আজ জিমনেসিয়াম মাঠে বীমা মেলা শুরু

আজাদী প্রতিবেদন

শুক্রবার , ১৫ মার্চ, ২০১৯ at ১১:৩৬ পূর্বাহ্ণ
25

নগরীর এমএ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেসিয়াম মাঠে আজ থেকে শুরু হচ্ছে দিনব্যাপী তৃতীয় বীমা মেলা। এর আগে ২০১৬ সালে ঢাকায় ও ২০১৭ সালে সিলেটে এই মেলা বসেছিল। বীমা খাতে সরকারের ভিশন ও মিশন বাস্তাবায়নের লক্ষ্যে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের উদ্যোগে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরামের সহযোগিতায় বীমা মেলা হচ্ছে। এবারের মেলায় সরকারি, বেসরকারি ও বিদেশি মিলে ৭৮টি প্রতিষ্ঠানের ১০২টি স্টল থাকবে।
আজ সকাল ১০টায় মেলার উদ্বোধন করবেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বিশেষ অতিথি থাকবেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মোহাম্মদ আসাদুল ইসলাম এবং বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। এর আগে সকাল সাড়ে ৮টায় সার্কিট হাউস থেকে বের করা হবে র‌্যালি। আগামীকাল শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। সকাল ১০টায় মেলা প্রাঙ্গণে ‘বীমা খাতে ডিজিটালাইজেশন এবং চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি থাকবেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি থাকবেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন। মেলায় বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন (বিআইএ), বাংলাদেশ ইনসিওরেন্স একডেমি (বিআইএ) এবং বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরাম (বিআইএফ), বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স সার্ভেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশনের স্টল থাকবে। এ সব স্টল থেকে বীমা বিষয়ে বিভিন্ন অভিযোগ বা সমস্যার সমাধান সম্পর্কে পরামর্শ দেওয়া হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিজেকেএস সভা কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাটোয়ারী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বীমা মেলা আয়োজক কমিটির সভাপতি গকুল চাঁদ দাস, বীমা কর্তৃপক্ষের সদস্য মো. বোরহান উদ্দিন আহমদ, নির্বাহী পরিচালক ড. শেখ মো. রেজাউল ইসলাম, খলিল আহমেদ, পরিচালক ড. বশিরুল আলম, ফারুক আহমেদ, আবুল কাসেম মো. ফজলুল হক, ইন্স্যুরেন্স ফোরামের সভাপতি ইউসুফ আলী, বীমা কর্তৃপক্ষের উপদেষ্টা এনায়েত আলী খান। বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাটোয়ারী জানান, ২০১৮ সালে লাইফ বীমা খাতে ৬২০২ কোটি টাকা এবং নন-লাইফ বীমা খাতে ৮৪৮ কোটি টাকা দাবি পরিশোধ করা হয়েছে। দেশের ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ বীমার আওতায় এসেছে। ২০১৮ সালে প্রিমিয়াম আয় বেড়েছে ১১ দশমিক ২৫ শতাংশ। বীমা খাতে মানি লন্ডারিং নিয়ন্ত্রণ ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন রোধে বীমা গ্রাহকদের জন্য অভিন্ন কেওয়াইসি চালু হয়েছে। বীমা খাতের আধুনিকায়ন ও অটোমেশনের জন্য সরকার ও বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ৬৩২ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তাবায়ন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

x