উখিয়ায় সন্ত্রাসীদের হাতে জিম্মি পাঁচশ দোকানদার

ব্যবসায়ীদের অভিযোগ

উখিয়া প্রতিনিধি

শনিবার , ১৬ মার্চ, ২০১৯ at ১১:১৫ পূর্বাহ্ণ
10

উখিয়ার পালংখালীতে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের চাঁদাবাজি, মারধর, হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে শত শত ব্যবসায়ী। সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা প্রায় প্রতিদিন কতিপয় রাজনৈতিক নেতাদের ছত্রছায়ায় কোন না কোন দোকানদার, মার্কেটে হামলা চালিয়ে মালামাল, নগদ অর্থ লুট ও ব্যবসায়ীদের মারধর করেই চলছে। স্থানীয় ভুক্তভোগী অনেক ব্যবসায়ী নিরাপত্তার অভাবে দোকানপাট বন্ধ রেখেছেন।
সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার রাত পৌনে বারটার দিকে পালংখালী বাজারে হাজী হোছেন আলী মার্কেটে একটি ছাপাখানায় হামলা চালিয়ে দোকান ভাঙচুর করে নগদ টাকা লুট করে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। এসময় তারা ছাপাখানার মালিক আবদুস সাত্তারকে (২৮) বেধড়ক মারধর করে। খবর পেয়ে হাজী হোছন আলী মার্কেটের মালিক মো. আলম (২৫) এগিয়ে এলে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাকেসহ আরেকজনকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার ছাপাখানা ও মার্কেট মালিক উখিয়া থানায় সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে পৃথক অভিযোগ দিয়েছেন। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, স্থানীয় পূর্ব ফারির বি গ্রামের করাচি পাড়ার আয়ুবুল ইসলামের ছেলে আনোয়ারুল ইসলাম (২৫), সাইফুল ইসলাম (৩২), চকরিয়ার খুটাখালীর মো. কাশেমসহ (৩০) সশস্ত্র ৭-৮ জন সন্ত্রাসী বেশ কয়েকদিন ধরে চাঁদা দাবি করে হুমকি দিয়ে আসছিল। গত বৃহস্পতিবার দোকান বন্ধ করার সময় ঐ সন্ত্রাসীরা এসে কোন কথাবার্তা ছাড়াই মারধর করে নগদ ত্রিশ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। পালংখালী বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন, সাবেক সেক্রেটারি কামাল উদ্দিনসহ কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, কতিপয় ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতা সন্ত্রাসীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়ার কারণে চাঁদাবাজ, ইয়াবা পাচার ও সেবনকারী সন্ত্রাসীরা দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে। গুটিকয়েক সন্ত্রাসীর কাছে পাঁচ শতাধিক দোকানদার ও ব্যবসায়ী জিম্মি হয়ে পড়েছে। নিজেদের অস্তিত্বের প্রয়োজনে স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা দিতে না পারলে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে বলে জানান তারা। একটি মার্কেটের মালিক রেজাউল করিম অভিযোগ করে বলেন, চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে তার ৩৬টি দোকানের ব্যবসায়ীরা দোকান ছেড়ে দিতে চাইছে। উখিয়া থানার ওসি মো. আবুল খায়ের বলেন, পালংখালী বাজারে দোকানে সন্ত্রাসীদের হামলার ঘটনার অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

- Advertistment -