ইতালিতে দুই ভাইয়ের মৃতদেহ উদ্ধার

আখি সীমা কাউসার, রোম (ইতালি) থেকে

সোমবার , ১৯ আগস্ট, ২০১৯ at ৮:০৫ অপরাহ্ণ
190
ইতালির মিলান শহরে বাজ্জিও এলাকায় রবিবার (১৮ আগস্ট) সকালে ইতালি প্রবাসী বাংলাদেশী দু’ভাইর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে ইতালীয় পুলিশ।
পুলিশের প্রাথমিক ধারণা হলো এক ভাই অন্য ভাইকে বড় ধরনের ছুরি দ্বারা আঘাত করলে বড় ভাই আব্দুল হাই(৪১) মারা যায়।ছোট ভাই জমির উদ্দিন (৩৮) অনুশোচিত হয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে ।
তাদের এপার্টমেন্টে প্রচুর রক্তপাত দেখা গেছে।
ধারণা করা হচ্ছে, ছোট ভাই জমির প্রায়ই মদ্যপানে লিপ্ত থাকত। বড় ভাই আব্দুল হাই তাকে বার বার নিষেধ করা ও সঠিক পথে ফিরিয়ে আনতে ব্যর্থ হয়। তারই জের ধরে হয়তো এই হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে।
ইতালির জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা কুরিয়ারে দেল্লা ছেরা Corriere della sera )সহ অনেকগুলো পন্রিকায় এবং ইতালীয় টিভি চ্যানেল ঘটনাটি প্রকাশ করেছে।
রবিবার সকাল ১০টা ২০ মিনিটের দিকে পাশের বিল্ডিংয়ের শ্রীলংকার এক প্রতিবেশী জানালা দিয়ে লক্ষ্য করে সামনের বিল্ডিংয়ের একজন গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে। তাৎক্ষণিক তিনি ১১২ জরুরি বিভাগে ফোন করে বিষয়টি অবহিত করেন এবং অল্প সময়ের মধ্যে পুলিশ, ক্যারিবিনিয়ারি ঘটনাস্থলে আসে।
পুলিশ ফ্লাটে প্রবেশ করে আরও একটি মৃতদেহ রক্তাক্ত অবস্থায় মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখে। তারপর বারান্দায় গিয়ে ঝুলন্ত অন্য একটি মৃতদেহ উদ্ধার করে তারা।
বারান্দার সামনের বাগানে বড় একটি ধারালো রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করে পুলিশ।
প্রতিবেশীর ভাষ্যমতে ঘটনার রাতে প্রায় আড়াইটার দিকে ওই ঘর থেকে অনেক চিৎকার ও শোরগোল শোনা যাওয়ার পর সবকিছু নীরব, নিশ্চুপ হয়ে যায়।
এর কয়েক মাস পূর্বে আগে নিহতদের তৃতীয় ভাই মিলানের ছেস্ত সানজোভান্নি এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যায়।
এরপর থেকেই দু’ভাইর মধ্যে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকত।
দ্বিতীয় ভাইটি মদ্যপান সহ অন্যান্য বাজে পথে চলে গেলে বড় ভাই অনেক চেষ্টা করে তাকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার জন্য। ঘটনার রাতে হয়তো সেই বিষয়কে কেন্দ্র করেই এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।
বড় ভাই আব্দুল হক মিলান শহরে সাপ্তাহিক খোলা বাজারে কাপড়ের ব্যবসা করতেন।
নিহত দু’ভাইয়ের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানা না গেলেও শুধু এটুকুই জানা গেছে যে তাদের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলায়।
x