আকতার হোসাইন (আমাদের চিকিৎসকদের আত্মসমালোচনার সময় কি আসে নি)

বুধবার , ৭ নভেম্বর, ২০১৮ at ৫:০২ পূর্বাহ্ণ
9

ভারতের চেন্নাই, ভেলোর, ব্যাঙ্গালোর, কলকাতায় আজকাল বাংলাদেশি চিকিৎসাপ্রার্থীদের বেজায় ভিড়। এই ভিড় দিনদিন কেন বাড়ছে, তা’ আমাদের দেশের চিকিৎসাবিজ্ঞানী ও সমাজবিজ্ঞানীরা ভালো বলতে পারবেন। আমাদের চিকিৎসকদের অনেকেই বিদেশ থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নেন। আবার, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যাঁরা পোস্ট গ্রাজুয়েশন ডিগ্রি নেন, তার মান নিয়েও কখনো প্রশ্ন ওঠে নি। যদিও আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা বা পাশ্চাত্যের অনেক দেশে আমাদের পোস্ট গ্রাজুয়েট চিকিৎসকদেরও চিকিৎসা করার সনদ পেতে বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয় বলে শুনেছি। প্রশ্ন হচ্ছে, ভারতীয় চিকিৎসকেরা কি এতই নিখুঁত ও ত্রুটিমুক্ত যে, আমাদের রোগীদের কাফেলা সেদিকে যেভাবে ধাবিত হচ্ছে, মনে হচ্ছে আমাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা একেবারে যাচ্ছেতাই। ঢাকায় বেশ কয়েকটি বেসরকারি আন্তর্জাতিকমানের হাসপাতাল প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, তারপরও আমাদের রোগীদের আস্থাহীনতা দিনের পর দিন কমছে বৈ বাড়ছে না। আমাদের কর্তাব্যক্তিরা কি ভেবে দেখেছেন, বৈধ অবৈধপথে কী পরিমাণ টাকা শুধু চিকিৎসাসেবার মাধ্যমে ভারত আমাদের থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে? ভারতীয় চিকিৎসকদের প্রথম কাজই হলো, আমাদের দেশের সব ব্যবস্থাপত্র ও রোগনির্ণায়ক পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাগজ বোগাস বলে ছুঁড়ে ফেলে দেয়া। তাঁরা আমাদের দেশের রোগীদের বেশ সময় দেন, আন্তরিকতার সাথে কথা বলেন আর, রোগীদের মনে আমাদের দেশের চিকিৎসকদের বিষয়ে অবিশ্বাস, সন্দেহ আর ঘৃণার বীজ উপ্ত করে দেন। সেই বীজ থেকে চারা হয়ে তা’ রোগীর আত্মীয়-স্বজনের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে, আর আমরা কালবিলম্ব না করে ভারতীয় দূতাবাসের দিকে ছুটি। এই অবস্থার জন্য ভারতীয় চিকিৎসক, হাসপাতালের ব্যবসায়িক বুদ্ধিকে আমাদের প্রশংসা করতেই হয়। তবে, সাথে সাথে আমাদের চিকিৎসকদেরও আত্মসমালোচনার সময় কি আসে নি? তাঁরা আমাদের দেশের রোগীদের মনস্তত্ত্ব নিয়ে একবারও চিন্তা করেছেন কি? নাকি চেম্বারে রোগীর দীর্ঘলাইন দেখেই আত্মতুষ্টিতে ভুগছেন!

x