উৎসব-উচ্ছ্বাসে ভোট প্রদান শিশু-কিশোরদের

স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচন

আজাদী প্রতিবেদন

শুক্রবার , ১৫ মার্চ, ২০১৯ at ১১:৩৬ পূর্বাহ্ণ
16

উৎসব-উচ্ছ্বাসের মধ্য দিয়ে সারা দেশের মতো চট্টগ্রামেও অনুষ্ঠিত হলো স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচন। মাধ্যমিক পর্যায়ে মহানগরসহ চট্টগ্রাম অঞ্চলের জেলা-উপজেলার ১৮ শতাধিক মাধ্যমিক শিড়্গাপ্রতিষ্ঠানে (মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও দাখিল মাদ্রাসায়) গতকাল বৃহস্পতিবার এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।
এই নির্বাচন উপলড়্গে সকাল ৮টা থেকেই উৎসবের আমেজ ভর করে স্কুল-মাদ্রাসায়। ভোটাধিকার প্রয়োগ করে দারুণ উৎসাহ-উদ্দীপনায় নিজেদের পছন্দসই প্রার্থী নির্বাচন করেছে শিড়্গার্থীরা। উৎসব আমেজের মধ্য দিয়ে চট্টগ্রাম অঞ্চলের এসব শিড়্গাপ্রতিষ্ঠানে সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন মাউশি (মাধ্যমিক ও উচ্চশিড়্গা অধিদপ্তর) চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপ-পরিচালক (মাধ্যমিক) মো. আজিজ উদ্দিন এবং চট্টগ্রাম জেলা শিড়্গা অফিসার মো. জসিম উদ্দিন।
মাউশির নিয়ম অনুযায়ী- ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রী প্রত্যক্ষ ভোটে তাদের পছন্দের প্রতিনিধি নির্বাচন করেছে। প্রত্যেক শ্রেণি থেকে একজন করে পাঁচ শ্রেণির পাঁচজন এবং পরবর্তী সর্বোচ্চ ভোট প্রাপ্ত তিন শ্রেণি থেকে একজন করে তিনজনসহ মোট ৮ জন নির্বাচিত প্রতিনিধি নিয়ে গঠিত হয়েছে কিশোর-কিশোরীদের এই ক্যাবিনেট বা সংসদ। এই নির্বাচিত ক্যাবিনেটে একজনকে প্রধানমন্ত্রী এবং অন্যান্য প্রতিনিধিদের মন্ত্রী হিসেবে ডাকা হয় স্কুলে। গতকাল নগরীর বেশ কয়টি স্কুলে গিয়ে দেখা যায়- সকাল থেকে আনন্দঘন পরিবেশে ভোটাধিকার প্রয়োগ করছে শিড়্গার্থীরা। সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে বেলা ২টা পর্যনত্ম চলে ভোটগ্রহণ। অন্যান্য সাধারণ নির্বাচনের আদলে লাইনে দাঁড়িয়ে সুশৃঙ্খলভাবে ভোটদানের কড়্গে প্রবেশ করে শিড়্গার্থীরা। জীবনে প্রথমবার ব্যালটে ভোটদানের সুযোগ পেয়ে যারপরনাই উচ্ছ্বসিত খুদে শিড়্গার্থীদের অনেকেই। ভোট দিয়েই বিজয়সূচক (ভি) চিহ্ন দেখাতে দেখা গেছে অনেক শিড়্গার্থীকে। ভোটার আর প্রার্থীর পাশাপাশি নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন, প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার এবং শৃঙ্খলার দায়িত্বও পালন করে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরাই। আর শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটি ও অভিভাবকরা নির্বাচন অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতা করেন। দুপুর দুইটার পর শুরু হয় ভোট গণনা। গণনা শেষে ফল প্রকাশ হতেই উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠে নির্বাচিত প্রার্থীরা। প্রার্থীর পাশাপাশি ভোট দিতে পারায় উচ্ছ্বাস ছিল ভোটারদের মাঝেও। অবশ্য, নির্বাচনে জয়ী হতে না পারায় হতাশ হতে হয়েছে কোন কোন প্রার্থীকে। পরে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের নিয়ে শিক্ষকরাও মেতে ওঠেন ফটো সেশনে। চট্টগ্রাম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিড়্গিকা হাসমত জাহান ও ডা. খাস্তাগীর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিড়্গিকা শাহিদা আক্তার জানান, সকাল থেকেই সুন্দর ও সুশৃঙ্খল পরিবেশে শিড়্গার্থীরা ভোট দিয়েছে। ভোটগ্রহণ শেষে দুপুর ২টার পর শুরু হয় ভোট গণনা। গণনা শেষে বিকেলের দিকে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। সকাল ও বিকেল দুই সেশনের জন্য ৮ সদস্যের দুটি করে ক্যাবিনেট নির্বাচন হয়েছে বলেও জানান প্রতিষ্ঠান প্রধানরা। মাধ্যমিক শিড়্গাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ২০১৫ সাল থেকে এই স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচন হয়ে আসছে জানিয়ে মাউশি চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপ-পরিচালক (মাধ্যমিক) মো. আজিজ উদ্দিন আজাদীকে বলেন, প্রথমবার (২০১৫ সালে) আনুষ্ঠানিক থাকলেও দ্বিতীয়বার (২০১৬ সাল) থেকে সরকারি-বেসরকারি প্রতিটি মাধ্যমিক শিড়্গাপ্রতিষ্ঠানে এ নির্বাচন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তাই কোন প্রতিষ্ঠানে এ নির্বাচন না করার সুযোগ নেই। নির্বাচনের উদ্দেশ্য সম্পর্কে মো. আজিজ উদ্দিন বলেছেন- কৈশোর থেকে গণতন্ত্রের চর্চা, অন্যের মতামতের প্রতি সহিষ্ণুতা এবং শ্রদ্ধা, শিক্ষকদের সহায়তা, শতভাগ ছাত্রছাত্রীর ভর্তি ও ঝরেপড়া রোধে সহযোগিতা করা, শিড়্গা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ উন্নয়ন কর্মকা-ে শিড়্গার্থীদের অংশগ্রহণ, ক্রীড়া, সংস্কৃতি ও সহশিড়্গা কার্যক্রমে শিড়্গার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করাই হচ্ছে এ স্টুডেন্ট ক্যাবিনেট নির্বাচনের উদ্দেশ্য। এর মাধ্যমে শিড়্গার্থীদের মাঝে সুস্থ রাজনীতি চর্চা গড়ে ওঠবে বলেও মনত্মব্য করেন মো. আজিজ উদ্দিন। নির্বাচিত ৮ প্রতিনিধির এই স্টুডেন্ট ক্যাবিনেটের কর্মপরিধির মধ্যে থাকছে পরিবেশ সংরক্ষণ, পুস্তাক ও শিখন সামগ্রী, স্বাস্থ্য, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, পানিসম্পদ, বৃক্ষরোপণ ও বাগান তৈরি দিবস পালন ও অনুষ্ঠান সম্পাদন, অভ্যর্থনা ও আপ্যায়ন এবং আইসিটি।

x