এশিয়ান গেমস ফুটবলে নতুন ইতিহাস বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সোমবার , ২০ আগস্ট, ২০১৮ at ৭:১৬ পূর্বাহ্ণ
58

বাংলাদেশের ফুটবল দল কখন কোন সুখবর এনে দিয়েছিল তা হয়তো এখন আর মনে নেই কারোই। কারণ বাংলাদেশ ফুটবল দল মানে হতাশা আর লজ্জা। একের পর এক ব্যর্থতায় দেশের জনপ্রিয় এই খেলাটি এখন একেবারে জনপ্রিয়তার তলানিতে। ফুটবল বলতেই এখন মুখ ফিরিয়ে নেয় দর্শকরা। এবারের এশিয়ান গেমসেও ফুটবল দলের কোন লক্ষ্য ছিলনা। যা ছিল তা হচ্ছে সাফ ফুটবল এবং বঙ্গবন্ধু কাপের প্রস্তুতি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হতাশার মাঝেও হঠাৎ আলোর ঝলকানির মত সুখবর এলো ফুটবল থেকে। এশিয়ান গেমস ফুটবলে নতুন ইতিহাস গড়ল বাংলাদেশ। তাও আবার কাতারের মত ফুটবল পরাশক্তিকে হারিয়ে। হঠাৎ করেই জেগে উঠা সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে এশিয়ান গেমস ফুটবলের নক আউট পর্বে বাংলাদেশ। যা এই গেমসের ইতিহাসে প্রথমবার করে দেখাল জেমি ডে এর দল। ফিফা র‌্যাংকিংয়ে কাতার যেখানে ৯৮তম সেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ১৯৪তম । র‌্যাংকিংয়ে অনেক পিছিয়ে থাকলেও শেষ পর্যন্ত কাতারকে হারিয়ে শেষ ষোলতে জায়গা করে নেয় বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে জামাল ভূইয়ার গোলে কাতারকে ১০ ব্যবধানে হারিয়ে নক আউট পর্ব নিশ্চিত করে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব২৩ ফুটবল দল।

এশিয়ান গেমস ফুটবলে কখনও দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠা হয়নি বাংলাদেশের। অথচ নিজেদের প্রথম ম্যাচে ৩০ গোলে উজবেকিস্তানের বিপক্ষে হেরে আসর শুরু করেছিল বাংলাদেশ। তবে দ্বিতীয় ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়ায় লালসবুজ জার্সি ধারীরা। এগিয়ে থেকেও সে ম্যাচে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে জেতা হয়নি জামালদের। ১১ গোলে ড্র হয় ম্যাচটি। আর তাতেই জেগে উঠে পরের রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা। শেষ পর্যন্ত পরের রাউন্ড নিশ্চিত করে বাংলাদেশ গতকাল। এবারের এশিয়ান গেমসের প্রথম দিনে সবকটি ইভেন্টেই বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদরা ছিল ব্যর্থ। আর এতসব ব্যর্থতার মাঝে ফুটবল দিল সবচাইতে বড় সুখবরটি। এর আগে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে এএফসি অনূর্ধ্ব১৬ ফুটবলে কাতারকে ২০ গোলে হারানোর রেকর্ড ছিল বাংলাদেশের দখলে। এবারও কাতারকে হারিয়েই নতুন রেকর্ড গড়লো বাংলাদেশ। অবশ্য খেলার শুরু থেকেই বল নিয়ন্ত্রণে রেখে একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে কাতার। অন্যদিকে প্রথমার্ধে খুব একটা আক্রমণ করতে পারেনি কোচ জেমি ডে’র দল বাংলাদেশ। শুরু থেকেই বেশকটি সুযোগও মিলেছে কাতারের। ম্যাচের ২১ মিনিটে ডিবক্সের বাইরে ফ্রিকিক পায় কাতার। ফ্রিকিক থেকে আলসাদির নেয়া দুর্দান্ত শট থামিয়ে দেন বাংলাদেশের গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা। ম্যাচের ২৭ মিনিটে আবারও সুযোগ পেয়েছিল কাতার। তবে লক্ষ্যহীন শট নিয়ে সেই সুযোগ নষ্ট করেন মেশাল আলশামারি। এরপর আক্রমণ আরো জোরালো হয় কাতারের। আর তাতেই ম্যাচের ৩৬ মিনিটে গোলের দারুণ সুযোগ পেয়েছিল তারা। তবে সতীর্থের কাছ থেকে আসা বল পেলেও লক্ষ্যহীন শট খেলেন হাতিম হাসানিন। একের পর এক আক্রমণ করেও গোল না হওয়ায় হতাশা নিয়েই গোলশূন্য থেকে বিরতিতে যায় কাতার।

বিরতির পর লড়াইয়ে ফেরার চেষ্টা করে বাংলাদেশ। ধীরে ধীরে নিজেদের গুছিয়ে আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করে। যদিও এ অর্ধেও এগিয়ে যাওয়ার প্রথম সুযোগটা এসেছিল সেই কাতারের সামনে। ম্যাচের ৬০ মিনিটে ডিবক্সের বাইরে থেকে হাজেম শেহাতার জোরালো শট পোস্টের ওপর দিয়ে চলে গেলে সে যাত্রায়ও হতাশ হতে হয় ২০২২ বিশ্বকাপ আয়োজন দেশটিকে। ম্যাচের ৬৫ মিনিটে ভাল একটি সুযোগ পেয়েছিল বাংলাদেশের বিপলো আহমেদ। ডিবক্সে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের কাটিয়ে ডান পায়ে জোরালো শট নেন তিনি। তবে তার দুর্দান্ত শট থামিয়ে দেন কাতার গোলরক্ষক। এক মিনিট পর মাহবুবুর রহমানকে উঠিয়ে বদলি হিসেবে মাসুক মিয়া জনিকে মাঠে নামান কোচ জেমি ডে। ম্যাচের ৭৪ মিনিটে আরেকটি ভাল সুযোগ পেয়েছিলেন বিপলো। তবে ডিবক্সে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে বল মাঠের বাইরে চলে গেলে সে সুযো্‌গও কাজে আসেনি। তাহলে কি এ ম্যাচও ড্র হচ্ছে। নক আউট পর্বে যাওয়ার স্বপ্ন কি তাহলে অধরাই থেকে যাবে? তেমনটি যখন ভাবছিল সবাই, ঠিক তখনই লালসবুজ শিবিরকে উল্লাসে মাতান অধিনায়ক জামাল ভুইয়া। অতিরিক্ত সময়ে দারুণ এক গোল করেন জামাল ভূইয়া। আর তাতেই জয় দিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। সে সাথে প্রথমবারের মত এশিয়ান গেমস ফুটবলের নক আউট পর্বে গেল বাংলাদেশ।

বাংলাদেশকাতার ম্যাচের আগে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ‘বি’ গ্রুপের সেরা হয়ে নকআউটের টিকিট কাটে প্রথম দুই ম্যাচ জেতা উজবেকিস্তান। গ্রুপের শেষ ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ টানা দুটি ড্র করা থাইল্যান্ড। বাংলাদেশ ও কাতারের বিপক্ষে ড্র করে দুই ম্যাচ থেকে থাইল্যান্ড আদায় করে একটি করে পয়েন্ট। আর ৬ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে উজবেকরা।

x