আবাসন খাতের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার তহবিল চায় রিহ্যাব

আজাদী প্রতিবেদন

হোটেল রেডিসনে চারদিনব্যাপী ফেয়ার কাল শুরু

বুধবার , ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ at ৪:২৭ পূর্বাহ্ণ
151

আগামীকাল থেকে নগরীর পাঁচ তারকা হোটেল রেডিসন ব্লু’তে শুরু হচ্ছে চারদিন ব্যাপী ‘রিহ্যাব ফেয়ার২০১৮’। আবাসন খাতের এই ফেয়ারে কোস্পন্সর থাকছে ২১টি প্রতিষ্ঠান। এছাড়া সাধারণ স্টল ২১টি, বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালস প্রতিষ্ঠান ১০টি এবং ৭টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ মোট ৫৯টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করছে। মেলায় এসব প্রতিষ্ঠানের ৮৩টি স্টল থাকবে। মেলার উদ্বোধন করবেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম।

গতকাল দুপুরে চট্টগ্রাম ক্লাবের ব্যাংকুইট হলে রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) ভাইস প্রেসিডেন্ট ও চট্টগ্রাম রিজিওনাল কমিটির চেয়ারম্যান আবদুল কৈয়ূম চৌধুরী সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান। লিখিত বক্তব্যে আবদুল কৈয়ূম বলেন, দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে নির্মাণ খাতের অবদান প্রায় ১৫ শতাংশ। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার চাহিদা বিবেচনায় রেখে দেশের আবাসন সমস্যা সমাধানে সরকারের ‘উন্নয়ন সহযোগী’ হিসেবে রিহ্যাবের একহাজার ৫১টি সদস্য ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। রিহ্যাব সদস্যদের আন্তরিক প্রচেষ্টার কারণেই আজ দেশের শহরগুলোতে স্কাই লাইনের পরিবর্তন হয়েছে। সাধ ও সাধ্যের মধ্যে মনের মত ফ্ল্যাট ও প্লট খুঁজে নিতে রিহ্যাব ফেয়ার ক্রেতাদের সাহায্য করবে বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস। রিহ্যাব ইতিমধ্যে চট্টগ্রামে ১০টি ফেয়ার সম্পন্ন করেছে। ২০০১ সাল থেকে ঢাকায় রিহ্যাব হাউজিং ফেয়ার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এছাড়া ২০০৪ সাল থেকে রিহ্যাব যুক্তরাজ্যে ১২টি, দুবাই, ইতালির রোম, কানাডা, সিডনী ও কাতারে হাউজিং ফেয়ার করেছে। রিহ্যাবের সদস্য ও ক্রেতাদের মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করতে এই ফেয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, কয়েকটি ব্যাংকে সিঙ্গেল ডিজিটে ঋণ পাওয়া গেলেও এখন পর্যন্ত সরকারের পক্ষ থেকে সিঙ্গেল ডিজিটে হাউজিং লোনের কোন ঘোষণা আসেনি। সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে একটা সুস্পষ্ট নির্দেশনা আমরা চাই। এছাড়া ন্নি ও মধ্যবিত্ত শ্রেণীর নাগরিকদের আবাসনের স্বপ্ন পূরণ করতে এবং আবাসন খাতে গতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে আমরা ‘হাউজিং লোন’ নামে ২০ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন করার দাবি জানাচ্ছি।

আবদুল কৈয়ূম বলেন, নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষের জন্য আবাসন খুব সহজেই সম্ভব, যদি সরকারের পক্ষ থেকে ৫ শতাংশ সুদে এই তহবিল থেকে ঋণের ব্যবস্থা করা যায়। এছাড়া আবাসন শিল্পে স্থবিরতার জন্য অত্যধিক রেজিস্ট্রেশন ব্যয় অন্যতম একটা প্রতিবন্ধকতা। বর্তমানে ১৬ শতাংশের ওপরে রেজিস্ট্রেশন ব্যয় রয়েছে। রেজিস্ট্রেশন ব্যয়ের হার ৬ থেকে ৭ শতাংশ করা গেলে এ খাতে গতিশীলতা বাড়বে।

এবারের মেলায় এন্ট্রি টিকেট ও টিকেট কাউন্টারের স্পন্সর করেছে জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড। মেলায় সিঙ্গেল প্রবেশ টিকিটের মূল্য রাখা হয়েছে ৫০ টাকা । ১০০ টাকায় রাখা হয়েছে মাল্টিপল এন্ট্রি টিকেট। এই টিকিট দিয়ে একজন দর্শনার্থী চারবার মেলায় প্রবেশ করতে পারবেন। মেলা চলবে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত। এছাড়া মেলা উপল ে ৯ ফেব্রুয়ারি সকাল ৯টায় রেডিসন ব্লু’তে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আবদুল মান্নান। এছাড়া ১১ ফেব্রুয়ারি মেলা শেষ হলেও ১৫ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মেলা শেষ হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রিহ্যাব চট্টগ্রাম রিজিওনাল কমিটির কোচেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক, কোচেয়ারম্যান২ ইঞ্জিনিয়ার মো. দিদারুল হক চৌধুরী ও রিহ্যাব চট্টগ্রাম রিজিয়নের প্রেস অ্যান্ড মিডিয়ার আহ্বায়ক এএসএম আবদুল গাফফার মিয়াজী।

এবারের মেলায় অংশগ্রহণকারী আবাসন প্রতিষ্ঠানগুলো হলোএয়ারবেল ডেভলাপমেন্ট টেকনোলজিস, সিপিডিএল, ফিনলে প্রোপার্টিজ, র‌্যাংকস এফসি প্রোপার্টিজ, বিল্ডিং টেকনোলজিস এন্ড আইডিয়া’স (বিটিআই), ইকুইটি প্রোপার্টি ম্যানেজমেন্ট, কনকর্ড রিয়েল এস্টেট ডেভলাপমেন্ট, এ এন জে প্রোপার্টিজ, এপিক প্রোপার্টিজ, আমিন মোহাম্মদ ল্যান্ডস, ইউএস বাংলা এসেট, জুমাইরাহ হোল্ডিংস, নাভানা রিয়েল এস্টেট লিমিটেড, অ্যাকর্ড হোল্ডিংস, অ্যাসোসিয়েটেড বিল্ডার্স কর্পোরেশন (এবিসি), কোরাল রিফ প্রোপার্টিজ, গ্রীণ বার্ড প্রোপার্টিজ, এসএএফ হোল্ডিংস, এক্স ই এন ডেভেলপম্যান্ট, সেভেন প্রোপার্টিজ, সায়মা প্রোপার্টিজ, প্লাটিনাম হোল্ডিংস, আরবান আমেরিকান ডেভেলপমেন্ট, নাইট ফ্র্যাংক ডেভেলপমেন্ট, মদিনা ডেভেলপমেন্ট, জেএস বিল্ডার্স, আটলান্টিক প্রোপার্টিজ, ইন্ট্রাকো প্রোপার্টিজ, আরএফ বিল্ডার্স, রিসোর্ট ডেভেলপমেন্ট এন্ড সার্ভিস, রাকিন ডেভেলপমেন্টস, ইউনিক এসেটস, প্রাইম এসেট ডেভেলপমেন্ট, সিএ প্রোপার্টিজ, সানমার প্রোপার্টিজ, মৌলানা ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি, রিসোর্ট ডেভেলপমেন্ট এন্ড সার্ভিসেস ও রিচমোন্ড ডেভেলপারস। বিল্ডিং ম্যাটেরিয়াল প্রতিষ্ঠান হিসেবে মেলায় থাকছে আবুল খায়ের সিরামিকস, হাতিল কমপ্লেক্স, বার্জার পেইন্টস, এলিট পেইন্ট, তিলোত্তমা চিটাগাং, স্টার পার্টিকেল বোর্ড, বিআরবি ক্যাবলস, পারটেক্স ফার্নিচার, মীর সিরামিক, ইন্ট্রাকো এলপিজি, প্যারাগন টেক, পিউরিট ইউনিলিভার, পিটুপি ফ্যামিলি এবং বাংলাদেশ লিফট ইন্ড্রাস্ট্রি। এছাড়া ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, লঙ্কা বাংলা ফাইন্যান্স, আইপিডিসি ফাইন্যান্স, ইস্টার্ন ব্যাংক, ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন, দি সিটি ব্যাংক ও বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন। মেলায় সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে থাকছে বিক্রয় ডটকম।

x