এইচএসসি পরীক্ষা: হিসাব বিজ্ঞান ২য় পত্র

(পরীক্ষার আগে রিভিশন দেওয়ার জন্য)

মোহাম্মদ ইকবাল

শনিবার , ৪ মে, ২০১৯ at ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ
381

এইচএসসি পরীক্ষায় আবশ্যিক বিষয় হিসাবে হিসাববিজ্ঞান ব্যবসায়ে শিক্ষা শাখা জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সৃজনশীল পদ্ধতি (বিশেষ করে ৭ টি) চালু হওয়ার পর হিসাববিজ্ঞানে এ প্লাস পাওয়া ছাত্রছাত্রীদের সংখ্যা দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে এবং ফেলের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে। হিসাববিজ্ঞান অনুশীলনের উপর শিখন নির্ভর করে। যে যত বেশি অনুশীলন করবে হিসাববিজ্ঞানে তার আয়ত্ব তত বেশি হবে।
ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে হিসাববিজ্ঞানে লেটার গ্রেড অর্জনের ভীতি কাজ করে। লেটার গ্রেড অর্জনের জন্য অবশ্যই খ বিভাগ থেকে এমন পাচটি প্রশ্ন পছন্দ করতে হবে যে প্রশ্নগুলো খুব কম সময়ের মধ্যে উত্তর দেয়া সম্ভব। মনে রাখতে হবে ১৫০ মিনিটের মধ্যে সাতটি সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর দিতে হয় আর প্রতি প্রশ্নের জন্য সময় পাবে ২১ মিনিট ৪২ সেকেন্ড। তবে খ বিভাগের প্রশ্নের উত্তর অবশ্যই ১৮ মিনিটের মধ্যে শেষ করতে পারলে আর্থিক বিবরণীর জন্য সময় পাওয়া যাবে।
প্রতিটি অধ্যায় থেকে নিচে প্রদত্ত বোর্ড প্রশ্নসমূহের সৃজনশীল প্রশ্নগুলোর উত্তর খুঁজে নিয়ে একাধিকবার অনুশীলন করা। সৃজনশীল ৭টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয় এ জন্য ছাত্র-ছাত্রীরা প্রথমেই ‘খ’ বিভাগ থেকেই যেকোন ৫টি প্রশ্ন বাছাই করে নিবে। প্রত্যেকটি প্রশ্নের উত্তরের ক্ষেত্রে ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হবে। যেমন- ৬নং প্রশ্নের উত্তর দেয়ার ক্ষেত্রে ৬/ক, ৬/খ এবং ৬/গ এভাবে দেয়া ভালো। সব শেষে ‘ক’ বিভাগ অর্থাৎ আর্থিক অবস্থার বিবরণী থেকে উত্তর দিলে ভালো। প্রত্যেকটি প্রশ্নের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করতে হবে।
বহুনির্বাচনি অভীজ্ঞাঃ এনসিটিবি কর্তৃক প্রণীত বইসমূহ ভালভাবে জবধফরহম পড়বে এবং বোর্ড প্রশ্নসমূহ অনুশীলন করবে
হিসাববিজ্ঞান দ্বিতীয় পত্র ( এ অধ্যায় সমূহ কম সময়ে উত্তর দেয়া সম্ভব)
১। ব্যবস্থাপনা হিসাববিজ্ঞান ২। যৌথমূলধনী কারবারের মূলধন ৩। আর্থিক বিবরণী বিশ্লেষণ ৪। নগদ প্রবাহ বিবরণী ৫। উৎপাদন ব্যয় হিসাববিজ্ঞান ৬। মজুত পণ্যের হিসাবরক্ষণ ৭। অংশীদারি কারবার ৮। যৌথমূলধনী কারবারের আর্থিক বিবরণী
পরীক্ষায় এইভাবে ধারাবাহিক অংকের সমাধান করলে নির্দিষ্ট সময়ে ৭ টি সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর দেয়া সম্ভব।
মনে রাখতে হবে কোন প্রশ্ন ২০ মিনিটের বেশি সময় ধরে লিখা যাবে না

১। অব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের হিসাব ঃ (ক) মূলধন তহবিল নির্ণয় (খ) চাঁদা বাবদ কত টাকা আয় হয়েছে দেখাও। (গ) আয় ব্যয় হিসাব প্রস্তুত কর। (ঘ) উদ্বৃত্ত পত্র/বৈষয়িক বিবৃতি/আর্থিক অবস্থার বিবরণী (ঙ) মূলধন জাতীয় প্রাপ্তি ও মূলধন জাতীয় ব্যয়ের পরিমাণ। (চ) প্রকৃত আসবাব পত্র/মনিহারী/অভিকর/বীমা খরচের পরিমাণ নির্ণয় কর। (ছ) মুনাফা জাতীয় আয় ও ব্যয়ের পরিমাণ নির্ণয় কর। (জ) খাদ্যে সামগ্রী ও পানীয় হতে অর্জিত মুনাফা দেখাও। (ঝ) ব্যবহৃত খাদ্য সামগ্রীর পরিমাণ কত? D.B (১৫, ১৬,১৭) C.B (১৫) Ctg.B ( ১৭) B.B (১৫, ১৭) Di.B (১৭)
২। অংশীদারী ব্যবসায়ের হিসাব ঃ (ক) লাভ লোকসান বন্টন হিসাব। (খ) অংশীদারদের মূলধন হিসাব (গ) অংশীদারদের ঋণ হিসাব। (ঘ) মূলধন/উত্তোলন/ঋণের সুদ/বিনিয়োগের সুদ ও বার্ষিক বেতনের পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঙ) বন্টনযোগ্য মুনাফার পরিমাণ নির্ণয় কর। (চ) অংশীদারদের চলতি হিসাব। (ছ) অংশীদারদের প্রারম্ভিক মূলধন নির্ণয়। (জ) লাভ লোকসান সমন্বয় হিসাব (ঝ) অংশীদারদের সমন্বিত মূলধন হিসাব প্রস্তুত কর।
D.B (১৬) C.B (১৫) B.B (১৫, ১৭) Di.B (১৬, ১৭) R.B (১৬) J.B (১৬) Syl.B (১৬) Ctg.B ( ১৮) R.B (১৫)
৩। নগদ প্রবাহ বিবরণী ঃ (ক) যে সকল দফাগুলো নগদ প্রবাহ বিবরণীতে অর্ন্তভূক্ত হবে না তার পরিমাণ নির্ণয় কর। (খ) পরিচালন কার্যাবলি হবে নীট নগদ প্রবাহ নির্ণয় (গ) বিনিয়োগ কার্যাবলি হতে নীট নগদ প্রবাহ নির্ণয় (ঘ) অর্থায়ন কার্যাবলী হতে নিট নগদ প্রবাহ নির্ণয় (ঙ) সমাপনী নগদ তহবিল নির্ণয় কর। (চ) স্থায়ী সম্পত্তির ক্রয়মূল্য নির্ণয় কর। (ছ) পরোক্ষ পদ্ধতিতে পরিচালনা কার্যক্রম/ বিনিয়োগ/অর্থসংস্থান হতে নগদ প্রবাহ পরিমাণ নির্ণয় কর। (জ) সরঞ্জামাদির বিক্রয় জনিত লাভ/ ক্ষতি নির্ণয় কর।
D.B (১৭) Ctg.B (১৬) B.B (১৭) R.B (১৬, ১৭) J.B (১৭) C.B (১৭) Di.B (১৭) Syl.B (১৭) R.B (১৬)
৪। যৌথমূলধনী কোম্পানী মূলধন হিসাব ঃ (ক) আবেদনে কতগুলো শেয়ার অতিরিক্ত পাওয়া গিয়েছে তার সংখ্যা নির্ণয় কর। (খ) ইস্যুকৃত শেয়ারের সংখ্যা নির্ণয় কর। (গ) অনুমোদিত ও ইস্যুকৃত মূলধনের পরিমাণ। (ঘ) কোম্পানীর মোট সম্পত্তির পরিমাণ এবং শেয়ার অধিহার/অবহারের পরিমাণ নির্ণয়। (ঙ) প্রয়োজনী জাবেদা দাখিলা দেখাও। (চ) ব্যাংক হিসাব প্রস্তুত কর। (ছ) আর্থিক অবস্থার বিবরণী প্রস্তুত কর। (জ) সংরক্ষিত মূলধনের পরিমাণ নির্ণয় কর।
C.B (১৫) B.B ( ১৫,১৬) Di.B (,১৬, ১৭) Syl.B (১৬) J.B (১৬) Ctg.B (১৬)
৫। যৌথ মূলধনী কোম্পানীর আর্থিক বিবরণী ঃ (ক) প্রস্তাবিত লভ্যাংশের পরিমাণ নির্ণয় কর। (খ) প্রদত্ত ভ্যাট ও প্রাপ্ত ভ্যাট/ভ্যাট চলতি হিসাব প্রস্তুত কর। (গ) মোট মুনাফা বা ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঘ) নীট মুনাফা বা ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঙ) সংরক্ষিত আয় বিবরণী প্রস্তুত কর। (চ) আর্থিক অবস্থার বিবরণী প্রস্তুত কর। (ছ) বিজ্ঞাপন খরচের পরিমাণ নিণয় কর। (জ) চালানি কারবারের প্রেরিত পণ্যের লাভ বা ক্ষতি নির্ণয়। (ঝ) নীট ক্রয়/ বিক্রয় নির্ণয়। (ঞ) ইজারা সম্পত্তি প্রারম্ভিক মূল্য নির্ণয় কর। (ট) আগুনে বিনষ্ট মজুদ বাবদ কত টাকার ক্ষতি হিসাবভূক্ত করতে হবে। (ঠ) স্থায়ী সম্পত্তির অবচয়ের পরিমাণ নির্ণয় কর। (ড) ব্যবহৃত মনিহারী /সাপ্লাইজ এর পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঢ) অনাদায়ী পাওনা সঞ্চিতির পরিমাণ নির্ণয় কর। (ণ) বিক্রয় অথবা ফেরত শর্তে পণ্যের ক্রয় মূল্য নির্ণয় কর।
D.B (১৭ হ্রদি) C.B ( ১৭ বাবর, ১৬ অংকুর) B.B (১৫ মুজতারা ও বিশাল,) Di.B ( ১৭ সিয়াম) R.B (১৬ মোহনা) Syl.B (১৬ হিমাদ্রী) Ctg.B (১৮ বাটা কোং)
৬। আর্থিক বিবরণী বিশ্লেষণ ঃ (ক) দীর্ঘ মেয়াদি দায় নির্ণয় কর। (খ) কোন প্রতিষ্ঠানের মুনাফা ক্ষমতা বেশী। (গ) একজন বিচক্ষণ বিনিয়োগকারী হিসাবে তুমি কোন প্রতিষ্ঠানটিতে বিনিয়োগ করবে। (ঘ) চলতি অনুপাত, তরিৎ অনুপাত, কার্যকরী মূলধন অনুপাত, মোট লাভ অনুপাত, নিট লাভ অনুপাত, বিনিয়োজিত মূলধনের আয় অনুপাত, দায় মালিকানা অনুপাত, মজুদ আবর্তন অনুপাত, দেনাদার আবর্তন অনুপাত, কার্যকরী মূলধন আবর্তন অনুপাত নির্ণয় কর। (ঙ) ধারে বিক্রয়ের পরিমাণ (চ) বিনিয়োজিত মূলধন নির্ণয়। (ছ) পরিচালন অনুপাত নির্ণয় কর। (জ) গড় আদায় সময় নির্ণয় কর। (ঝ) সম্পত্তি আবর্তন অনুপাত নির্ণয় কর। (ঞ) মালিকানা সত্ত্ব নির্ণয় কর। (ট) মূলধন গিয়ারিং অনুপাত নির্ণয় কর। (ঠ) চলতি মূলধন নির্ণয় কর।
D.B (১৮) C.B (১৬) Ctg.B ( ১৭,১৮) B.B (১৫,১৬) Di.B (১৬, ১৭) R.B (১৫) Syl.B (১৬, ১৭) J.B (১৭)
৭। উৎপাদন ব্যয় বিবরণী ঃ (ক) ব্যবহৃত কাঁচামালের ব্যয় নির্ণয় কর। (খ) মূখ্য ব্যয় নির্ণয়। (গ) বাণিজ্যিক উপরিব্যয়ের পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঘ) বিক্রিত পণ্যের ব্যয় নির্ণয় কর। (ঙ) মোট ব্যয়ের পরিমাণ নির্ণয় কর। (চ) উৎপাদিত পণ্যের একক নির্ণয় কর। (ছ) সমাপনী পণ্যের মূল্য নির্ধারণ কর। (জ) যে সমস্ত দফা -ব্যয় বিবরণীতে অর্ন্তভূক্ত হবে না এদের টাকার পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঝ) প্রত্যেক শ্রমিকের ওভার টাইম/ মজুরী নির্ণয় কর। (জ) বাড়িভাড়া ও মহার্ঘ ভাতা নির্ণয় কর। (ঝ) তৈরি পণ্যের সমাপনী মজুদ। (ঞ) উৎপাদিত দ্রব্যের ব্যয় বিবরণী। (ট) আয় বিবরণী প্রস্তুত কর। (ঠ) প্রশাসনিক উপরি ব্যয় নির্ণয় কর। বিক্রয়ের উপর ২৫% মুনাফা অর্জন করতে হলে, বিক্রয় মূল্য কত হবে নির্ণয় কর। (ড) বিক্রিত পণ্যের ব্যয় নির্ণয় কর। (ঢ) মূল মজুরী ও ওভার টাইম মজুরী নির্ণয় কর। (ণ) জাবেদা দাখিলা দেখাও। (ত) নীট প্রদেয় মজুরী নির্ণয় কর।
D.B (১৮,১৬,১৭) C.B (১৫,১৬) Ctg.B (১৫,১৬,১৭,১৮) Di.B ( ১৭,১৫) R.B (১৬, ১৭) Syl.B (১৫) C.B (১৬) B.B (১৭), J.B (১৭)
৮। মজুদ পণ্যের হিসাব রক্ষণ ঃ (ক) মোট প্রাপ্তির পরিমাণ নির্ণয় কর। (খ) বিক্রিত পণ্যের ব্যয় নির্ণয় কর। (গ) নীট ক্রয়কৃত মালের পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঘ) ঋরভড়/খরভড় ও ডঅগ পদ্ধতিতে মাল খতিয়ান প্রস্তুত কর। (ঙ) সমাপনী মজুদ পণ্যের মূল্য নির্ণয় কর। (চ) আয় বিবরণী তৈরি কর। (ছ) বিনষ্ট পণ্যের পরিমাণ নির্ণয় কর। (জ) মোট ক্রয়/বিক্রয়ের পরিমাণ নির্ণয় কর।
D.B (১৬,১৮) C.B (১৫) Ctg.B (১৫, ১৭,১৮) Di.B (১৬) B.B ( ১৭) R.B (১৭) Syl.B (১৭)
৯। ব্যবস্থাপনা হিসাব বিজ্ঞান ঃ (ক) একক প্রতি কন্ট্রিবিউশন মার্জিন/মার্জিন রেশিও নির্ণয় কর। (খ) সমচ্ছেদ বিন্দু (একক ও টাকায়) নির্ণয় কর। (গ) নিরাপত্তা প্রান্ত ও নিরাপত্তা প্রান্ত অনুপাত নির্ণয় কর। (ঘ) মুনাফার পরিমাণ নির্ণয় কর। (ঙ) মোট ব্যয়ের পরিমাণ নির্ণয় কর। (চ) প্রমাণ কর যে, সমচ্ছেদ বিন্দুতে মুনাফা শূন্য। (ছ) প্রত্যাশিত মুনাফা অর্জন করতে হলে কত টাকা/কত একক বিক্রয় করতে হবে।
D.B (১৬, ১৭) Ctg.B (১৬, ১৭,১৮) B.B (১৬, ১৫) Syl.B (১৬) J.B (১৫,১৬, ১৭) R.B (১৫) Di.B (১৬) C.B (১৭)

লেখক : সহকারী অধ্যাপক, হিসাব বিজ্ঞান বিভাগ
বাংলাদেশ নৌবাহিনী কলেজ চট্টগ্রাম

x