ইউএসটিসিতে তিনদিনব্যাপী টেকট্রোনিক্স ২০১৮

কাজী আরফাত

বৃহস্পতিবার , ৭ জুন, ২০১৮ at ৪:২৩ পূর্বাহ্ণ
33

বর্তমান দশকে প্রযুক্তি যে বিপুল উৎকর্ষ লাভ করছে, তা অন্য যেকোন সময়ের তুলনায় অনেক অনেক বেশি কার্যকরী। প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হচ্ছে প্রতিটা প্রযুক্তির, আসছে নতুন নতুন আইডিয়া ও প্যাটার্ন, সেই সাথে বাড়ছে দক্ষ প্রযুক্তিবিদ ও প্রকৌশলীর চাহিদা, আর বাড়ছে প্রতিযোগিতা। এই সকল অত্যাধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উদ্ভাবন ও পরিচালন সম্পর্কে জানতে হলে, এইসব বিষয় নিয়ে বহুমুখী জ্ঞান অর্জনের বিকল্প নেই। এইজন্য শুধুমাত্র পাঠ্যবইয়ে সীমাবদ্ধ থাকলে চলবে না, বাড়াতে হবে ব্যবহারিক ও গবেষণাধর্মী কাজের পরিধি। এই প্রেক্ষাপটকে সামনে রেখে, ভবিষ্যৎ প্রকৌশলী ও প্রযুক্তিবিদদের দক্ষ ও সুদৃঢ় মানসিকসম্পন্ন হিসেবে তৈরি করার লক্ষ্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (ইউএসটিসি)-এর প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদ(এফএসইটি) আয়োজন করেছে প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিযোগিতা ‘টেকট্রোনিক্স ২০১৮’। গত ৫ মে থেকে ৭ মে পর্যন্ত আয়োজিত এই জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন হয়েছিলো বিশ্ববিদ্যালয়ের মাওলানা ভাসানী অডিটোরিয়ামে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এতে প্রধান অতিথি ও উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউএসটিসি ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আহমেদ ইফতেখারুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউএসটিসির উপাচার্য প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া, এলাইড সায়েন্স বিভাগের প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক শেখ মুহাম্মাদ হাবিবুর উল্লাহ। উদ্বোধন অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন প্রকৌশল অনুষদের ডিন রাজুয়ান করিম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আহমেদ ইফতেখারুল ইসলাম বলেন, বর্তমান পৃথিবীতে প্রযুক্তি প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হচ্ছে। পরিবর্তিত প্রযুক্তির সাথে প্রকৌশলের শিক্ষার্থীদেরকে নিয়মিত আপডেট থাকতে হবে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন তা বাস্তবায়ন করতে হলে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে নিয়মিত প্রযুক্তি বিষয়ক নানা ধরনের প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে নিয়মিত প্রযুক্তি বিষয়ক নানা ধরনের প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে হবে।

ইউএসটিসির উপাচার্য প্রফেসর ডা. প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া বলেন, মেধাবী ও সৃজনশীল প্রকৌশলী তৈরি করতে ইউএসটিসির প্রকৌশল অনুষদ নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। টেকট্রোনিক্সের মতো আয়োজন এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধিসহ ‘নলেজ শেয়ারিং’ এ অবদান রাখছে। টেকট্রোনিক্সের আহবায়ক কাজী নূরে আলম সিদ্দিকী বলেন, প্রযুক্তিখাতে ইউএসটিসির শিক্ষার্থীদের বিপুল আগ্রহ ও সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা চাই এই ধরনের সৃজনশীল আয়োজনের মাধ্যমে আধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কে তাদের জানার আগ্রহটা আরো বৃদ্ধি হোক।

প্রতিযোগিতার বিভিন্ন পর্বে বিচারকার্যে ছিলেন প্রকৌশল অনুষদের সহকারি অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ শাহরিয়া ভূঁইয়া সরোয়ার চৌধুরী ও শাহাদাত হোসেন। টেকট্রোনিক্স প্রতিযোগিতাটি কয়েকটি সেগমেন্টে বিভক্ত ছিলো। প্রতিযোগিতার তিনদিনই ছিলো ভিন্ন ভিন্ন আয়োজন। প্রতিযোগিতার প্রথমদিন ছিলো বিশিষ্ট বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদদের সাথে বিজ্ঞান আলোচনা ‘টেকটক’। যেখানে বর্তমান প্রযুক্তির দুনিয়ায় সবচেয়ে বেশি রিসার্চ হওয়া ন্যানোটেকনোলজি, এডভান্স কম্পিউটার সিস্টেম ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্সের নানাবিদ শাখা প্রশাখা ও ইম্পলিমেন্ট সম্পর্কে কয়েকজন বরেণ্য বিজ্ঞানীর সাথে আলোচনা হয়। এতে কিনোট পিকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফুলব্রাইট স্কলার ও ইউনিভার্সিটি অব ডেব্রির অধ্যাপক ড. আহমেদ শেহজাদ খান, গ্রীন ইউনিভার্সিটির উপউপাচার্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ফায়েজ খান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মাদ শাহাদাত হোসেন ও আইইইই কম্পিউটার সোসাইটির বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের চেয়ারম্যান ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. এম. শামীম কায়সার। টেকটকে শিক্ষার্থীরা আগত বিজ্ঞানীদেরকে নানা ধরনের প্রশ্ন করেন এবং ওইসব বিষয়ে তাদের উচ্চশিক্ষা অর্জনের ব্যাপ্তি সম্পর্কে ধারণা নেন।

x