অ্যাটর্নি জেনারেলকে বরখাস্ত করলেন ট্রাম্প

শুক্রবার , ৯ নভেম্বর, ২০১৮ at ৯:১৫ পূর্বাহ্ণ
33

‘অনুগত’ ও ‘আস্থাভাজন’ অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশন্সকে অবশেষে বরখাস্ত করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার এক টুইটে ট্রাম্প বলেছেন, তার কাজের জন্য অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশন্সকে ধন্যবাদ জানিয়েছি আমরা এবং তার শুভ কামনা করি! বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার প্রভাব বিস্তার নিয়ে চলা তদন্ত থেকে সেশন্স নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার পর থেকে বারবার তার শীর্ষ আইন কর্মকর্তার সমালোচনা করে আসছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। খবর বিডিনিউজ ও বাংলানিউজের। ট্রাম্প জানিয়েছেন, ভারপ্রাপ্ত অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সেশন্সের চিফ অব স্টাফ ম্যাথু হুইটেকার। এ পদে স্থায়ী নিয়োগ পরে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। প্রায় প্রথম থেকেই ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন জানানো সেশন্স তার পদত্যাগপত্রে পদ ছাড়ার সিদ্ধান্তটি যে তার নিজের ছিল না তা পরিষ্কার করেছেন। তারিখবিহীন এক চিঠিতে তিনি লিখেছেন, প্রিয় প্রেসিডেন্ট মহোদয়, আপনার অনুরোধে আমি আমার পদত্যাগপত্র জমা দিচ্ছি। চিঠিতে ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেছেন, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে আমরা আইনের শাসন পুনর্বহাল ও নিশ্চিত করেছি।
হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তাদের ভাষ্য অনুযায়ী, বুধবার মধ্যবর্তী নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে ট্রাম্পের এক সংবাদ সম্মেলনের আগে ট্রাম্পের চিফ অব স্টাফ জন কেলি সেশন্সকে ডেকে পাঠিয়েছিলেন।
এর আগে গত আগস্টে ট্রাম্পের আক্রমণাত্মক মন্তব্যের পর রাজনৈতিক চাপের কাছে বিচার বিভাগ মাথা নোয়াবে না বলে হুঁশিয়ার করেছিলেন জেফ সেশন্স। সেই সময় এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, শপথ নেওয়ার পর থেকেই বিচার বিভাগের ওপর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছি। আমি অ্যাটর্নি জেনারেল থাকা অবস্থায় এই বিভাগের কোনো কাজ রাজনৈতিক বিবেচনায় প্রভাবিত হতে পারবে না।
২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে মনোনিত হন আলাবামা অঙ্গরাজ্যের সিনেটর জেফ সেশন্স। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মনোনীত নতুন এই অ্যাটর্নি জেনারেলকে অনুমোদন দেয় মার্কিন সিনেট। সে সময় সেশন্সের পক্ষে ভোট পড়ে ৫২টি, বিপক্ষে ৪৭টি। যদিও সেশন্সের নিয়োগ নিয়ে সে সময় পানি কম ঘোলা হয়নি।

x