ইয়াসমীনা শিরিন সিরাজউদ্দীন (দ্ব্যর্থক কথামালা)

মঙ্গলবার , ১২ জুন, ২০১৮ at ৭:২৯ পূর্বাহ্ণ
45

 : পূর্ণিমা চাঁদের লালচে আভা, সেকিসুরুজের সনে মিলন অপেক্ষায় রাঙা, না দূরে থাকার বেদনার কাতরতা? সূর্যের উদ্দীপ্ত আলোকশিখা, সেকিতিমির আঁধার মিটিয়ে দেয়া, না আপন আধিপত্য জাহির করা? পাহাড়ের বুকে প্রবাহিত ঝর্ণাধারা, সেকিতপ্ত হৃদে শান্তির বারিধারা, না জলের প্রত্যাখ্যাত বহমান অশ্রুঝরা? বৃক্ষতরুণ শূন্য শাখাপ্রশাখা, সেকিনব পল্লবের তরে স্থান ত্যাগ করা, না জীর্ণ শীর্ণ শুকনো বার্ধক্যকে সরিয়ে দেয়া? বৃষ্টি স্নাত সাত রংগা রংধনু, সেকিদু:খ অবসানের বর্ণিল আলোকছটা, না বরষার কষ্টে সূর্যের বিদ্রুপ হাসা? গোলাপের দেহ জুড়ে কাঁটা, সেকিভালোবাসাতে কষ্ট সহ্য পরীক্ষা, না মন ভাঙা রক্ষক সীমারেখা? গাছের তনু ভরা ক্ষত চিহ্ন, সেকিঝড়ঝাপ্টা প্রতিরোধে বেড়ে ওঠা, না জীবন সংগ্রামের শত চিত্র আঁকা? মোমের জ্বলন্ত অগ্নিশিখা, সেকি

অপরের সাহায্যার্থে বিসর্জিত সত্তা, না অন্তর দহনে শুধুই ফুরিয়ে যাওয়া? সন্তানের ভবিষ্যৎ ভাবনা, সেকিউজ্জ্বল স্বর্ণালী রাজ সিংহাসন, না অপূরণীয় আশার বাস্তবতা? প্রিয়জনের আর্দ্র মায়া ভরা আঁখি, সেকিহিয়ার গভীরে লুকিয়ে রাখা অফুরান মমতা, না অবুঝ আকাশ কুসুম কল্পনা? জীবন সাথীর পথ চলার ওয়াদা, সেকিঅজানা সীমানার লক্ষ্যে এগিয়ে চলা, না সীমান্তে সংগহীন হওয়ার আগাম আশংকা? সর্বত্র বিরাজিত দ্ব্যর্থক কথা, সেকিপেতে সঠিক পথের দিশা, না ঘন কুয়াশার ঘিরে ধরা?

x