এ ঘটনার জের ধরেই কাউন্সিলর মারধর করেছেন বলে তিনি দাবি করেছেন।

x