একাদশে ভর্তির প্রথম মেধা তালিকা প্রকাশ

১৮ জুনের মধ্যেই ভর্তি নিশ্চায়ন করতে হবে মনোনীতদের

আজাদী প্রতিবেদন

সোমবার , ১০ জুন, ২০১৯ at ১০:১৯ পূর্বাহ্ণ
637

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম মেধা তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। গতকাল রোববার রাত ৯টায় এ তালিকা প্রকাশ করেছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি। ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইট (www.xiclassadmission.gov.bd) এ ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে। ওয়েবসাইটে আবেদনকারীর রোল নম্বর, বোর্ড, পাসের সাল ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর দিয়েই ফলাফল জানতে হবে শিক্ষার্থীদের। এছাড়া ওয়েবসাইটে ফল প্রকাশের পর মুঠোফোনের এসএমএস-এর মাধ্যমেও মনোনীত শিক্ষার্থীদের কাছে ফলাফল পৌঁছে যাওয়ার কথা।
তবে মেধা তালিকায় ঠাঁই পেলেই কলেজে ভর্তি নিশ্চিত নয়। ভর্তি নিশ্চিত করতে হলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে আরো কিছু প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। নয়তো মেধা তালিকায় স্থান পাওয়ার পরও সুযোগ হারাতে হতে পারে কাঙ্ক্ষিত কলেজে ভর্তির। এমনকি বাতিল হতে পারে আবেদনও। সে কথাই বলা আছে একাদশ শ্রেণির ভর্তি নির্দেশনায়। ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে (www.xiclassadmission.gov.bd) এ নির্দেশনা দেয়া আছে।
আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির প্রদত্ত নির্দেশনা অনুযায়ী- ১ম মেধা (রোববার রাতে প্রকাশিত) তালিকায় মনোনীত শিক্ষার্থীদের ১১ জুন থেকে ১৮ জুনের মধ্যে তাদের ভর্তি নিশ্চায়ন করতে হবে। আর এই নিশ্চায়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে টেলিটক বা মোবাইল ব্যাংকিং রকেট ও শিওর ক্যাশের মাধ্যমে বোর্ডের রেজিস্ট্রেশন ফি বাবদ ১৯৫ টাকা ফি প্রদানের মাধ্যমে। ১১ জুন থেকে এ ফি গ্রহণ করা হবে। নির্দিষ্ট সময়ের (১৮ জুন) মধ্যে বোর্ডের এ ফি প্রদান করে ভর্তি নিশ্চায়ন করতে না পারলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর মনোনয়ন ও আবেদন বাতিল হয়ে যাবে। তাই মনোনীত হওয়া (তালিকায় স্থান পাওয়ার পর) শিক্ষার্থী কর্তৃক ভর্তি নিশ্চায়নের বিষয়টি অতীব গুরুত্বপূর্ণ ও জরুরি বলছেন চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর জাহেদুল হক।
তিনি আজাদীকে বলেন, একজন শিক্ষার্থী একটি কলেজে ভর্তির জন্য মনোনীত হওয়ার পরও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে (প্রথম মেধা তালিকার জন্য ১৮ জুন) বোর্ডের ফি বাবদ ১৯৫ টাকা প্রদান করে ভর্তি নিশ্চায়ন করতে ব্যর্থ হলে তার মনোনয়ন বাতিল বলে গণ্য হবে। পাশাপাশি তার আবেদনটিও বাতিল হয়ে যাবে। তাই মনোনীত হওয়ার পর ভর্তি নিশ্চায়নের বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিতে হবে। এটি কেবল ১ম মেধা তালিকায় স্থান পাওয়াদের ক্ষেত্রেই নয়, সবকয়টি মেধা তালিকায় স্থান পাওয়াদের এ বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিতে হবে। অর্থাৎ কলেজে ভর্তির জন্য তালিকায় স্থান পেলেই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বোর্ডের ফি বাবদ ১৯৫ টাকা সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে অবশ্যই জমা করতে হবে। আর তা দিতে হবে টেলিটক ও মোবাইল ব্যাংকিং রকেট বা শিওর ক্যাশের মাধ্যমে। আর ফি প্রদানের পর কলেজে গিয়ে বোর্ডের রেজিস্ট্রেশন বাবদ এ ফি প্রদানের প্রক্রিয়া ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইট (www.xiclassadmission.gov.bd) এ দেয়া আছে।
এদিকে, প্রথম দফায় মনোনীতদের নিশ্চায়ন প্রক্রিয়া শেষে দ্বিতীয় দফায় আবেদনের সুযোগ থাকছে ১৯ থেকে ২০ জুন। প্রথম দফায় মনোনয়ন বঞ্চিত এবং মনোনীত হয়েও নিশ্চায়ন করতে না পারা শিক্ষার্থীরা এ সময়ে আবেদন করতে পারবে। আবেদন গ্রহণ শেষে ১ম দফায় মাইগ্রেশনের ফল ও দ্বিতীয় দফায় মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করা হবে ২১ জুন। মাইগ্রেশন হবে স্বয়ংক্রিয়।
দ্বিতীয় তালিকায় ভর্তির জন্য মনোনীতদের ২২ জুন থেকে ২৩ জুন নিশ্চায়ন সম্পন্ন করতে হবে। নির্বাচিত শিক্ষার্থী এই সময়ের মধ্যে নিশ্চায়ন না করলে মনোনয়ন ও আবেদন বাতিল হিসেবে গণ্য হবে। ২য় দফায় মনোনীতদের নিশ্চায়ন প্রক্রিয়া শেষে ৩য় দফায় আবেদনের সুযোগ থাকছে ২৪ জুন। আবেদন গ্রহণ শেষে ২য় দফায় মাইগ্রেশনের ফল ও ৩য় দফায় মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করা হবে ২৫ জুন। ৩য় তালিকায় মনোনীতদের নিশ্চায়ন করতে হবে ২৬ জুনের মধ্যে। নিশ্চায়ন প্রক্রিয়া শেষে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে ২৭ জুন। প্রাথমিক নিশ্চায়ন সম্পন্ন করা শিক্ষার্থীদের কলেজে গিয়ে ফি জমাদান পূর্বক ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। ৩০ জুন পর্যন্ত এই ভর্তি কার্যক্রম চলবে। আর ভর্তি কার্যক্রম শেষে ক্লাস শুরু হবে ১ জুলাই।
চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ শাখা সূত্রে জানা গেছে, একাদশ শ্রেণি ভর্তিতে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীন কলেজগুলোতে ৬ লাখ ২৪ হাজার ৭৩৯টি আবেদন জমা পড়ে এবার। অনলাইনে (ওয়েবসাইট ও এসএমএস’র মাধ্যমে) ১ লাখ ২২ হাজার ৩৬ জন শিক্ষার্থী এসব আবেদন করেছে।

x