আমি অরুণিমা, অতি সাধারণ মেয়ে

নাসরিন এভি

শুক্রবার , ৪ জানুয়ারি, ২০১৯ at ৪:১৩ পূর্বাহ্ণ
42

রেবতী মোহন লেন দিয়ে শ্লথ গতিতে হেঁটে যাচ্ছি। বড় রাস্তার মোড়টায় বাস হতে নেমে ছোট রাস্তাটি দিয়ে বেশ কিছুটা পথ হেঁটে গেলেই আমার বাসা। অফিস হতে ফেরার সময়টা রাজ্যের ক্লান্তি ভর করে শরীরে, তাও হেঁটেই যেতে হয়। বাসায় অপেক্ষা করছে, বাবা-মা, কলেজে পড়া ছোট বোন এবং এবার জেএসসি পরীক্ষা দেওয়া আদরের ছোট ভাইটা।
বাবা গত সাত বছর ধরে পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে শয্যাশায়ী। মাই সব সেবা যত্ন করেন, সেই সাথে সংসারের যাবতীয় কাজ। বাবার উন্নত চিকিৎসা করানো খুবই প্রয়োজন কিন্তু কুলিয়ে উঠতে পারছিনা। ইদানীং দেখছি মায়ের শরীরটাও ভাল যাচ্ছে না। প্রতিদিন বাসায় ফিরে ভাবি মাকে ডাক্তারের কাছে নিবো। বোনটার সায়েন্সে পড়ার শখ। বেশী খরচ হবে ভেবে মা নিষেধ করেছিলো সায়েন্স গ্রুপ নিতে। কিন্তু এসএসসিতে এতো ভাল রেজাল্ট করলো, আমিই বলেছি সায়েন্সই পড়বে তনু। বাবা, মা, আমার, কত স্বপ্ন ছোট ভাই, বোন দুটোকে নিয়ে। নিজের তো কিছু হলো না। রাস্তা দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে কত কিছুই ভেবে যাচ্ছি, হঠাৎ রিকশাওয়ালার গালি আর গাড়ী তীব্র ব্রেক কষার শব্দে ছিটকে সরে পড়লাম রাস্তা হতে। ভাবতে ভাবতে কখন যে আনমনে ফুটপাত হতে নেমে পড়েছি, খেয়াল করিনি। বড় বাঁচা বেঁচে গেলাম আজ। আবার ভাবছি আমি মরে গেলেই বা কার কি! সমবয়সী বন্ধুরা যখন এইচএসসির পর বিভিন্ন জায়গায় ভর্তি পরীক্ষা দিচ্ছে, চোখে অনাগত সুন্দর দিনের স্বপ্ন নিয়ে তখন আমার হন্যে হয়ে দ্বারে দ্বারে চাকরি খোঁজা লেগেছিল। কি যে দুঃসহ, কষ্টের দিন ছিল সে সব! পরক্ষণে এই চারটা মানুষের মুখ, ভালবাসা আমাকে সাহস জুগিয়েছিল পথ চলায়।এখন কিছুটা থিতু হয়েছি এ জীবন চলায়। আজকাল মা খুব আফসোস করেন, আমায় নিয়ে। বারে বারে বলেন, মা রে, আমাদের কারণে তোর জীবনটা এমন হলো। বিয়ের কথাও বলেন। তখন ভাবি,এ জীবনে কেউ তো কখনো প্রেমের কথা বলেনি, ভালবেসে হাত ধরে হাঁটতে চায়নি। অবশ্য আমার মত দেখতে বিশ্রী, কালো একটা মেয়েকে কে ই বা প্রেমের, বিয়ের কথা বলবে। তবে শরীরের দিকে লোলুপ দৃষ্টি দিয়েছে অনেকেই। মেয়ে হিসাবে তা বেশ ভালোই বুঝতে পারি আমি। তাই সব সময় কঠোর ভাব নিয়ে চলি। আশেপাশের সবাই বলে, কিসের এতো দেমাগ, অহংকার আমার। আমিই জানি কিসে আমার অহংকার। মাঝে মাঝে খুব যখন মন খারাপ হয়, তখন এভাবে উদ্দেশ্যহীনভাবে আমি হাঁটতে থাকি।রাস্তায় কত রং বেরংয়ের মানুষ দেখা যায়। ভাবি অনেকের চেয়ে এই আমি বেশ ভাল আছি। মনটা হালকা হয়। আমি অরুণিমা, বাবা মায়ের আদরের খুকী। ছোট ভাই বোনের নির্ভরতা, ভরসাস্থল, বড় আপা। ঐ যে বাসা দেখা যাচ্ছে, যেখানে আমার অপেক্ষায় আছে প্রিয়জনেরা।

- Advertistment -