আগুনের গ্রাসে নটরডেম ক্যাথিড্রাল

তৈরিতে সময় লেগেছিল দুইশ বছর, কয়েক ঘণ্টায় ভস্মীভূত একাংশ

বুধবার , ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ at ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ
99

নটরডেম ক্যাথিড্রাল। সারা বিশ্বের কাছে অন্যতম শ্রেষ্ঠ ঐতিহাসিক কীর্তি এটি। একে বলা হয়ে থাকে ফ্রান্সের গৌরব ও ঐতিহ্যের অন্যতম প্রতীক। লেলিহান অগ্নিশিখার আগ্রাসনে একাংশ ভস্মীভূত হয়ে গিয়েছে পৃথিবীর প্রাচীনতম গির্জাগুলির মধ্যে অন্যতম এই স্থাপত্যকীর্তিটির। ৮৫০ বছরের প্রাচীন ভবনটি পুরোপুরি তৈরি করতে সময় লেগেছিল দুই শতক। সমপ্রতি রক্ষণাবেক্ষণের কাজ শুরু হয়েছিল এখানে। সোমবার স্থানীয় সময় শেষ বিকেলের দিকে এতে আগুন লাগে। কয়েক ঘণ্টার আগুনে অনেকটাই ধ্বংস হয়ে গেছে ফ্রান্সের বিখ্যাত এই স্থাপনার অংশবিশেষ। অগ্নিকাণ্ডের পর মূল কাঠামো এবং দুটো বেল টাওয়ার রক্ষা করা গেছে বলে জানান কর্মকর্তারা। প্রাচীন গোথিক ভবনটিকে রক্ষার জন্য দমকল কর্মীরা ব্যাপক চেষ্টা চালালেও এর উঁচু চূড়া এবং ছাদ ধসে পড়ে।
অগ্নিকাণ্ডের কারণ এখনো পরিষ্কার নয়, তবে কর্মকর্তারা বলছেন, চলমান সংস্কার কাজের সাথে কোনও যোগসূত্র থাকতে পারে। ক্ষয়িষ্ণু ভবনটি রক্ষার জন্য গতবছর ফ্রান্সের ক্যাথলিক চার্চ তহবিলের আহ্বান করেছিল।
স্থানীয় সময় সাড়ে ছয়টার দিকে এ আগুন লাগে এবং তা দ্রুত ছাদে ছড়িয়ে পড়ে। ক্যাথিড্রালের ছাদে যখন আগুন জ্বলতে থাকে তখন প্রকাণ্ড জোরে শব্দ শোনা যায়। আগুনে উঁচু চূড়া খসে পড়ার আগে তা কাঠের তৈরি কাঠামো ধংস করে । একটি বেল টাওয়ার ধসের হাত থেকে রক্ষার জন্য ৫০০ জন ফায়ার ফাইটার কাজ করে। চার ঘণ্টা পরে অগ্নিনির্বাপণ বাহিনীর প্রধান জ্যঁ-ক্লদে গ্যালেট বলেন, প্রধান কাঠামোটি পুরোপুরি ধ্বংসের কবল থেকে ‘রক্ষা করা গেছে এবং সংরক্ষিত’ আছে।
নটরডেম ক্যাথিড্রালের শিল্পকর্ম সংরক্ষণ এবং এর উত্তরাংশে টাওয়ারটি রক্ষার জন্য রাতভর সর্বাত্মক চেষ্টা চালানো হয়। ক্যাথিড্রালের আশেপাশের রাস্তায় হাজার হাজার মানুষ জড়ো হন, আগুনের ঘটনা প্রত্যক্ষ করবার জন্য। অনেককে প্রকাশ্যে কাঁদতে দেখা যায়, একই সময়ে অন্যরা দুঃখ করছিলেন, কেউবা প্রার্থনা করছিলেন। রাজধানীর অনেক গির্জায় বেল বাজাতে শোনা যায়। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রো ঘটনাস্থলে পৌঁছে সকল ক্যাথলিক এবং ফরাসি নাগরিকের জন্য তার সমবেদনার কথা জানান। তিনি বলেন, ‘আমাদের এই অংশটি পুড়তে দেখে আমার দেশের আর সবার মত আমিও আজকের রাতে অত্যন্ত ব্যথিত।’ ম্যাক্রোর এর আগে একটি গুরুত্বপূর্ণ টেলিভিশন বক্তৃতা দেয়ার কথা থাকলেও অগ্নিকাণ্ডের কারণে তা বাতিল করেন তিনি।
ইতিহাসবিদ কামিলি পাস্কাল ফরাসি গণমাধ্যম বিএফএমটিভিকে বলেন, আগুন ধ্বংস করে দিচ্ছে ‘অমূল্য ঐতিহ্য’। ৮০০বছর ধরে এই ক্যাথিড্রাল প্যারিসে দাঁড়িয়ে ছিল।
প্যারিসের মেয়র অ্যানি হিদালগো সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন অগ্নিনির্বাপণ কর্মীরা যে সীমানা বেষ্টনী তৈরি করে দিয়েছে নিরাপত্তার স্বার্থে তারা যেন তা মান্য করে। ‘ভেতরে প্রচুর সংখ্যক শিল্পকর্ম রয়েছে…এটা একটা সত্যিকারের ট্রজেডি’, সাংবাদিকদের বলেন তিনি।
প্রত্যক্ষদর্শী সামান্থা সিলভা বার্তা সংস্থা র‘টার্সকে বলেন, ‘আমার অনেক বন্ধু-বান্ধব দেশের বাইরে থাকে এবং যখনই তারা আসে প্রতিবার আমি তাদের বলি নটরডেম বেড়িয়ে এসো। অনেকবার আমি সেখানে গেছি, কিন্তু কখনোই একরকম মনে হয়নি। এটা প্যারিসের সত্যিকারের প্রতীক।’
এই আগুন নেভাতে গিয়ে অগ্নি নির্বাপক বাহিনীর একজন সদস্যের আহত হওয়ার খবর দিয়েছে রয়টার্স। অগ্নিকাণ্ডে এটাই আহতের একমাত্র ঘটনা। কীভাবে আগুন লাগল, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ভবন সংস্কারের সময় কোনো গোলযোগ থেকে এই আগুনের সূত্রপাত বলে ফরাসি কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে বিবিসি জানিয়েছে। প্যারিস প্রসিকিউটর অফিস জানিয়েছে, কীভাবে আগুন লাগল, তার তদন্ত শুরু করেছেন তারা। এক পুলিশ কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, এই অগ্নিকাণ্ডকে দুর্ঘটনা হিসেবেই দেখছেন তারা।
ফ্রান্সের এই নটরডেম ক্যাথিড্রালে উদ্বেগ ছড়িয়েছে বিশ্বনেতাদের মধ্যেও; নানা পরামর্শও দিয়েছেন তারা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনান্ড ট্রাম্প আগুন লাগার খবর শুনেই তা নেভাতে ‘ফ্লাইং ওয়াটার ট্যাংকার’ ব্যবহারের পরামর্শ দেন। জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মের্কেল শোক জানিয়ে বলেন, এটা শুধু ফ্রান্সই নয়, ইউরোপীয় সংস্কৃতির প্রতীক। যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে বলেন, তিনি ফরাসিদের সঙ্গে সমব্যথী।

x