অল ফর ক্লাউন, ক্লাউন ফর অল : প্রতিবিধানমূলক নাট্য কর্মশালা

আনন্দন প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার , ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ at ৬:৫৯ পূর্বাহ্ণ
12

২০০৩ খৃস্টাব্দে প্রথম যাত্রা শুরু হয় জাতীয় প্রতিবিধানমূলক নাট্য কর্মশালার। স্বেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংগঠন ইউনাইট থিয়েটার ফর সোশাল অ্যাকশন (উৎস)-এর উদ্যোগে আয়োজিত প্রথম জাতীয় প্রতিবিধানমূলক নাট্য কর্মশালায় প্রশিক্ষক হিসেবে যোগ দেন আমেরিকা থেকে আগত ড. হার্ব প্রপার ও জেনি ক্রিস্টাল।এর পর থেকে প্রতি বছরংধারাবাহিকভাবে আয়োজন হয়ে আসছে ন্যাশনাল থেরাপিউটিক থিয়েটার ওয়ার্কশপ। চট্টগ্রামের বাইরে ঢাকাতেও এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে একাধিকবার। কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী প্রশিক্ষণার্থীদের আগ্রহ ও বাংলাদেশে ‘থেরাপিউটিক থিয়েটার’ ধারার চর্চা ও পরিচিতি বৃদ্ধি এবং আলোচ্য বিষয়ে দক্ষ জনগোষ্ঠী তৈরীর অভিপ্রায়ে ২০০৬ খৃস্টাব্দে গঠিত হয় ‘বাংলাদেশ থেরাপিউটিক থিয়েটার ইনস্টিটিউট। বিশেষায়িত এই প্রতিষ্ঠান গঠিত হওয়ার পর থেকে এই মনোবিশ্লেষক কর্মশালা উৎস সহ অপরাপর প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় বিটিটিআই আয়োজন করে আসছে।
বিগত ১৫ বছরে ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, মনোবিজ্ঞান বিভাগ ও নাট্যকলা বিভাগ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, জেলা শিল্পকলা একাডেমি চট্টগ্রাম, এশিয়ান উইমেন ইউনিভার্সিটি, বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠন ইপসা, বর্ণালী, কারিতাস, ঘাসফুল, সিডিডি, সিএলসিপি, উইমেন এন্টারপ্রিনিয়ার্স, এইউডিসি, বিটা, মমতা, অপকা, থিয়েটার থেরাপি সেন্টার ফর দি ডিসএ্যাবল্ড (টিটিসিডি), মেন্টাল হেলথ অ্যাডভোকেসি এসোসিয়েশন, এডলোসেন্ট ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন (এডিএফ), এ কে খান ফাউন্ডেশন এবং আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা অ্যাকশন এইড বাংলাদেশ, অ্যাকশন অন ডিসএ্যাবিলিটি (এডিডি), ডিয়াকোনিয়া’র প্রতিষ্ঠানসমূহ বাংলাদেশে মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় থেরাপিউটিক থিয়েটার পদ্ধতির ব্যবহারে অসামান্য ভূমিকা রেখেছে।
জাতীয় প্রতিবিধানমূলক নাট্য কর্মশালার ১৬তম আসর অনুষ্ঠিত হয় ১৪-১৭ অক্টোবর ২০১৮।জেলা শিল্পকলা একাডেমি চট্টগ্রাম এবং বাংলাদেশ থেরাপিউটিক থিয়েটার ইনস্টিটিউট -এর যৌথ আয়োজনে এবং ইউনাইট থিয়েটার ফর সোশাল অ্যাকশন উৎস)-এর সহযোগিতায়চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমির আর্ট গ্যালারি মিলনায়তনে অনুষ্টিত ৪ দিন ব্যাপী মনোবিশ্লেষক এই নাট্য কর্মশালার মূল প্রতিপাদ্য ছিল ‘যুব সমাজ ও মানসিক স্বাস্থ্য’।
“থিয়েটার থেরাপি থ্রো ক্লাউনিং” শীর্ষক উক্ত নিরাময়ী নাট্যক্রিয়া বিষয়ক কর্মশালা পরিচালনা করেছেন লেবানন থেকে আগত ক্লাউন থেরাপিষ্ট জনি জারজেস। কর্মশালায় নাট্যকর্মী, উন্নয়ন কর্মী ও মনোসামাজিক সুরক্ষা সেবীসহ ২৪জন প্রশিক্ষণার্থী অংশগ্রহণ করেন।
১৪ অক্টোবর ’১৮ সকাল ১০টায় উক্ত কর্মশালা আনুষ্টানিকভাবে উদ্বোধন করেন অধ্যাপক মশিউর রহমান আদনান। উদ্বোধনী অনুষ্টানে সভাপতিত্ত্ব করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমীর, সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন এর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নাট্যজন সাইফুল আলম বাবু।
প্রশিক্ষণ কর্মশালায় মনোসামাজিক স্বাস্থ্য সুরক্ষা সেবা প্রদান, বিভিন্ন বাধা ও সীমাবদ্ধতাসমুহ খুঁজে বের করা, প্রতিনিয়ত ফলাফল ও শিখন বের করে এনে নিজেকে সমৃদ্ধ করার জন্য ক্লাউন অনুসঙ্গ ব্যবহার করে অংশগ্রহণকারীদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে কর্মসূচি পরিচালিত হয়। পরষ্পরের মধ্যে কথা বলা – আলাপচারিতা – কথোপকথন হচ্ছে গ্রুপের জড়তা কাটানোর একটি সৃজনশীল খেলা। এই খেলার মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীরা কর্মশালা থেকে তাদের প্রত্যাশার কথা বলবে এবং এর পেছনে সামাজিক বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গী প্রকাশ পাবে।
১৯ টি অধিবেশনের মাধ্যমে সাইকোসোশাল সাপোর্ট (পিএসএস), থেরাপি, মেন্টাল হেলথ, আইডেনটিটি, ট্রমা, প্রটেকটিভ ফ্যাক্টর, রিস্ক ফ্যাক্টর, রিজিলিয়েন্স, সেল্ফ ইস্টিম, গ্রিভেন্স, লস এবং কেস স্টাডিজ অন্তর্ভূক্ত ছিল।
অধিবেশনের বিস্তারিত কর্মসূচির মধ্যে ক) সম অংশগ্রহনের সুযোগ ও বাধা বিপত্তিসমুহ, খ) আর্ট থেরাপির মাধ্যমে মনোসামাজিক স্বাস্থ্য সুরক্ষার প্রারম্ভিক সহায়তা প্রদান, গ) নিজের সমস্যার কথা বলার জন্য একটি নিরাপদ স্থান নির্বাচন, ঘ) কথোপকথনের মাধ্যমে কর্যক্রম শুরু করা, ঙ) সম্মিলিতভাবে চিন্তার ক্ষেত্রে দৃষ্টিভঙ্গীর পরিবর্তন আনা,চ) কাঠামোগত এবং দৃষ্টি নিবদ্ধ মনোসামাজিক স্বাস্থ্য সহায়তা, ছ) নিয়ম ও আচার মেনে কার্যক্রম চালানো, জ) আরোগ্যলাভ হচ্ছে ক্লাউনিং এর যথাযথ প্রয়োগের একটি সমন্বিত অংশ, ঝ) আন্তরিক সহমর্মিতা,ঞ) অভিনেতার চরিত্র পরিত্যাগ করে মুখোশ সরিয়ে ফেলে সত্যিকারের সৎ মনোভাব নিয়ে কারো সাথে যোগাযোগ স্থাপন করা, ট) ক্লাউনিং এর কলাকৌশল ও নিয়মবলী, ঠ) সীমাবদ্ধতাসমুহ।
শেষ দিনে আচরণ পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন এবং পরিমাপের নির্দেশিকা ও উপকরণসমূহের অধিবেশন দিয়ে প্রশিক্ষণের সমাপ্তি ঘটে। ১৭ অক্টোবর বিকাল ৩টায় প্রশিক্ষণ কর্মশালার আনুষ্ঠানিক সমাপনী পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।
এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা শিল্পকলা একাডেমি চট্টগ্রামের কালচারাল অফিসার মোসলেম উদ্দীন সিকদার। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. কুন্তল বড়ুয়া ও বাংলাদেশ রাবার বাগান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাউসার জামাল।
বাংলাদেশ থেরাপিউটিক থিয়েটার ইনস্টিটিউট এর সমন্বয়কারী নাট্যজন মুহাম্মদ শাহ্‌ আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিটিটিআই এর প্রশিক্ষক এ এল এম রেজা আজীজ, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন উৎস’র নির্বাহি পরিচালক নাট্যজন মোস্তফা কামাল যাত্রা। কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে শুরুতে অনুভূতি ব্যক্ত করে বক্তব্য রাখেন শারমিন সুলতানা রাশা ও মুরাদ হাসান।
শেষে অতিথিবৃন্দ অংশগ্রহণকারীদের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করেন।

x