আজিজা রূপা (ভালোবাসা ছিলনা, মোহ ছিল)

রবিবার , ৬ মে, ২০১৮ at ৩:২৬ পূর্বাহ্ণ
338

তাসফিয়া, আদনান দুটি জীবন। হতে পারতো সমাজের মূল্যবান এসেট। আজ একজন মরে বেঁচে গেল। আরেকজন বেঁচে থেকেও মরার মতন। এই যে উঠতি বয়সি দুজন ছেলেমেয়ের এই পরিণতি কেন হল? শুধু কি প্রেম? একে অপরের প্রতি ভালোবাসা? না কখনো না। যদি তা হয়ে থাকে তাহলে সেটা ভালোবাসা ছিলনা। মোহ ছিল। অর্থ অনর্থের মূল। হুম অর্থই আজকে অনর্থ ঘটিয়েছে। নবম শ্রেণীর দুজন ছেলেমেয়ে কিভাবে চায়নাগ্রীলে, নেভালে যায়? কারণ তাদের কাছে পর্যাপ্ত অর্থ ছিল। কোত্থেকে পেল তারা এই অর্থ। যদি তাদের বাবা মা না দেয়? আমার সন্তানের খবর নেওয়া আমার প্রয়োজন। তাই তার হাতে আমি একটা মোবাইল দিতে পারি কিন্তু সেটা কেন ফুটানি মোবাইল হবে? সেটা একটা এনালগ মোবাইল হলেও হয়। আমাদের সমাজে আজাইরা ফুটানি আমাদের অনেক ধ্বংস নামিয়ে আনে।

আমার বাচ্চা অন্য বাচ্চাদের সাথে ফুটানি করার জন্য আমিই সাপোর্ট করি তাহলে বাচ্চাতো আমার ঘুড়ি হয়ে আকাশে উড়বে এটাই স্বাভাবিক। প্রেম কখনো খারাপ হতে পারে না। এই বয়সের দুটো ছেলেমেয়ে রঙ্গীন স্বপ্ন দেখবে এটাই স্বাভাবিক। প্রকৃতি তাই বলে। কিন্তু রঙ্গীন স্বপ্নটাকে শুরুতে সচল করার আয়োজনটা কে করে দিল? পরে কেন ধমকাধমকি, মারামারি?

তাসফিয়ার মৃত্যুর জন্য একা আদনানকে দায়ী করলে হবে না। একা নয় আমি মনে করি আদনান হয়তো দায়ী নয়ই।

কারণ ভালোবাসার মানুষ কখনো তার ফ্যামিলির অপমানের কারণে ভালোবাসার মানুষকে খুন করতে পারে না। যদি করেও থাকে তাহলে ভালোবাসার মানুষটি যখন প্রতারণা করে তবে। কারণ অনেকে এটা মেনে নিতে পারে না। যাই হোক, আমাদের অতিরিক্ত ফুটানি, মাম্মি ডেডির অতিরিক্ত আহলাদই, কার থেকে কার টাকা বেশী এই দৌড় প্রতিযোগিতাই উচ্চবিত্ত, উচ্চমধ্যবিত্ত সমাজের অবক্ষয়ের কারণ।

x